ইউএস-বাংলা গ্রুপ

বাংলাদেশে বহুমাত্রিক ব্যবসায়িক গ্রুপ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে ইউএস-বাংলা গ্রুপ। তাদের মিশন ও ভিশন হচ্ছে দেশের জনগণের মৌলিক চাহিদা পূরণ। এ লক্ষ্য অর্জনে নিরলস কাজ করছে গ্রুপটি। ইউএস-বাংলা গ্রুপের প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে ইউএস-বাংলা অ্যাসেটস, ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস, ইউএস-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ
অ্যান্ড হসপিটাল, গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব
বাংলাদেশ, ইউএসবি এক্সপ্রেস, ইউএস-বাংলা
লেদার ইন্ডাস্ট্রিজ, ইউএস-বাংলা ফুটওয়্যার,
ইউএস-বাংলা হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ, ইউএস-বাংলা অটোমোবাইলস, ইউএস-বাংলা ফুডস,
ইউএস-বাংলা ফ্যাশনস প্রভৃতি।
ইউএস-বাংলা গ্রুপের যাত্রা শুরু ৯ বছর আগে। সময়ের হিসেবে ব্যবসার পরিধি বেড়ে চলেছে জ্যামিতিক হারে, যা বাংলাদেশে অনেকটাই বিরল। বিশ্বের ঘন বসতিপূর্ণ দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশ। জনসংখ্যার আধিক্যের কারণে দিন দিন আবাসন সংকট প্রকট আকার ধারণ করছে এখানে। আবাসন সংকট নিরসনে
ইউএস-বাংলা গ্রুপ ঢাকার সন্নিকটে নতুন ঢাকা খ্যাত পূর্বাচলে গড়ে তুলেছে পূর্বাচল আমেরিকান সিটি, যা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে মাত্র ২০ মিনিট দূরত্বের। এখানে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, হাসপাতাল, খোলা মাঠসহ সবুজে ঘেরা একটি আধুনিক শহরের রূপ নেবে, যা একটি আধুনিক শহরের দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। পূর্বাচল আমেরিকান সিটি প্রকল্পে থাকছে গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ, ইউএস-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল,
ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, স্পোর্টস কমপ্লেক্স, অ্যামিউজমেন্ট পার্ক, ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টার, মডার্ন শপিং কমপ্লেক্স ও আন্তর্জাতিক বিমান সংস্থা ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের হেডকোয়ার্টারসহ নানাবিধ প্রতিষ্ঠান। সবুজে ঘেরা আধুনিক শহর পূর্বাচল আমেরিকান সিটি নির্মাণে ইউএস-বাংলা গ্রুপ প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস
ইউএস-বাংলা গ্রুপের আন্তর্জাতিক এয়ারলাইনস এটি। ১৭ জুলাই ২০১৪ সালে যাত্রা করে এয়ারলাইনসটি। বাংলাদেশের বিমান পরিবহনশিল্পে একের পর এক নজির স্থাপন করেছে, অর্জন করেছে সাফল্যের মাইলফলক। অল্প সময়ের মধ্যে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ সব বিমানবন্দরে ফ্লাইট পরিচালনা করে দেশের জনগণকে স্বল্পতম সময়ে আকাশপথের মাধ্যমে যোগাযোগব্যবস্থাকে করেছে সুদৃঢ়। বর্তমানে অভ্যন্তরীণ রুটে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, সিলেট, যশোর, সৈয়দপুর, বরিশাল, রাজশাহী রুটে প্রতিদিন ফ্লাইট পরিচালনা করছে। অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট পরিচালনার সাফল্যের পর ইউএস-বাংলা যাত্রা শুরুর দুবছরের মধ্যে ১৫ মে ২০১৬ ঢাকা-কাঠমান্ডু রুটে ফ্লাইট পরিচালনার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে যাত্রা করে। বর্তমানে কলকাতা, মাস্কাট, দোহা, কুয়ালালামপুর, সিঙ্গাপুর, ব্যাংকক ও গুয়াংজু রুটে নিয়মিত ফ্লাইট পরিচালনা করছে।
যাত্রীসেবার অনন্য নজির স্থাপনের স্বীকৃতিস্বরূপ ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস অভ্যন্তরীণ রুটে তিন বছর যাবৎ সেরা এয়ারলাইনের মুকুট ধরে রাখতে পেরেছে। টিকিট সংগ্রহের জন্য রয়েছে অনলাইন বুকিং সুবিধা। রয়েছে হোম ডেলিভারির সুবিধাও। সারা দেশে ৩০টি সেলস অফিস রয়েছে তাদের। এছাড়া কাঠমান্ডু, কলকাতা, মাস্কট, কুয়ালালামপুর, সিঙ্গাপুর, ব্যাংকক, দোহা, গুয়াংজু, নিউইয়র্ক প্রভৃতি স্থানে নিজস্ব সেলস অফিস আছে। ফ্রিকোয়েন্ট ফ্লায়ারদের জন্য রয়েছে ‘স্কাইস্টার’ প্যাকেজ, যার মাধ্যমে শুধু টিকিট কেনার সুবিধাই নয়, বরং
যাত্রীরা বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন ধরনের ডিসকাউন্ট সুবিধাও পেয়ে থাকেন। ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনস যাত্রী পরিবহনের পাশাপাশি বিভিন্ন অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক গন্তব্যে কার্গোও পরিবহন করে থাকে।

ইউএসবি এক্সপ্রেস
ইউএস-বাংলা এয়ারলাইনসের অন্যতম সহযোগী প্রতিষ্ঠান ইউএসবি এক্সপ্রেস। এটি একটি অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক কুরিয়ার সার্ভিস, যা বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন সেবাদানকারী কুরিয়ার সার্ভিস প্রতিষ্ঠান হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছে।

ভাইব্রেন্ট
ভাইব্রেন্ট ব্র্যান্ড নিয়ে ইউএস-বাংলা গ্রুপের অন্যতম প্রতিষ্ঠান ইউএস-বাংলা ফুটওয়্যার লিমিটেড আত্মপ্রকাশ করেছে। এ ব্যান্ডের পণ্যের মান ও দামের প্রতি বিশেষ লক্ষ্য রেখে গ্রাহককে উন্নত সেবা দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।
প্রাথমিকভাবে পুরুষ, নারী ও শিশুদের জন্য প্রায় ৭০০ মডেলের নিত্যনতুন জুতার কালেকশন রাখা হয়েছে। ইতোমধ্যে রাজধানীর মৌচাক, গুলশান ও রামপুরা এবং চট্টগ্রামের হালিশহরে ভাইব্রেন্টের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ধারাবাহিকভাবে দেশের সব জেলায় ভাইব্রেন্টের শোরুম খোলা হবে। ২০১৮ সালের মধ্যে প্রায় ১০টি আউটলেটে কার্যক্রম শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে। অনলাইনেও ভাইব্রেন্টের সব পণ্য গ্রাহকসেবায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।
গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ
ইউএস-বাংলা গ্রুপের অন্যতম শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ। মেধাবী শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী, মুক্তিযোদ্ধা ও খেলোয়াড় কোটায় ভর্তিচ্ছুরা শতভাগ বৃত্তি নিয়ে পড়াশোনা করতে পারেন এ বিশ্ববিদ্যালয়ে। এছাড়া করপোরেট ও গ্রুপভিত্তিক ভর্তি হলে রয়েছে অতিরিক্ত ওয়েভার।
গ্রিন ইউনিভার্সিটির যাত্রা শুরু ২০০৩ সালে। বর্তমানে রাজধানীর শেওড়াপাড়ায় তিনটি ভবনে এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। শিগগিরই পূর্বাচল আমেরিকান সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাসে স্থানান্তর করা হবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি।
বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ১৮৩ জন শিক্ষক রয়েছেন। অধ্যাপক ১২, সহযোগী অধ্যাপক ৯, সহকারী অধ্যাপক ২৭ ও ১১৩ জন লেকচারারসহ কয়েকজন খণ্ডকালীন শিক্ষক রয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সুবিশাল গ্রন্থাগারে রয়েছে প্রায় ২০ হাজার বই। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে প্রায় ১০টি গবেষণা প্রজেক্ট পরিচালিত হচ্ছে। ২১ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার দৌড়ে গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ চেষ্টা করে যাচ্ছে। এজন্যই এ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষা, সহশিক্ষাসহ আধুনিক অনেক বৈশিষ্ট্যে অনন্য। দেশীয় সংস্কৃতি, মূল্যবোধ ও নীতি বজায় রেখে আমেরিকান ক্রেডিট পদ্ধতিতে গুণগত মানসম্পন্ন শিক্ষা দেওয়া হয়ে থাকে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে।

ইউএস-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল
নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে রয়েছে ইউএস-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল। আগামী তিন মাসের মধ্যে পূর্বাচলে হসপিটালের অবকাঠামো উন্নয়নের কার্যক্রম শুরুর পরিকল্পনা রয়েছে।

ইউএস-বাংলা লেদার ইন্ডাস্ট্রিজ
এটি একটি রফতানিমুখী শিল্পপ্রতিষ্ঠান।

ইউএস-বাংলা হাইটেক
চলতি বছরের শেষ প্রান্তিকে ইউএস-বাংলা হাইটেক আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে। এখানে বিভিন্ন ধরনের ইলেকট্রনিক পণ্য উৎপাদনের পরিকল্পনা রয়েছে। দেশীয় চাহিদা পূরণের পর রফতানিরও পরিকল্পনা আছে।
ইউএস-বাংলা গ্রুপ করপোরেট জগতে খ্যাতি অর্জনের সঙ্গে সঙ্গে করপোরেট সোশ্যাল রেসপনসিবিলিটির প্রতি সব সময় সজাগ। সব প্রতিষ্ঠানে প্রায় তিন হাজার লোকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছে ইউএস-বাংলা গ্রুপ।
‘আমাদের মূল লক্ষ্যই হচ্ছে সর্বোচ্চ গ্রাহক সন্তুষ্টি ও করপোরেট সংস্কৃতি মেনে চলা’
আবদুল্লাহ আল মামুন
ব্যবস্থাপনা পরিচালক

সাইফ ইউ আলম