বিশ্ব বাণিজ্য

ইরানের ড্রোন ভূপাতিত করার দাবি যুক্তরাষ্ট্রের

শেয়ার বিজ ডেস্ক: হরমুজ প্রণালিতে ইরানের একটি ড্রোন ভূপাতিত করার দাবি করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজেই এ দাবি করেছেন। তিনি দাবি করেন, ওই ড্রোনটি মার্কিন নৌবাহিনীর একটি জাহাজের এক হাজার মিটার সীমার মধ্যে চলে আসলে ‘আত্মরক্ষামূলক’ পদক্ষেপ হিসেবে ড্রোনটি বিধ্বস্ত করা হয়। খবর: রয়টার্স।
হোয়াইট হাউজে এক অনুষ্ঠানে ট্রাম্প বলেন, মার্কিন নৌবাহিনীর একটি জাহাজ বৃহস্পতিবার হরমুজ প্রণালিতে ইরানের একটি ড্রোন ভূপাতিত করে। ড্রোনটি সঙ্গে সঙ্গে ধ্বংস হয়ে যায়।
ইরান জানিয়েছে, হরমুজ প্রণালিতে ড্রোন ভূপাতিত বা খোয়া যাওয়ার কোনো তথ্য তাদের কাছে নেই।
ট্রাম্পের ভাষ্য, মার্কিন নৌবাহিনীর জাহাজ ইউএসএস বক্সারের এক হাজার মিটারের মধ্যে চলে এসেছিল ইরানের ড্রোনটি। মার্কিন নৌবাহিনীর জাহাজটিকে হুমকির মধ্যে ফেলেছিল ইরানের ড্রোনটি। ট্রাম্প বলেন, ইরানের ড্রোনটিকে বারবার সতর্ক করা হয়েছিল। কিন্তু ড্রোনটি এ সতর্কতা অবজ্ঞা করে। পরে মার্কিন নৌবাহিনীর জাহাজটি প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করে। ড্রোনটি ভূপাতিত করার মাধ্যমে ধ্বংস করা হয়। যুক্তরাষ্ট্র তার লোক, সরঞ্জাম ও স্বার্থ রক্ষার অধিকার রাখে।
ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ জাতিসংঘে সাংবাদিকদের বলেন, ‘ড্রোন খোয়া যাওয়ার কোনো তথ্য আমাদের কাছে নেই।’ গত মাসে ইরান একই এলাকায় একটি মার্কিন সামরিক ড্রোন ভূপাতিত করে। এ নিয়ে দু’দেশের মধ্যে যুদ্ধ বেঁধে যাওয়ার মতো পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়।
গত রোববার তেহরান জানিয়েছিল আরব উপসাগরে তেল পাচারের অভিযোগে একদি বিদেশি ট্যাংকার ও এর ১২ নাবিককে আটক করে। ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম দেশটির রেভ্যুলিউশনারি গার্ডের উদ্ধৃতি দিয়ে বলে, জাহাজটি ১০ লাখ লিটার জ্বালানি চোরাচালান করছিল। পরে পানামার পতাকা সংবলিত রিয়াহ ট্যাঙ্কারের চারপাশে ইরানের স্পিডবোটের টহল দেওয়ার ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করে রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম। ইরান জানায়, লারাক দ্বীপের দক্ষিণাঞ্চল থেকে ট্যাংকারটি আটক করা হয়।
যুক্তরাষ্ট্র জানায়, ইরানের উচিত আটক করা বিদেশি জাহাজটিকে দ্রুত ছেড়ে দেওয়া।

সর্বশেষ..



/* ]]> */