ইন্ডিগো-গোএয়ারের ৬৫ ফ্লাইট বাতিল

ইঞ্জিনে ত্রুটি

শেয়ার বিজ ডেস্ক : ত্রুটিপূর্ণ ইঞ্জিনের কারণে নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়ায় ৬৫টি ফ্লাইট বাতিল করেছে ভারতের উড়োজাহাজ সংস্থা ইন্ডিগো ও গোএয়ার। গতকাল মঙ্গলবার বিবৃতি দিয়ে দুই বিমান সংস্থা এ সিদ্ধান্ত জানানোয় বিপাকে পড়েন ইন্ডিগোর ওইসব ফ্লাইটের কয়েকশ যাত্রী।

ইঞ্জিনে ত্রুটি থাকায় সোমবারই ১১টি এয়ারবাস এ৩২০-নিও উড়োজাহাজের ফ্লাইটে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল বেসামরিক বিমান মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে ইন্ডিগোর রয়েছে আটটি ও গোএয়ারের তিনটি।

মন্ত্রণালয়ের অধীন নিয়ন্ত্রক সংস্থা ডিরেক্টরেট জেনারেল অব সিভিল অ্যাভিয়েশন (ডিজিসিএ) এক বিবৃতিতে জানায়, যাত্রীনিরাপত্তায় ঝুঁকি থাকায় উড়োজাহাজ চলাচলে সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানি প্র্যাট অ্যান্ড হুইটনির (পিডব্লিউ) এক হাজার ১০০ ইঞ্জিনযুক্ত ১১টি এ৩২০ উড়োজাহাজ চলাচল বন্ধ রাখা হলো।

এ সিদ্ধান্তের ফলে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ইন্ডিগো এবং গোএয়ার। কারণ কলকাতা, দিল্লি, মুম্বাই, চেন্নাই, হায়দরাবাদ ও ব্যাঙ্গালুরুসহ একাধিক শহর থেকে প্রতিদিন প্রায় এক হাজার ইন্ডিগোর উড়োজাহাজ ছাড়ার কথা ছিল।

এ সিদ্ধান্তের পর গতকাল ইন্ডিগোর ওয়েবসাইটে ৪৭টি ফ্লাইট বাতিলের কথা জানানো হয়। পিটিআইকে দেওয়া এক বিবৃতিতে গোএয়ার ১৮টি ফ্লাইট বাতিলের কথা জানায়। ইন্ডিগো প্রতিদিন বিভিন্ন শহর থেকে হাজারের বেশি ফ্লাইট চালায় এবং গোএয়ার চালায় ২৩০টি ফ্লাইট। নিষেধাজ্ঞার ফলে আপাতত ১১টি উড়োজাহাজ উড্ডয়ন বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছে তারা।

স্বাভাবিকভাবেই এতে বিপত্তিতে পড়েছেন অসংখ্য যাত্রী। পরিস্থিতি সামলাতে ওইসব যাত্রীকে অন্য উড়োজাহাজে করে গন্তব্যে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছে ইন্ডিগো।

ইন্ডিগোর মুখপাত্র এক বিবৃতিতে বলেছেন, বাড়তি খরচ ছাড়াই যাত্রীদের অন্য বিমানে করে গন্তব্যে নিয়ে যাওয়া হবে।