আজিজ পাইপস

নির্মাণ শিল্পের উন্নতির ছোঁয়ায় দেশে পাইপ প্রস্ততকারী প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বেড়েছে। এ কারণে দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে রফতানিও হচ্ছে দেশে তৈরি পিভিসি পাইপ। পিভিসি প্লাস্টিক উড ও পিভিসি প্রোফাইলসের চাহিদাও রয়েছে দেশীয় বাজারে। এর মধ্যে প্লাস্টিক উড রফতানি করা হয় সার্কভুক্ত দেশসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোয়। এ অবস্থানে আসার পেছনে যে কয়েকটি প্রতিষ্ঠান ভূমিকা রেখেছে তাদের মধ্যে আজিজ পাইপস অন্যতম। শুধু তা-ই নয়, পাইপের আমদানি নির্ভরতা কমিয়ে দেশীয় শিল্পকে সমৃদ্ধ করছে প্রতিষ্ঠানটি।
বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী পাইপ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান আজিজ পাইপস। বলা যায়, এক সময়ের দাপুটে প্রতিষ্ঠান এটি। আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন পাইপ উৎপাদন করে প্রতিষ্ঠানটি। সাশ্রয়ী দামে বিপণন করা হয় এর সব পণ্য।
পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্রকৌশল খাতের প্রতিষ্ঠান আজিজ পাইপস। প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৮১ সালে। বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করে ১৯৮৫ সালে। একই বছরে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত হয়। ১৯৯৫ সালে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে তালিকাভুক্ত হয় প্রতিষ্ঠানটি।
প্রতিষ্ঠার শুরুতে বছরে ১২০০ টন পাইপ উৎপাদন করত আজিজ পাইপস। ১২ বছর পরে ১৯৯৬ সালে প্রতিষ্ঠানটির উৎপাদন ক্ষমতা দাঁড়ায় সাত হাজার টনে। উৎপাদন সক্ষমতায় নিজেদের কারিগরি কারিশমা প্রমাণ করে চলেছে প্রতিষ্ঠানটি।
উন্নতমানের পিভিসি ও ইউপিভিসি পাইপ উৎপাদন করে আজিজ পাইপস। এ জন্য কারখানা সংস্কার ও আধুনিকায়নের ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয় এখানে। দক্ষতার সঙ্গে কারখানা পরিচালনা করে থাকে কর্তৃপক্ষ। সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয় এখানে। উৎপাদনের জন্য নিজস্ব উদ্যোগে কাঁচামাল আমদানি করে থাকে প্রতিষ্ঠানটি। দেশজুড়ে সরবরাহ করা হয় তাদের পণ্য। এ অবস্থানে আসার পেছনে অনেক চড়াই-উতরাই পেরোতে হয়েছে প্রতিষ্ঠানটিকে। প্রতিযোগী প্রতিষ্ঠানদের সঙ্গে যুঝতে হয়েছে। তবে সব ধরনের বন্ধুর পথ পেরিয়ে নিজেদের আস্থায় পরিণত করেছে আজিজ পাইপস। পরিণত হয়েছে গ্রাহকের পছন্দের ব্র্যান্ডে। ক্রেতার চাহিদাকে প্রাধান্য দেওয়া হয় এখানে। পণ্যের মান উন্নয়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় অংশ নিয়ে থাকে আজিজ পাইপস।

অর্জন

১৯৯২-৯৩ সালে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সেরা ১০ প্লাস্টিক খাতের প্রতিষ্ঠানের একটি নির্বাচিত হয় আজিজ পাইপস

১৯৯৮ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি জসিমউদ্দিন ফাউন্ডেশন গোল্ড মেডেল অর্জন করে

১৯৯৭-৯৮ সালে ন্যাশন এক্সপোর্ট ট্রফি অ্যাওয়ার্ড লাভ করে।

আজিজ পাইপসে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করছেন মো. কামাল হোসেন গাজী। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মার্কেটিং বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন। শিক্ষা জীবন সম্পন্ন করে ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশে (আইসিবি) সিনিয়র অফিসার হিসেবে যোগ দেন। এর মধ্য দিয়ে শুরু হয় তার কর্মজীবন। আইসিবির বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ ও ডিভিশনের দায়িত্বে রয়েছেন। আইসিবির প্রতিনিধি হিসেবে আজিজ পাইপসের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।
ব্যবস্থাপনা টিমের নেতৃত্বে রয়েছেন মো. নুরুল আবছার। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাববিজ্ঞান বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন। পরে একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি ডিগ্রি লাভ করেন। পরবর্তী সময়ে আইসিএবির আওতাধীন সিএ ফার্ম মেসার্স এ ওহাব অ্যান্ড কো. থেকে সিএ কোর্স সম্পন্ন করেন। আজিজ পাইপসে হিসাবরক্ষক পদে যোগ দেন। পরে এ প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে নিয়োজিত হন। এভাবে চলতে চলতে ২০০৯ সালে কর্মদক্ষতার স্বীকৃতিস্বরূপ প্রধান অর্থ কর্মকর্তার দায়িত্ব পান। ২০১৪ সাল থেকে ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্বে রয়েছেন।
আজিজ পাইপসে উদ্যোক্তা পরিচালক হিসেবে রয়েছেন মোহাম্মদ আবদুল হালিম। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। বাংলাদেশে বিভিন্ন ব্যবসা ও শিল্প প্রতিষ্ঠানের অগ্রযাত্রায় তার বিশেষ ভূমিকা রয়েছে। সুদীর্ঘ কর্মজীবনে তিনি ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদেও ছিলেন। উদ্যোক্তা পরিচালক হিসেবে আরও রয়েছেন
মোহাম্মদ আহসান উল্লাহ্। পরিচালনা পরিষদে রয়েছেন মোহাম্মদ আসা উল্লাহ্, মো. আমিনুল কাদের খান, এটিএম আহমেদুর রহমান, খন্দকার নূরুজ্জামান ও মো. নূরুল হক।
দক্ষ ও প্রশিক্ষিত জনবল রয়েছে আজিজ পাইপসে। কর্মীবান্ধব প্রতিষ্ঠান হিসেবে সুনাম রয়েছে এ প্রতিষ্ঠানের। পরিবেশবান্ধব প্রতিষ্ঠান হিসেবেও পরিচিতি রয়েছে।

রতন কুমার দাস