উভয় বাজারে সূচক ঊর্ধ্বমুখী লেনদেন বেড়েছে ১১৩ কোটি টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগের দিনের ধারাবাহিকতায় গতকালও উভয় বাজারে সূচকের ঊর্ধ্বগতি দিয়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। বেড়েছে বেশিরভাগ শেয়ারের দর। উভয় বাজার মিলে লেনদেন বেড়েছে প্রায় ১১৩ কোটি টাকা। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল লেনদেনের শুরুতে শেয়ার কেনার প্রবণতা ছিল। তবে বিক্রির চাপও কম ছিল না। এ কারণে বেশ কয়েকবার সূচকের গতি নিম্নমুখী হলেও শেষ পর্যন্ত সূচকের ঊর্ধ্বগতিতে লেনদেন শেষ হয়। চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) প্রধান দুটি সূচক ইতিবাচক থাকলেও সিএসই৫০ ও সিএসআই সূচক নেতিবাচক অবস্থানে ছিল। বেশিরভাগ শেয়ারের দর ও লেনদেন বেড়েছে।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৬ দশমিক ৮৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৩২ শতাংশ বেড়ে পাঁচ হাজার ২৫৯ দশমিক ১১ পয়েন্টে অবস্থান করে।
ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক দুই দশমিক ৯৪ পয়েন্ট বা দশমিক ২৪ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ২১০ দশমিক ৪৬ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক পাঁচ দশমিক ৩৭ পয়েন্ট বা দশমিক ২৮ শতাংশ বেড়ে এক হাজার ৮৫৯ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়ে তিন লাখ ৮১ হাজার ২২২ কোটি টাকা হয়। ডিএসইতে গতকাল লেনদেন হয় ৫৯৩ কোটি ৭০ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৪৮৪ কোটি ৪৮ লাখ ৭৮ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ১০৯ কোটি ২১ লাখ টাকা। এদিন ১৫ কোটি শূন্য দুই লাখ চার হাজার ৪৫৮টি শেয়ার এক লাখ ৪৩ হাজার ৩৩৭ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৩৬টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৫৮টির, কমেছে ১৩৫টির, অপরিবর্তিত ছিল ৪৩টির দর।
গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ। ২৪ কোটি ৩৯ লাখ টাকায় কোম্পানিটির ৬৩ লাখ ১১ হাজার ১১৪টি শেয়ার লেনদেন হয়। শেয়ারটির দর তিন টাকা ৬০ পয়সা বেড়েছে। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা এসকে ট্রিমসের ১৯ কোটি ২৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এর পরের অবস্থানগুলোয় ছিল ইনটেক, বিবিএস কেব্লস, ভিএফএস থ্রেড, মুন্নু সিরামিকস, সায়হাম কটন, অ্যাডভেন্ট ফার্মা, ইউনাইটেড পাওয়ার ও শাশা ডেনিমস। ৯ দশমিক ৯৯ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে সিভিও পেট্রোকেমিক্যাল। এরপর প্রাইম টেক্সের দর বেড়েছে ৯ দশমিক ৯৭ শতাংশ, এ্যাপেক্স ফুডের ৯ দশমিক ৯৩ শতাংশ, এইচআর টেক্সের ৯ দশমিক ৯২ শতাংশ, শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজের ৯ দশমিক ৯১ শতাংশ, এমএল ডায়িংয়ের ৯ দশমিক ৮২ শতাংশ ও ফারইস্ট নিটিংয়ের দর ৯ দশমিক ৫৮ শতাংশ বেড়েছে। এছাড়া সাফকো স্পিনিংয়ের দর ৯ দশমিক ৩০ শতাংশ, স্টাইল ক্র্যাফটের সাত দশমিক ৫০ শতাংশ ও ফার্মা এইডের সাত দশমিক ৩০ শতাংশ বেড়েছে।
অন্যদিকে পাঁচ দশমিক ৯১ শতাংশ দর কমেছে ইস্টার্ন কেব্লসের। ইউনাইটেড পাওয়ারের দর পাঁচ দশমিক ৫৯ শতাংশ কমেছে। এছাড়া ভিএফএস থ্রেডের পাঁচ দশমিক ৪৭ শতাংশ, এআইবিএল ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের পাঁচ দশমিক ৪০ শতাংশ, মতিন স্পিনিংয়ের পাঁচ দশমিক ৪০ শতাংশ, এস আলম কোল্ড রোলডের চার দশমিক ৭৩ শতাংশ কমেছে। ইন্ট্রাকো রিফুয়েলিংয়ের চার দশমিক ৭২ শতাংশ, ইয়াকিন পলিমারের চার দশমিক ৪৭ শতাংশ, ইস্টল্যান্ড ইন্স্যুরেন্সের চার দশমিক ১০ শতাংশ ও এক্সিম ব্যাংক ফার্স্ট মিউচুয়াল ফান্ডের দর চার শতাংশ কমেছে।
চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ১৭ দশমিক ৬২ পয়েন্ট বা দশমিক ১৮ শতাংশ বেড়ে ৯ হাজার ৭৫৩ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৩৩ দশমিক ৭৯ পয়েন্ট বেড়ে ১৬ হাজার ১০১ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৪১টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১২৬টির, কমেছে ৯২টির, অপরিবর্তিত ছিল ২৩টির দর।
সিএসইতে এদিন ২৫ কোটি ৪৩ লাখ ৬৩ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে ২১ কোটি ৯৩ লাখ ৬৩ হাজার ৪০২ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। এ হিসাবে লেনদেন বেড়েছে তিন কোটি ৫০ লাখ টাকা। সিএসইতে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে খুলনা পাওয়ার। কোম্পানিটির এক কোটি ৯২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এরপর সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালসের এক কোটি ৫৮ লাখ টাকার, শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজের এক কোটি ৪০ লাখ টাকার, সায়হাম কটনের এক কোটি তিন লাখ টাকার, প্রাইম টেক্সের এক কোটি দুই লাখ টাকার, শাশা ডেনিমসের ৯৪ লাখ টাকার, বেক্সিমকোর ৭৬ লাখ টাকার, আমান কটন ফাইব্রাসের ৭২ লাখ টাকার, ইনটেকের ৬৮ লাখ টাকার ও ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যালসের ৫৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।