হোম আঞ্চলিক বানিজ্য আজ শেষ হচ্ছে গার্মেন্টেক চিটাগং প্রদর্শনী

আজ শেষ হচ্ছে গার্মেন্টেক চিটাগং প্রদর্শনী


Warning: date() expects parameter 2 to be long, string given in /home/sharebiz/public_html/wp-content/themes/Newsmag/includes/wp_booster/td_module_single_base.php on line 290

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম: বাংলাদেশে গার্মেন্ট প্রযুক্তির বিশাল বাজার থাকলেও গ্যাস ও গুণগত মানসম্মত বিদ্যুৎ সংকটের কারণে তা এখন স্থবির। কারণ, গ্যাস ও মানসম্মত বিদ্যুতের অভাবে নতুন কারখানা হচ্ছে না। আর নতুন কারখানা না হলে নতুন যন্ত্রপাতির প্রয়োজনও হয় না। পোশাক খাতের যন্ত্রপাতি তৈরি করেÑএমন ২৫ দেশের একশ বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানের ১৫০-এর বেশি বুথ নিয়ে চট্টগ্রামের জিইসি কনভেনশন সেন্টারে আজ শেষ হচ্ছে তিন দিনব্যাপী গার্মেন্টেক চিটাগং-২০১৭ প্রদর্শনী।

মেলা ঘুরে মনে হলো পুরোটাই যেন একটি পোশাক কারখানা। এক স্টলে চলছে পোশাক বুনন, আরেক স্টলে সেলাই। সেলাই করা পোশাকে নকশা ও আয়রনের কাজ চলছে অন্য স্টলে। পোশাকশিল্পে যত ধরনের যন্ত্রের প্রয়োজন হয়, তার সবকিছুই এভাবে প্রদর্শন হয়েছে মেলায়। কীভাবে যন্ত্রগুলো চালাতে হয়, তাও দেখানো হয় দর্শনার্থীকে। মেলায় দর্শনার্থীর অধিকাংশই পোশাক শিল্পমালিক কিংবা কোনো না কোনোভাবে এ খাতের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট।

মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর অধিকাংশ ব্যবস্থাপক বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় তৈরি পোশাক রফতানিকারকদের মধ্যে অন্যতম এবং এ শিল্পের নিরাপত্তা ও কমপ্লায়েন্স নিয়ে প্রত্যাশা দিন দিন বাড়ছে। তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারকরা মানসম্মত গার্মেন্টপণ্য উৎপাদনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। এ কারণেই সর্বাধুনিক প্রযুক্তির উৎস তুলে ধরা ও সেগুলোর কার্যক্রম প্রদর্শনের জন্য ‘গার্মেন্টেক চিটাগং-২০১৭’ আয়োজন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কেননা, এ আন্তর্জাতিক প্রদর্শনীতে আন্তর্জাতিক মানের সুয়িং, নিটিং, এমব্রয়ডারি, লন্ড্রি, ফিনিশিং, ডায়িং, ক্যাড/ক্যাম, প্রিন্টিং কাটিং, স্প্রেডিং মেশিনারি সম্পর্কে তথ্য ও ধারণা তুলে ধরা হয়। পাশাপাশি প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো গার্মেন্ট অ্যাকসেসরিজ, মোড়ককরণ ও লেবেল, জিপার, ট্যাগ, ট্যাপ, থ্রেড, রিবন, বাটন, রিভেট, লেইস, হুক, ট্রান্সফার ফিল্ম, পেপার, ইঙ্ক প্রভৃতিসহ সংশ্লিষ্ট মেশিনারি তুলে ধরা হয়।

আয়োজক প্রতিষ্ঠান এএসকে’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক টিপু সুলতান ভূঁইয়া শেয়ার বিজকে বলেন, তৈরি পোশাকশিল্পের আধুনিকায়ন ও উন্নয়নে চট্টগ্রামে প্রথমবারের মতো এ মেলা শুরু হয়েছে। আগের আসরগুলোর ধারাবাহিকতায় এবারের প্রদর্শনীতে বাংলাদেশ, ভারত, চীন, দক্ষিণ কোরিয়া, তুরস্ক, ভিয়েতনাম, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, শ্রীলঙ্কা, ইতালি, জার্মানি, সিঙ্গাপুর, জাপান, তাইওয়ান, সুইজারল্যান্ড, ফিনল্যান্ড, সুইডেন, থাইল্যান্ড, কলম্বিয়া, মালয়েশিয়া, কানাডা, স্পেন, ফ্রান্স ও হংকংসহ ১৫০টি প্রতিষ্ঠান এতে অংশগ্রহণ করেছে। প্রতিষ্ঠানগুলো প্রডাক্টিভিটি, সেইফটি, কমপ্লায়েন্স, ইফিসিয়েন্সি, ভ্যালু এডিশন, প্রডাক্ট ডাইভারসিফিকেশন, ফ্যাব্রিক সোর্সিং ও প্যাকেজিং-সংশ্লিষ্ট টেকনোলজি সলুশন্স উপস্থাপন করে। এ ‘গার্মেন্টেক চিটাগং-২০১৭’তে ইয়ার্ন অ্যান্ড ফেব্রিক সোর্সিং সম্পর্কে ভালো ধারণা পাওয়া যায়।