প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

আতঙ্কে শেয়ার বিক্রি করছেন বিনিয়োগকারীরা

রুবাইয়াত রিক্তা: পুঁজিবাজারে প্রতিনিয়ত পতনের গতি বাড়ছে। বিনিয়োগকারীরা আতঙ্কে শেয়ার বিক্রি করে দিচ্ছেন। বিশেষ করে আর্থিক খাতের পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেডের (পিএলএফএল) আর্থিক অবস্থা গ্রাহকদের পাওনা মেটাতে অক্ষম হওয়ায় কোম্পানিটির অবসায়ন বা বিলুপ্তি চেয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে বাংলাদেশ ব্যাংক। অর্থ মন্ত্রণালয় ইতোমধ্যে তাতে অনুমোদন দিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকে চিঠি পাঠিয়েছে। এর ফলে অনেক বিনিয়োগকারীর পুঁজি আটকা পড়ে যাচ্ছে কোম্পানিটিতে। তারা এখন শেয়ার বিক্রি করে বেরিয়ে আসতেও পারছেন না। কারণ এ শেয়ারের ক্রেতা খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। পুঁজিবাজারে এ ধরনের বেশ কয়েকটি কোম্পানি থাকায় বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা গেছে। যার কারণে বেড়ে গেছে বিক্রির চাপ। এতে করে গতকাল ৭৯ শতাংশ কোম্পানির দরপতন হয়। সব খাত মিলে মাত্র ৫১ কোম্পানির দর বেড়েছে। এর মধ্যে ২৫টি ছিল বিমা খাতের। এছাড়া ব্যাংক খাতে বেড়েছে ১০ কোম্পানির দর। বাকি ১৬ কোম্পানি ছিল অন্যান্য সব খাত মিলে।
গতকাল লেনদেনে এক-চতুর্থাংশের বেশি বা ২৭ শতাংশ লেনদেন হয় বিমা খাতে। ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের সাড়ে ১৫ কোটি টাকা লেনদেন হয়ে শীর্ষে উঠে আসে। দরপতন হয় প্রায় ২১ টাকা। রূপালী লাইফের সোয়া ৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৩০ পয়সা। পাইওনিয়ার ইন্স্যুরেন্সের প্রায় ৯ কোটি লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে তিন টাকা। কোম্পানিটি দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের তালিকায় অবস্থান করে। ঢাকা ইন্স্যুরেন্সের সাড়ে সাত কোটি টাকা, প্যারামাউন্ট ইন্স্যুরেন্সের সাত কোটি ও প্রাইম ইন্স্যুরেন্সের পৌনে সাত কোটি টাকা লেনদেন হয়। সবকটি শেয়ারের দর ইতিবাচক ছিল। ১০ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে নিটল ইন্স্যুরেন্স। ৯ দশমিক ৯১ শতাংশ বেড়ে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে আসে প্রিমিয়ার ইন্স্যুরেন্স। এছাড়া পিপলস, প্যারামাউন্ট, ঢাকা ও কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্স এ তালিকায় অবস্থান করে। প্রকৌশল খাতে ১৩ শতাংশ লেনদেন হয়। রানার অটোর ৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর পতন হয় সাড়ে তিন টাকা। সিঙ্গার বিডির সোয়া আট কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে তিন টাকা ৮০ পয়সা। বিবিধ খাতের সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজের প্রায় ৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে তিন টাকা। কোম্পানিটি দর বৃদ্ধিতে সপ্তম অবস্থানে উঠে আসে। বস্ত্র খাতে ১১ শতাংশ লেনদেন হয়। দর বেড়েছে মাত্র দুটি কোম্পানির। আগের দিন মিউচুয়াল ফান্ড খাত চাঙা থাকলেও গতকাল লেনদেন কমেছে পাঁচ শতাংশ। দর বেড়েছে মাত্র তিনটি ফান্ডের। এর মধ্যে দুটি ফান্ড দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে অবস্থান করে। এশিয়ান টাইগার্স গ্রোথ ফান্ডের সোয়া আট কোটি টাকা লেনদেন হলেও ১০ পয়সা দরপতনে ছিল।

সর্বশেষ..