কোম্পানি সংবাদ

ইসলামী ব্যাংকের দীর্ঘ মেয়াদে ঋণমান ‘এএএ’

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের ঋণমান অবস্থান (ক্রেডিট রেটিং) নির্ণয় করেছে আলফা ক্রেডিট রেটিং লিমিটেড (আলফারেটিং)। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
তথ্যমতে, কোম্পানিটি দীর্ঘ মেয়াদে রেটিং পেয়েছে ‘এএএ’ এবং স্বল্প মেয়াদে পেয়েছে ‘এসটি-১’। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ পর্যন্ত নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন এবং ২ জুন ২০১৯ পর্যন্ত অন্যান্য প্রাসঙ্গিক তথ্যের আলোকে এ রেটিং সম্পন্ন হয়েছে।
এদিকে গতকাল কোম্পানিটির শেয়ারদর এক দশমিক ২১ শতাংশ বা ৩০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ২৫ টাকায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ২৪ টাকা ৯০ পয়সা। ওইদিন কোম্পানিটির ২৭ লাখ ৩৩ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দিনজুড়ে এক লাখ ১০ হাজার ৪২১টি শেয়ার মোট ১০২ বার হাতবদল হয়। ওইদিন শেয়ারদর সর্বনিন্ম ২৪ টাকা ৬০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ২৫ টাকায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে কোম্পানির শেয়ারদর ২১ টাকা ৯০ পয়সা থেকে ২৮ টাকা ৪০ পয়সায় ওঠানামা করে।
ব্যাংক খাতের ‘এ’ ক্যাটেগরির কোম্পানিটি ১৯৮৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ সালের সমাপ্ত হিসাববছরে বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। ওই সময় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) করে তিন টাকা ৯২ পয়সা। যা তার আগের বছর একই সময় ছিল তিন টাকা ছয় পয়সা। আর শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) ৩০ জুন ২০১৮ তারিখে দাঁড়িয়েছে ৩৪ টাকা ৪৫ পয়সা। যা আগের বছর একই সময় ছিল ৩১ টাকা ৪৭ পয়সা।
এর আগের তিন বছর অর্থাৎ ২০১৭, ২০১৬ ও ২০১৫ সালের সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয়। এ সময় কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে যথাক্রমে তিন টাকা ছয় পয়সা, দুই টাকা ৭৮ পয়সা ও এক টাকা ৯৬ পয়সা। এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ৩১ টাকা ৪৭ পয়সা, ৩০ টাকা ৩৪ পয়সা ও ২৯ টাকা ৩৭ পয়সা। দুই হাজার কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন এক হাজার ৬১০ কোটি টাকা। কোম্পানিটির মোট ১৬০ কোটি ৯৯ লাখ ৯০ হাজার ৬৬৮টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৪৭ দশমিক ৮৫ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক ১২ দশমিক ১৬ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে ২৪ দশমিক ১২ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে ১৫ দশমিক ৮৭ শতাংশ শেয়ার।

 

সর্বশেষ..