স্পোর্টস

অনন্য রেকর্ডের অপেক্ষায় সাকিব

ক্রীড়া প্রতিবেদক: ব্যাট-বল হাতে দুর্দান্ত ছন্দে রয়েছেন সাকিব আল হাসান। তবে গত ত্রি-দেশীয় সিরিজে এ বাঁহাতিকে কিছুটা অস্বস্তিতে ফেলেছিল চোট। শেষ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন। নিয়মিতই করছেন অনুশীলন। এরই মধ্যে এ তারকা ওয়ানডে ক্রিকেটে অলরাউন্ডারদের র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষস্থান আরেকবার ফিরে পাওয়ার সংবাদ পেয়েছেন। এ মর্যাদা নিয়েই আগামী ২ জুন দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচ দিয়ে এবারের বিশ্বকাপে খেলতে নামছেন এ তারকা, যে ম্যাচে বাংলাদেশ সহ-অধিনায়ক রয়েছেন অনন্য রেকর্ডের অপেক্ষায়।
ওয়ানডে ক্রিকেটে ৫ হাজার রান ও ২৫০ উইকেট শিকারের অনন্য রেকর্ড ডাকছে সাকিবকে। এজন্য এ বাঁহাতির দরকার আর মাত্র একটি উইকেট। এখন পর্যন্ত এ কীর্তি দেখিয়েছেন বিশ্বের চার অলরাউন্ডার। তারা হলেন জ্যাক ক্যালিস, সনাৎ জয়সুরিয়া, শহিদ আফ্রিদি ও আবদুর রাজ্জাক।
আগের চারজন ৫ হাজার রান ও ২৫০ উইকেট শিকারের অনন্য রেকর্ড গড়তে যত ম্যাচ খেলেছেন, সে তুলনায় সাকিব খেলছেন অনেক কম। সেই বিবেচনায় সবচেয়ে কম ম্যাচ খেলে দ্রুততম সময়ে এ ক্লাবে যোগ দেওয়া মাত্রই সাকিবের নামটা তালিকার এক নম্বরে থাকবে!
এবারের বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলতে নামলেই ১৯৯তম ম্যাচ হবে সাকিবের। তার আগে ৫ হাজার রান ও ২৫০ উইকেট ক্লাবে সবচেয়ে কম ম্যাচ খেলে যোগ দেওয়া ক্রিকেটার হলেন আবদুর রাজ্জাক। ২৩৪ ম্যাচ খেলে সাবেক এ পাকিস্তানি অলরাউন্ডার এই ক্লাবে নাম লিখিয়েছিলেন।
দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচে একটি উইকেট পেলেই সাকিব হয়ে যাবেন ৫ হাজার রান ও ২৫০ উইকেট শিকারে পঞ্চম অলরাউন্ডার। তার আগেই অবশ্য ব্যাপারটি নিয়ে উচ্ছ্বসিত টাইগার এ তারকা ‘বিশ্বকাপের মঞ্চে কোনো রেকর্ডে নাম লেখানোটা আমার জন্য অনেক বড় একটা অর্জন হবে। আমি অপেক্ষায় আছি। এখনও রেকর্ডের জন্য আরেকটা উইকেট পেতে হবে। আশা করছি বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচেই সেটা পাব।’
এখন পর্যন্ত দেশের জার্সিতে সাকিব খেলেছেন ১৯৮ ম্যাচ। রান করেছেন ৩৫.৭৩ গড়ে ৫৭১৭ রান। এর মধ্যে সেঞ্চুরি ৭ আর হাফসেঞ্চুরি রয়েছে ৪২টি। এদিকে এ তারকা বল হাতে ৪.৪৪ ইকোনোমিতে নিয়েছেন ২৪৯ উইকেট। তার সেরা সাফল্য ৪৭ রানে ৫ উইকেট। সেই ধারাবাহিকতায় মাগুরার এ ক্রিকেটার এবার অনন্য উচ্চতায় ওঠার অপেক্ষায় রয়েছেন।
বড় মাপের ক্রিকেটারদের সঙ্গে নিজের নাম থাকবে। ব্যাপারটি নিয়ে তাই আগে থেকেই গর্ব হচ্ছে সাকিবের ‘গ্রেট ক্রিকেটারদের সারিতে তাদের সঙ্গে যখন নিজের নাম থাকে, তখন অবশ্যই আনন্দ হয়, গর্ব হয়। এই আনন্দ, এই গর্ব, এই সাফল্য আমাকে সামনের সময়টা আরও ভালো পারফর্ম করতে উজ্জীবিত করে।’
দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আগামী ২ জুন সাকিবের রেকর্ডের সঙ্গে বাংলাদেশও জিতুকÑএ প্রার্থনাই করছেন টাইগার ভক্তরা। এখন দেখার বিষয় কল্পনার সঙ্গে বাস্তবতার কতটুকু মিল থাকে। তবে সেটা যদি শেষ পর্যন্ত নাও হয়, তাতেও কি খুব একটা ক্ষতি হবে ম্যাশ বাহিনীর?

সর্বশেষ..