এশিয়া প্যাসিফিক ডব্লিউটিটিএক্স সামিট ডিজিটাল হোম নিশ্চিতে কাজ করছে হুয়াওয়ে

এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের দেশগুলোয় ডিজিটাল হোম নিশ্চিত করতে তারবিহীন ব্রডব্যান্ড প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে। এই প্রযুক্তি একটি টেকসই শিল্প পরিবেশ তৈরিতে সহায়তা করবে। সম্প্রতি শ্রীলঙ্কায় জিটিআই, ইনফর্মা ও হুয়াওয়ের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় এই এশিয়া-প্যাসিফিক ডব্লিউটিটিএক্স (ফিক্সড ওয়ারলেস অ্যাকসেস) সামিট। সামিটের মূল প্রতিপাদ্য ছিল ‘ব্রিং অ্যাফরডেবল অ্যান্ড ফাস্ট ফিক্সড ওয়ারলেস ব্রডব্যান্ড টু এভরি হাউজহোল্ড’। অনুষ্ঠানে হুয়াওয়ে, এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলের আইসিটি রেগুলেটর, শীর্ষস্থানীয় নেটওয়ার্ক অপারেটরসহ বিভিন্ন শিল্প সংগঠন যৌথভাবে ‘ব্রিজ দ্য ডিজিটাল ড্রাইভ, অ্যাকসেলারেট ব্রডব্যান্ড টু হাউজহোল্ড’ শীর্ষক একটি ঘোষণা দেয়।
সম্মেলনে ডব্লিউটিটিএক্স ব্যবসাকে পরবর্তী স্তরে নিয়ে যেতে গ্রামীণফোনের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করে হুয়াওয়ে। গ্রামীণফোনের সিইও মাইকেল প্যাট্রিক ফোলি বলেন, বাংলাদেশে হোম ব্রডব্যান্ডের জন্য একটি পরিপূরক প্রযুক্তি হবে ডব্লিউটিটিএক্স। বাংলাদেশের নেতৃস্থানীয় অপারেটর হিসেবে মোবাইল ফোন ব্রডব্যান্ডের মানোন্নয়নে আমরা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। গ্রাহকদের মানসম্পন্ন সেবা নিশ্চিত করতে ক্রমাগত বিনিয়োগ করে যাচ্ছি। তাছাড়া এই প্রযুক্তিসেবা খুব সহজে দেওয়া যায় বলে তা আমাদের গ্রাহকদের জন্য বর্তমান ও ভবিষ্যতের ডিজিটাল জীবনযাত্রার সেবাগুলো ব্যবহারের সুযোগ সৃষ্টিতে সহায়ক হবে।
হুয়াওয়ের ওয়ারলেস প্রোডাক্ট লাইনের চিফ স্ট্র্যাটেজি অফিসার টাইড ঝু বলেন, একটি উন্নততর, সংযুক্ত ও বুদ্ধিবৃত্তিক এশিয়া-প্যাসিফিক গড়তে হুয়াওয়ে সব সময়ে গ্রাহকবান্ধব থাকবে। গ্রাহকদের উন্নত অভিজ্ঞতা দিতে আমরা নিত্যনতুন ও স্বল্প খরচের সেরা উদ্ভাবনগুলো অব্যাহত রাখব।
বৈচিত্র্যপূর্ণ মোবাইল ফোন অ্যাপ ও ফিক্সড ওয়ারলেস অ্যাকসেস প্রযুক্তি বাড়িতে বড় পরিসর ও কম দামে ব্রডব্যান্ড সার্ভিস সরবরাহ করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হিসেবে কাজ করবে। ডব্লিউটিটিএক্স হলো একটি ব্রডব্যান্ড প্রযুক্তি, যাতে ফোরজি বা ৪.৫ জি নেটওয়ার্ক ব্যবহার করা হয়, যা সংযোগহীন বাড়িগুলোকে কম খরচে তারবিহীন ব্রডব্যান্ডের আওতায় আনতে সহায়তা করে। স্থাপনা ও পরিচালনায় কম খরচ ডব্লিউটিটিএক্স প্রযুক্তি ব্যবহারের বড় সুবিধা। ইতোমধ্যে নেটওয়ার্কের গতি ও ব্যবহারকারী দেশের সংখ্যার দিক দিয়ে ডব্লিউটিটিএক্স প্রযুক্তির অগ্রগতি হয়েছে। ফোরজি নেটওয়ার্ক স্পিড টেস্টে ফিক্সড ব্রডব্যান্ডের পরিবর্তে তারবিহীন ব্রডব্যান্ডের ক্ষেত্রে সাফল্য এসেছে। ফলে এই প্রযুক্তি ব্যবহারের চাহিদাও প্রতিদিন বাড়ছে।
২০১৭ সালের তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী ডব্লিউটিটিএক্স প্রযুক্তি ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৫০ মিলিয়নে দাঁড়িয়েছে। যেসব বাড়িতে ব্রডব্যান্ড সুবিধা নেই, সেখানে ৭৫ শতাংশ কম খরচ ও ৯০ শতাংশ দ্রুত গতিতে ডব্লিউটিটিএক্স ওয়ারলেস ব্রডব্যান্ড প্রযুক্তি সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে। ফলে অপারেটররা তিন বছরের কম সময়ের মধ্যে তাদের বিনিয়োগ তুলে নিতে পারছে।

হুয়াওয়ে
হুয়াওয়ে বিশ্বের অন্যতম তথ্যপ্রযুক্তি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান। সমৃদ্ধ জীবন নিশ্চিতকরণ ও উদ্ভাবনী দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে একটি উন্নত ও সংযুক্ত পৃথিবী গড়ে তোলাই প্রতিষ্ঠানটির উদ্দেশ্য। হুয়াওয়ে একটি পরিপূর্ণ আইসিটি সমাধান পোর্টফোলিও প্রতিষ্ঠা করেছে। বিশ্বব্যাপী ৫০০টিরও বেশি মোবাইল ফোন অপারেটরের প্রায় তিন বিলিয়ন গ্রাহককে ওয়ারলেস নেটওয়ার্ক পণ্য, সমাধান ও সেবা দেয় তারা। ২০১৮ সালের জুন পর্যন্ত বিশ্বের ১০০টি রাজধানীর ৩৬০টি এলটিই বাণিজ্যিক নেটওয়ার্ক নির্মাণের মাধ্যমে হুয়াওয়ে টেলিকম শিল্পে শীর্ষস্থান অর্জন করেছে। অপারেটররা যাতে পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণের খরচ কমিয়েও সর্বোচ্চ মানের নেটওয়ার্ক সেবা দিতে পারে, সেজন্য হুয়াওয়ে উদ্ভাবনী প্রযুক্তি তৈরি ও উন্নয়নে নিরন্তর প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বের ১৭০টির বেশি দেশ ও অঞ্চলে সেবা দিচ্ছে, যা বিশ্বের এক-তৃতীয়াংশ জনসংখ্যার সমান। এক লাখ ৮০ হাজার কর্মী নিয়ে ভবিষ্যতের তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক সমাজ তৈরির লক্ষ্যে হুয়াওয়ে কাজ করে চলেছে।