বিশ্ব সংবাদ

ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের মাত্রা নিজেরাই নির্ধারণ করবে ইরান

শেয়ার বিজ ডেস্ক: ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের মাত্রা ইরান নিজেরাই নির্ধারণ করবে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ। ইরানের পরমাণু তৎপরতা নিয়ে মার্কিন কর্মকর্তাদের মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় এ কথা বলেছেন তিনি। সম্প্রতি ইরান সমৃদ্ধ ইউরেনিয়ামের মজুদ বাড়ানোর ঘোষণা দেওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইরানকে কোনো অবস্থায় ইউনিয়াম সমৃদ্ধ করতে দেওয়া হবে না। খবর: পার্স টুডে।
ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ট্রাম্পকে আগে ইরানের বিরুদ্ধে আরোপিত বেআইনি নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে। তার পরই ইরানের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ নিয়ে তার মুখে কথা শোভা পাবে। এ সময় তিনি পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়নের ব্যাপারে ইউরোপীয় দেশগুলোর পক্ষ থেকে ১১টি প্রতিশ্রুতি দেওয়ার কথা উল্লেখ করেন।
জাওয়াদ জারিফ বলেন, ইউরোপীয় দেশগুলো ইরানের সঙ্গে আর্থিক লেনদেনের জন্য ইন্?সটেক্স নামের যে বিশেষ ব্যবস্থা চালু করার দাবি করেছে, তাতে ওই ১১ প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের সুযোগ নেই। তিনি ইউরোপীয় দেশগুলোকে পরমাণু সমঝোতা মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ইউরোপীয়রা এ সমঝোতা যতখানি মেনে চলবে, তার দেশও ততখানি এটির বাস্তবায়ন করবে।
পরমাণু সমঝোতায় ইরানকে সর্বোচ্চ তিন দশমিক ৬৭ মাত্রায় ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বলা হয়েছে তারা সর্বোচ্চ ৩০০ কেজি সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মজুদ করতে পারবে। কিন্তু গত সোমবার ইরান ঘোষণা দেয়, দেশটি সমৃদ্ধ ইউরেনিয়ামের মজুদ বাড়িয়েছে। এছাড়া তেহরান ঘোষণা করেছে, ৮ জুলাইয়ের মধ্যে ইউরোপ তার প্রতিশ্রুতি রক্ষা না করলে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের মাত্রাও অতিক্রম করা হবে।
এদিকে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুব্রামানিয়াম জয়শঙ্কর বলেছেন, তেহরানের ওপর আমেরিকার নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও ইরানের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক বন্ধ করবে না তার দেশ। রাজধানী নয়াদিল্লিতে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা ঘোষণা করেন। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক ছিন্ন করতে ভারতের ওপর চাপ সৃষ্টি করেছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ইরান-ভারত ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৃতীয় কোনো দেশের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হবে না। নয়াদিল্লি তেহরানের সঙ্গে বাণিজ্যিক লেনদেন বন্ধ করবে না।

সর্বশেষ..