কোম্পানি সংবাদ

উভয় বাজারে লেনদেন ও শেয়ারে দরপতনে

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুঁজিবাজারে গতকাল নেতিবাচক প্রবণতায় লেনদেন হয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ডিএসইএক্স ও ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক কমলেও বেড়েছে ডিএস৩০ সূচক। লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কমেছে। সে সঙ্গে কমেছে বেশিরভাগ শেয়ারের দর। গতকাল লেনদেনের শুরুতে সূচক ঊর্ধ্বমুখী হয়। এরপর কিছুটা নেমে গেলেও বেলা ১১টার পর কেনার চাপ বাড়লে সূচক ক্রমশ বাড়তে থাকে। সে সময় সূচক পাঁচ হাজার ২০০ পয়েন্ট ছাড়িয়ে যায়। তবে সাড়ে ১২টার পর থেকে বিক্রির চাপ বাড়তে থাকে; ফলে সূচকেও পতন শুরু হয়। শেষ পর্যন্ত দশমিক শূন্য ৯ পয়েন্ট নেতিবাচক অবস্থানে চলে যায় প্রধান সূচক। ডিএসইতে প্রায় ৩১ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। কমেছে ৫৮ শতাংশের। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক, শেয়ারদর ও লেনদেনে একই চিত্র দেখা গেছে।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স দশমিক শূন্য ৯ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য শূন্য এক শতাংশ কমে পাঁচ হাজার ১৮৭ দশমিক ২০ পয়েন্টে অবস্থান করে।
ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক চার দশমিক ৩৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৬ শতাংশ কমে এক হাজার ১৮৯ দশমিক ৯৭ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক দশমিক ৫৪ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য দুই শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৮৩৬ দশমিক ৯৯ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন তিন লাখ ৮৫ হাজার ২৩৭ কোটি ৯ লাখ ৩২ হাজার ১৬ টাকা হয়। ডিএসইতে লেনদেন হয় ৪৪৯ কোটি চার লাখ ৫১ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৫৬৮ কোটি ৭৬ লাখ ৭৯ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন কমেছে ১১৯ কোটি ৭২ লাখ টাকা। এদিন ১২ কোটি ৯৪ লাখ ৫০ হাজার ১৪৪ শেয়ার এক লাখ ২৭ হাজার ৬৭৪ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৫৩ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১১১টির, কমেছে ২০৬টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৬টির দর।
গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে জেএমআই সিরিঞ্জ। কোম্পানিটির ২৫ কোটি ৬৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ২৮ টাকা। খুলনা পাওয়ারের ২০ কোটি ৫৬ লাখ টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ১০ পয়সা। তৃতীয় অবস্থানে থাকা মুন্নু সিরামিকের ১৮ কোটি ৮৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর কমেছে ১৩ টাকা ৩০ পয়সা। কপারটেকের ১৭ কোটি ১২ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর কমেছে চার টাকা ৩০ পয়সা। এছাড়া বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের ১২ কোটি ৯০ লাখ টাকা, ইউনাইটেড পাওয়ারের ১২ কোটি সাত লাখ টাকা, ফরচুন শুজের ১০ কোটি ৫৪ লাখ টাকা, মুন্নু জুট স্টাফলার্সের ৯ কোটি ৭১ লাখ টাকা, সিটি ব্যাংকের সাড়ে ৯ কোটি টাকা ও বীকন ফার্মার আট কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।
ছয় দশমিক ৪১ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে আইসিবি এএমসিএল সেকেন্ড এনআরবি মিউচুয়াল ফান্ড। জেএমআই সিরিঞ্জের দর ছয় দশমিক ২৯ শতাংশ, রূপালী ব্যাংকের পাঁচ দশমিক ২৯ শতাংশ, মাইডাস ফাইন্যান্সিংয়ের পাঁচ দশমিক ২২ শতাংশ, ঢাকা ইন্স্যুরেন্সের পাঁচ দশমিক শূন্য এক শতাংশ, প্রাইম ব্যাংক ফার্স্ট আইসিবি এএমসিএল মিউচুয়াল ফান্ডের পাঁচ শতাংশ, এসিআই লিমিটেডের চার দশমিক ৮৫ শতাংশ, প্রগতি ইন্স্যুরেন্সের চার দশমিক ৬৩ শতাংশ, বিডি ফাইন্যান্সের চার দশমিক ২৭ শতাংশ ও শাহ্জালাল ব্যাংকের দর তিন দশমিক ৭৫ শতাংশ কমেছে।
অন্যদিকে ২০ দশমিক ১৪ শতাংশ কমে দরপতনের শীর্ষে উঠে আসে এসইএমএলএফবিএসএল গ্রোথ ফান্ড। এসইএমএল লেকচার ইকুইটি ম্যানেজমেন্ট ফান্ডের ১৬ দশমিক ৬৬ শতাংশ, এসইএমএলআইবিবিএল শরিয়াহ্ ফান্ডের ১৫ দশমিক শূন্য পাঁচ শতাংশ, কপারটেকের ৯ দশমিক ৯৩ শতাংশ, ভিএফএস থ্রেডের ৯ দশমিক ৮৮ শতাংশ, আলহাজ্ব টেক্সটাইলের আট দশমিক ৩৫ শতাংশ, জুট স্পিনার্সের ছয় দশমিক ৭৪ শতাংশ, মুন্নু সিরামিকের ছয় দশমিক ৫০ শতাংশ, নর্দান জুটের ছয় দশমিক ২৪ শতাংশ ও এমারাল্ড অয়েলের দর পাঁচ দশমিক ৬৪ শতাংশ কমেছে।
সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ১২ দশমিক ৬৫ পয়েন্ট বা দশমিক ১৩ শতাংশ কমে ৯ হাজার ৬৩৩ দশমিক ৬৭ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২০ দশমিক ৯২ পয়েন্ট বা দশমিক ১৩ শতাংশ কমে ১৫ হাজার ৮৫২ দশমিক শূন্য পাঁচ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৫১ কোম্পানি এবং মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৭২টির, কমেছে ১৫৪টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ২৫টির দর।
সিএসইতে এদিন ২২ কোটি ৮৮ লাখ ৯২ হাজার ৩৩৯ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ২৫ কোটি ৩৮ লাখ ৭০ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে দুই কোটি ৪৯ লাখ ৩৮ হাজার টাকা। সিএসইতে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে ব্র্যাক ব্যাংক। কোম্পানিটির চার কোটি ৯৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এরপর কপারটেকের দুই কোটি ৫১ লাখ টাকার, মুন্নু সিরামিকের এক কোটি চার লাখ টাকার, ডরিন পাওয়ারের ৬৪ লাখ টাকার, খুলনা পাওয়ারের ৫৯ লাখ টাকার, জেএমআই সিরিঞ্জের ৪৫ লাখ টাকার, বীকন ফার্মার ৪৩ লাখ টাকার, বেক্সিমকোর ৪৩ লাখ টাকার, লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের ৪৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

সর্বশেষ..



/* ]]> */