উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে জাতিসংঘের নতুন নিষেধাজ্ঞা

শেয়ার বিজ ডেস্ক: সর্বসম্মতিক্রমে উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে ফের অবরোধ আরোপ করেছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ। গত সোমবার পরিষদের বৈঠকে রাশিয়া ও কোরিয়ার মিত্র দেশ চীন এ অবরোধে সম্মতি জানিয়েছে। ২০০৬ সালের পর দেশটির ওপর এ নিয়ে অষ্টমবারের মতো অবরোধ প্রস্তাব আনলো জাতিসংঘ। খবর বিবিসি, গার্ডিয়ান।

যদিও পিয়ং ইয়ংকে পারমাণবিক ইস্যুতে বিরত রাখা যায়নি, তবে এবারের অবরোধে কয়লা, সিসা, তৈরি পোশাক ও সামুদ্রিক খাবার রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। নিজেদের ষষ্ঠ ও সবচেয়ে শক্তিশালী পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালানোর ফলে ফের নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়েছে উত্তর কোরিয়া।

গত ৩ সেপ্টেম্বর চালানো ওই পরীক্ষার কারণে নিরাপত্তা পরিষদের কাছে কোরীয় নেতা কিমের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করার দাবিও জানিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। গত সোমবার নিরাপত্তা পরিষদের ১৫ সদস্যের সর্বসম্মত সিদ্ধান্তে দেশটির ওপর এসব নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়। কোনো দেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আনতে হলে নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী পাঁচটিসহ মোট ১১টি সদস্য দেশের ভোট প্রয়োজন। কিন্তু এদিন বিপক্ষে কোনো ভোটই পড়েনি। এর আগে যুক্তরাষ্ট্র শঙ্কায় ছিল চীন ও রাশিয়াকে নিয়ে।

গতবছর উত্তর কোরিয়ার প্রধান রফতানি দ্রব্য কয়লা ও অন্যান্য খনিজ রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল জাতিসংঘ। এবার দেশটির দ্বিতীয় প্রধান রফতানি পণ্য বস্ত্রের ওপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলো।

কোরিয়া ট্রেড-ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, এতে দেশটি বার্ষিক ৭৫ কোটি ২০ লাখ ডলারের রফতানি আয় হারাবে। দেশটির রফতানি করা বস্ত্রের ৮০ শতাংশ চীনে যেত।

দেশটির তরল প্রাকৃতিক গ্যাস আমদানির ওপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। বার্ষিক ২০ লাখ ব্যারেল পরিশোধিত পেট্রলিয়াম পণ্য ছাড়াও উত্তর কোরিয়ার অপরিশোধিত জ্বালানি তেল আমদানির ওপরও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। উত্তর কোরিয়ার আমদানি করা অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের বেশিরভাগই চীন সরবরাহ করতো।