প্রচ্ছদ প্রথম পাতা

আমানত বিমা তহবিলে জমা সাত হাজার কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ব্যাংকের তারল্য সংকটে আমানতকারীরা যাতে ক্ষতিগ্রস্ত না হন সেই লক্ষ্যে আমানত বিমা পদ্ধতি চালু করে সরকার। এই বিমার প্রিমিয়াম বাবদ প্রাপ্ত অর্থে ‘ডিপোজিট ইন্স্যুরেন্স ট্রাস্ট ফান্ড’ শীর্ষক একটি তহবিল পরিচালনা করে বাংলাদেশ ব্যাংক। কোনো ব্যাংক অবসায়িত হলে ওই তহবিল থেকে ব্যাংকটির প্রত্যেক আমানতকারীকে সর্বাধিক এক লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ হিসেবে পরিশোধ করবে সরকার। সম্প্রতি এক অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সর্বাধিক দুই লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন বলে জানান।
২০১৮ সালের ৩০ জুনের সংক্ষিপ্ত নিরীক্ষা প্রতিবেদন অনুযায়ী, ওই তহবিলে সাত হাজার ৯৪ কোটি ৪৯ লাখ ৫৯ হাজার টাকা জমা রয়েছে। এর মধ্যে চলতি দায় মাত্র ২০ হাজার টাকা।
২০১৭-১৮ অর্থবছরে ওই তহবিল থেকে বিনিয়োগ করা হয় ছয় হাজার ৯৪৮ কোটি আট লাখ ৫১ হাজার টাকা। বছর পাঁচেক আগে আমানত বিমা তহবিলের অর্থ সরকারি ট্রেজারি বন্ডে বিনিয়োগের পাশাপাশি আন্তঃব্যাংক রেপো খাতে বিনিয়োগের উদ্যোগ নেয় বাংলাদেশ ব্যাংক।
দেশের বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোয় গচ্ছিত ছোট অঙ্কের আমানতকারীদের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে আমানত বিমা পদ্ধতি চালু করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। ১৯৮৪ সালের আগস্টে এক অধ্যাদেশের মাধ্যমে এই পদ্ধতির সূত্রপাত ঘটে। ২০০০ সালের জুলাইয়ে ওই অধ্যাদেশকে ‘ব্যাংক আমানত বিমা আইন ২০০০’ নামে জারি করা হয়। বাংলাদেশ ব্যাংক ২০০৬ সালে ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অব ডিপোজিট ইন্স্যুরেসেসের (আইএডিআই) সদস্যপদ লাভ করে।
বাংলাদেশে কার্যরত বিদেশি ব্যাংকসহ সব তফসিলি ব্যাংক ‘ব্যাংক আমানত বিমা আইন ২০০০’-এর বিধান অনুযায়ী, আমানত বিমা স্কিমের আওতায় থাকতে বাধ্য। বর্তমানে দেশে ৫৯টি তফসিলি ব্যাংকই আমানত বিমা স্কিমের আওতায় রয়েছে।
আমানত বিমা আইন অনুযায়ী প্রত্যেক তফসিলি ব্যাংক সদস্য হিসেবে বিমা সুবিধার আওতায় ৩০ জুন ও ৩১ ডিসেম্বরভিত্তিক বছরে দুবার প্রিমিয়াম জমা দিয়ে আসছিল। ২০০৭ সালের আগ পর্যন্ত সব ব্যাংকের জন্য প্রিমিয়ামের হার ছিল সমান। পরে সেটা পরিবর্তন করে ঝুঁকিভিত্তিক বিমা প্রিমিয়াম হার চালু
করা হয়। ২০১২ সালে প্রিমিয়াম হার পুনর্নির্ধারণ করা হয় এবং ২০১৩ থেকে সেটা কার্যকর হয়। বর্তমানে ক্যামেলস রেটিং অনুযায়ী তিন ধরনের আমানত বিমার প্রিমিয়াম হার চালু রয়েছে। রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাণিজ্যিক ও বিশেষায়িত ব্যাংক এবং বেসরকারি ব্যাংকের আমানত বিমার প্রিমিয়াম হার শূন্য দশমিক শূন্য আট শতাংশ। অর্থাৎ প্রতি ১০০ টাকা আমানতে আট পয়সা করে বিমা প্রিমিয়াম জমা রাখে বাংলাদেশ ব্যাংক।
এই ব্যাংকগুলোর মধ্যে কোনো ব্যাংক যদি ক্যামেলস রেটিং অনুযায়ী ‘আর্লি ওয়ার্নিং স্টেজে’ থাকে, তবে ওই ব্যাংকগুলোর আমানত বিমার প্রিমিয়াম হার শূন্য দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ। ‘প্রবলেম’ ব্যাংকগুলোর আমানত বিমার প্রিমিয়াম হার শূন্য দশমিক ১০ শতাংশ।
বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যমতে, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ব্যাংক খাতে চলতি ও তলবি আমানতের স্থিতি ছিল ১০ লাখ ১৪ হাজার কোটি টাকা।

সর্বশেষ..