এসএমই ফিলিপাইন পরিপ্রেক্ষিত

২০১৪ সালের ফিলিপাইন স্ট্যাটিসটিকস অথরিটি বা পিএসএ’র তথ্য দিয়ে শুরু করা যেতে পারে এ লেখা। পিএসএ’র দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ফিলিপাইনে ৯ লাখ ৪৬ হাজার ৯৮৮টি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর ৯৯ দশমিক ছয় শতাংশ (৯ লাখ ৪২ হাজার ৯২৫টি) ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প। বাকি শূন্য দশমিক চার শতাংশ (চার হাজার ৬৩টি) বৃহৎ শিল্প। মোট ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের ৯০ দশমিক তিন শতাংশ বা আট লাখ ৫১ হাজার ৭৫৬টি ক্ষুদ্রতম। ৯ দশমিক তিন শতাংশ বা ৮৭ হাজার ২৮৩টি প্রতিষ্ঠান ক্ষুদ্র। আর শূন্য দশমিক চার শতাংশ প্রতিষ্ঠান মাঝারি শিল্পের।

জেনে নেওয়া ভালো, ৮১টি প্রদেশ ও ১৭টি রিজিয়ন নিয়ে ফিলিপাইন। শহরাঞ্চলে শিক্ষিতের হার শতভাগ ও পুরো ফিলিপাইনে ৯৪ ভাগ। এসএমই প্রতিষ্ঠানগুলো খুচরা, পাইকারি ও যানবাহন মেরামত, আবাসন, সেবা, তথ্যযোগাযোগ, আর্থিক, বিমা, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, উৎপাদন ও প্রশাসনিক খাতের সঙ্গে জড়িত। এসব ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের বেশিরভাগের অবস্থান রাজধানী ও তার আশপাশের অঞ্চলে। এর বাইরে রিজিয়ন-৪ এ (কালাবারজন), রিজিয়ন-৩ (সেন্ট্রাল লুজন), রিজিয়ন-৭ (সেন্ট্রাল ভিসায়াস) ও রিজিয়ন-৬ (ওয়েস্টার্ন ভিসায়াস)-এ রয়েছে অন্য প্রতিষ্ঠানগুলো।

এসএমই খাত ৪৮ লাখ ৯১ হাজার ৮৩৬টি কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে। বৃহৎ শিল্পে এ সংখ্যা ২৮ লাখ ৯৭ হাজার ৪২১টি। অর্থাৎ মোট কর্মসংস্থানের ৬২ দশমিক আট শতাংশের জোগানদাতা এসএমই। রফতানি আয়ের ২৫ ভাগ আসে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প থেকে।

এসএমই খাতে বিমা সুবিধা বাড়িয়েছে দেশটির সরকার। এসব খাতে বিমা গ্রাহকের প্রিমিয়াম পরিশোধে সরকার ভর্তুকি প্রদান করে থাকে। তবে দেশটির পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়েছে মুষ্টিমেয় কিছু প্রতিষ্ঠান। ফিলিপাইন স্টক একচেঞ্জ ও রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক অব ফিলিপাইন (ডিবিপি) ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। এছাড়া নারী উদ্যোক্তাদের সহায়তা করতে নানা সময় বিশেষ বিশেষ প্রণোদনা দিয়ে থাকে দেশটির সরকার।