বিশ্ব বাণিজ্য

ইরানের ঘাটতি বছরে পাঁচ হাজার কোটি ডলার

তেল রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: তেহরানের ওপর তেল রফতানি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায় দেশটির সরকার বছরে পাঁচ হাজার কোটি ডলার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেছেন ইরান-সম্পর্কিত যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ প্রতিনিধি ব্রায়ান হুক। ইরানের ওপর মার্কিন চাপ অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি। আল-আরাবিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এসব কথা বলেন। খবর রয়টার্স।
ব্রায়ান হুক বলেন, ইরানের ওপর তেল রফতানি ছাড়াও পেট্রো কেমিক্যাল, শিল্প ধাতব ও মূল্যবান ধাতব পণ্যের ওপর নতুন করে যে নিষেধাজ্ঞা আরোপের চেষ্টা চলছে, তার ধকল দেশটির সরকারের পক্ষে মোকাবিলা করা সম্ভব হবে না।
এদিকে ইরান বলছে, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ছাড়াও তেল রফতানি কমেনি এবং দেশটির তেলমন্ত্রী বিজান জাঙ্গানে বলেছেন, গোপনে কীভাবে এ তেল রফতানি অব্যাহত রয়েছে তা যুক্তরাষ্ট্রের কারণে প্রকাশ করবে না তার দেশ। ব্রায়ান হুক বলেন, ইরানের ওপর অব্যাহত চাপ প্রয়োগের লক্ষ্যই হচ্ছে যাতে দেশটির সরকারের আচরণে পরিবর্তন আসে। হুক আরও জানান, এ ধরনের চাপ সৃষ্টির পেছনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সন্তুষ্ট এবং তিনি মনে করেন ইরান এ ধরনের চাপ সহ্য করতে না পেরে নতি স্বীকার করবে। অবশ্য ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফসহ একাধিক নেতা বারবার বলে আসছেন কোনো চাপের কাছে নতি স্বীকার করবে না তেহরান।
ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর যে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে তেহরানের, তাতে মার্কিন সরকার খুব খুশি বলে জানান ব্রায়ান হুক। হুক বলেন, শুধু মধ্যপ্রাচ্য নয়, বিশ্বের নিরাপত্তার জন্য ইরান হুমকি এবং তা হয় সরাসরি, নাহয় হিজবুল্লাহর মাধ্যমে। তিনি বলেন, কূনৈতিকভাবে সব পথ পরিহার করছে ইরান এবং বর্তমানে ওয়াশিংটনের সঙ্গে তেহরান সরকারের কোনো ধরনের যোগাযোগ নেই। ইরান তার প্রতিবেশী দেশগুলোকে ধারাবাহিকভাবে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে এবং এক্ষেত্রে তাদের আচরণে অবশ্যই পরিবর্তন আনতে হবে।

সর্বশেষ..