কোম্পানি সংবাদ

উভয় বাজারে স্বাভাবিক সংশোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক: টানা আট কার্যদিবস ইতিবাচক থাকার পর গতকাল পুঁজিবাজারে সংশোধন হয়েছে। সূচক, শেয়ারদর ও লেনদেনে সংশোধন হয়। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল ৩৩ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। কমেছে ৫৬ শতাংশের দর। সবকটি সূচক ও লেনদেনে পতন হয়। গতকাল বিক্রির চাপ থাকায় সূচকের ঘন ঘন উঠানামা চলতে থাকে। শেষ পর্যন্ত প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ছয় পয়েন্ট নেতিবাচক অবস্থানে চলে যায়। বাকি দুই সূচকও পতনে ছিল। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক শেয়ারদর ও লেনদেনে একই চিত্র লক্ষ্য করা যায়।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ছয় দশমিক ৩৫ পয়েন্ট বা দশমিক ১১ শতাংশ কমে পাঁচ হাজার ৪৬৯ দশমিক ৬৩ পয়েন্টে অবস্থান করে। ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক দুই দশমিক ৮৮ পয়েন্ট বা দশমিক ২৩ শতাংশ কমে এক হাজার ২৪১ দশমিক ৬৫ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস ৩০ সূচক চার দশমিক ৪৬ পয়েন্ট বা দশমিক ২৩ শতাংশ কমে এক হাজার ৯১৭ দশমিক ৩৬ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন চার লাখ এক হাজার ৫৯৯ কোটি টাকা হয়। ডিএসইতে গতকাল লেনদেন হয় ৫২২ কোটি ৬৩ লাখ ৯২ হাজার ৯৮৫ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৫২২ কোটি ৬৩ লাখ ৯৩ হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে ৫৬ কোটি চার লাখ টাকা। এদিন ১৩ কোটি ৬৭ লাখ ৭৮ হাজার ৬৩৩টি শেয়ার এক লাখ ৩০ হাজার ৬৮৬ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৪৯ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১১৬টির, কমেছে ১৯৫টির ও অপরিবর্তিত ছিল ৩৮টির দর।
গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে প্রকৌশল খাতের বিবিএস কেব্লস। কোম্পানিটির ২৬ কোটি ১৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৯০ পয়সা। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ইউনাইটেড পাওয়ারের ১৮ কোটি ৩৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর কমেছে আট টাকা ১০ পয়সা। বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের ১৩ কোটি ৯২ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৩০ পয়সা। এরপরের অবস্থানে থাকা জেএমআই সিরিঞ্জের ১২ কোটি ৪৬ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ২০ টাকা ২০ পয়সা। এছাড়া ইস্টার্ন হাউজিংয়ের ১১ কোটি ৪০ লাখ টাকার, ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ১০ কোটি ৭০ লাখ টাকা, এসকে ট্রিমসের ৯ কোটি ৯৫ লাখ টাকা, সিঙ্গার বিডির আট কোটি ৩৩ লাখ টাকা, ডরিন পাওয়ারের সাত কোটি ৯৬ লাখ, ব্র্যাক ব্যাংকের সাত কোটি ৭৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।
১০ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে পিপলস ইন্স্যুরেন্স। এরপরে বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের দর ৯ দশমিক ৭২ শতাংশ, গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্সের দর আট দশমিক ৮০ শতাংশ, সিটি জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের দর আট দশমিক ২০ শতাংশ, জনতা ইন্স্যুরেন্সের দর সাত দশমিক ৫৫ শতাংশ, কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্সের দর সাত দশমিক ৫২ শতাংশ, ভিএফএস থ্রেডের দর সাত দশমিক ৪৫ শতাংশ, ঢাকা ইন্স্যুরেন্সের দর সাত দশমিক ৩৬ শতাংশ, সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্সের দর সাত দশমিক ৩৬ শতাংশ, পূরবী জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের দর সাত দশমিক ৩২ শতাংশ বেড়েছে।
সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ১৯ দশমিক ৭৩ পয়েন্ট বা দশমিক ১৯ শতাংশ কমে ১০ হাজার ১৪০ দশমিক ৯২ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৩৭ দশমিক ৯১ পয়েন্ট বা দশমিক ২২ শতাংশ কমে ১৬ হাজার ৭৩৫ দশমিক ৫২ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৫৬টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৮১টির, কমেছে ১৩৭টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩৮টির দর।
সিএসইতে এদিন ২২ কোটি ১৪ লাখ ৪৪ হাজার ১৪৪ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ৪৮ কোটি ৯৯ লাখ ২২ হাজার ৫২৬ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসাবে লেনদেন কমেছে ২৬ কোটি ৮৪ লাখ টাকা। সিএসইতে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে ইস্টার্ন হাউজিং। কোম্পানিটির দুই কোটি ৩৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এরপর ওয়ান ব্যাংকের এক কোটি ৫০ লাখ টাকার, ডরিন পাওয়ারের এক কোটি ৪৪ লাখ টাকার, রানার অটোমোবাইলের এক কোটি ৩৫ লাখ টাকা, বিবিএস কেব্লসের ৯২ লাখ টাকার, এনবিএলের ৮৭ লাখ টাকার, বিএসসির ৬৩ লাখ টাকার, ইন্দোবাংলা ফার্মার ৫৮ লাখ টাকার, স্কয়ার ফার্মার ৪৭ লাখ টাকার, গ্রামীণফোনের ৪২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

সর্বশেষ..