কোম্পানি সংবাদ

একদিনের উত্থান শেষে বাজার ফের পতনে

নিজস্ব প্রতিবেদক: সপ্তাহের তৃতীয় দিনে পতন দিয়ে শেষ হয় পুঁজিবাজারের লেনদেন। সবগুলো সূচক পতনের পাশাপাশি লেনদেন ও বেশিরভাগ শেয়ারের দরপতন হয়। সপ্তাহের প্রথমদিনে হঠাৎ বড় উত্থানের ঝলক দেখিয়ে বাজার ফের আগের অবস্থানে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল লেনদেনের শুরুতেই বিক্রির চাপ শুরু হয়। বেলা ১২টার দিকে সামান্য উত্থানের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। শেষ পর্যন্ত প্রধান সূচকের ৩৯ পয়েন্ট পতন হয়। অন্যদিকে চিটাগং স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচক ও বেশিরভাগ শেয়ারের দরপতন হলেও লেনদেন বেড়েছে।
বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা গেছে, গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩৯ দশমিক ২৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৭৪ শতাংশ কমে পাঁচ হাজার ২৩৬ দশমিক ৮৪ পয়েন্টে অবস্থান করে।
ডিএসইএস বা শরিয়াহ্ সূচক তিন দশমিক ৯৩ পয়েন্ট বা দশমিক ৩২ শতাংশ কমে এক হাজার ১৯৫ দশমিক ২২ পয়েন্টে অবস্থান করে। আর ডিএস৩০ সূচক ১০ দশমিক ৫৮ পয়েন্ট বা দশমিক ৫৭ শতাংশ কমে এক হাজার ৮২২ দশমিক ৭৮ পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল ডিএসইর বাজার মূলধন তিন লাখ ৮৫ হাজার ৯১০ কোটি টাকা হয়। ডিএসইতে গতকাল লেনদেন হয় ৩৫১ কোটি ৬৯ লাখ ৭৩ হাজার ৮৮৫ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয়েছিল ৩৮৭ কোটি ৭৩ লাখ দুই হাজার টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন কমেছে ৩৬ কোটি তিন লাখ টাকা। এদিন ১০ কোটি ৮৪ লাখ ৪৪ হাজার ৯৩০টি শেয়ার এক লাখ এক হাজার ৬২২ বার হাতবদল হয়। লেনদেন হওয়া ৩৪৭ কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ৮৭টির, কমেছে ২১৭টির ও অপরিবর্তিত ছিল ৪৩টির দর।
গতকাল টাকার অঙ্কে লেনদেনের শীর্ষে উঠে আসে নতুন তালিকাভুক্ত রানার অটোমোবাইলস। প্রথম দিনে কোম্পানিটির ৩৫ কোটি ৪৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ২৫ টাকা ৪০ পয়সা। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা ফরচুন শুজের ১৪ কোটি ৩৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ৮০ পয়সা। এসকে ট্রিমসের ১২ কোটি ৮১ লাখ টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে এক টাকা ৯০ পয়সা। এর পরের অবস্থানে থাকা বিএসসিসিএলের ৯ কোটি ২৫ লাখ টাকা, ব্র্যাক ব্যাংকের সাত কোটি ৬৩ লাখ টাকা, ডরিন পাওয়ারের সাত কোটি ৬১ লাখ টাকা, ইস্টার্ন কেব্লসের সাত কোটি ২১ লাখ টাকা, ন্যাশনাল টিউবসের ছয় কোটি ৬৩ লাখ টাকা, এ্যাসকোয়ার নিটের ছয় কোটি ১৫ লাখ টাকা ও বিএসসির পাঁচ কোটি ৭৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।
৯ দশমিক ৮৫ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে গ্লোবাল ইন্স্যুরেন্স। এরপর ইস্টার্ন কেব্লসের দর আট দশমিক ৭৪ শতাংশ, শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজের পাঁচ দশমিক ৫৯ শতাংশ, সেন্ট্রাল ইন্স্যুরেন্সের চার দশমিক ৭৬ শতাংশ, বিএসসিসিএলের তিন দশমিক ৯৮ শতাংশ, প্রিমিয়ার ইন্স্যুরেন্সের তিন দশমিক ৬৩ শতাংশ, এসকে ট্রিমসের তিন দশমিক ৫৫ শতাংশ, ওরিয়ন ইনফিউশনসের তিন দশমিক ৫০ শতাংশ, কন্টিনেন্টাল ইন্স্যুরেন্সের তিন দশমিক ৪৬ শতাংশ, ইসলামিক ব্যাংকের দর তিন দশমিক ২৭ শতাংশ বেড়েছে।
অন্যদিকে আট দশমিক ৮৫ শতাংশ কমে দরপতনের শীর্ষে উঠে আসে উত্তরা ব্যাংক। এক্সিম ব্যাংকের দর আট দশমিক আট শতাংশ, ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের সাত দশমিক ৪৭ শতাংশ, ফিনিক্স ইন্স্যুরেন্সের সাত দশমিক ৪৪ শতাংশ, ভ্যানগার্ড এএমএল বিডি ফাইন্যান্স মিউচুয়াল ফান্ড ওয়ানের সাত দশমিক ১৪ শতাংশ কমেছে।
সিএসইতে গতকাল সিএসসিএক্স মূল্যসূচক ৫৬ দশমিক ৮৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৫৮ শতাংশ কমে ৯ হাজার ৬৯১ দশমিক ৫৫ পয়েন্টে এবং সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৯৫ পয়েন্ট বা দশমিক ৫৯ শতাংশ কমে ১৬ হাজার সাত পয়েন্টে অবস্থান করে। গতকাল সর্বমোট ২৩৮ কোম্পানি এবং মিউচুয়াল ফান্ডের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়। এর মধ্যে দর বেড়েছে ৬৬টির, কমেছে ১৪১টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৩১টির দর।
সিএসইতে এদিন ৩৬ কোটি চার লাখ ৪২ হাজার ৭৮১ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় ১০ কোটি ৬৫ লাখ ৭৬ হাজার ১০৯ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ২৫ কোটি ৩৮ লাখ টাকা। সিএসইতে গতকাল লেনদেনের শীর্ষে অবস্থান করে এক্সিম ব্যাংক। কোম্পানিটির ১২ কোটি ৬৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এরপর রানার অটোমোবাইলসের সাত কোটি ৯৬ লাখ, ডরিন পাওয়ারের দুই কোটি ৪৫ লাখ, ইউসিবির এক কোটি ৭১ লাখ, ব্যাংক এশিয়ার এক কোটি দুই লাখ, বেক্সিমকোর ৮০ লাখ, বিএসসির ৪৪ লাখ, এ্যাসকোয়ার নিটের ৪০ লাখ, এসএস স্টিলের ৩৮ লাখ এবং ডেসকোর ৩৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়।

সর্বশেষ..