সুশিক্ষা

ওয়ার্ল্ড লিংকআপ গড়ছে দক্ষ মানবশক্তি

অন্ন, বস্ত্র, আশ্রয়, শিক্ষা ও চিকিৎসা যে কোনো নাগরিকের মৌলিক অধিকার। এর কোনো একটিতে ঘাটতি থাকলে সেই সমস্যার সমাধানই পারে একটি রাষ্ট্রকে শক্তিশালী ও সমৃদ্ধিশালী করে গড়ে তুলতে সেটা হোক অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক অথবা সাংস্কৃতিকভাবে। এজন্য প্রয়োজন দক্ষ মানবশক্তি। আর দক্ষ মানবশক্তি তৈরিতে এগিয়ে আসতে হয় শিক্ষিত তরুণ সমাজকে।
তরুণদের নিয়ে গঠিত এমনই একটি সামাজিক সংগঠন ‘ওয়ার্ল্ড লিংকআপ’। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল উদ্যমী তরুণ গড়ে তুলেছেন সংগঠনটি। জাতিসংঘ বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠা ও বাসযোগ্য পৃথিবী গঠনের লক্ষ্যে ২০১৫-২০৩০ সাল পর্যন্ত ১৭টি টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। এ ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে গোটা বিশ্বের তরুণদের মতো এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে বিভিন্নভাবে কাজ করছেন এ সংগঠনের তরুণরা। এজন্য ২০১৬ সালের ৮ আগস্ট তারা ‘ওয়ার্ল্ড লিংকআপ’ প্রতিষ্ঠা করেন। সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মাসুম বিল্লাহ বলেন, অদম্য ইচ্ছাশক্তি থেকেই আমরা সংগঠনটি গড়ে তুলেছি। জাতিসংঘ টেকসই উন্নয়নের যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে দিয়েছে, আমরা যদি সে অনুযায়ী কাজ করতে পারি তাহলে বাংলাদেশে একটি দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে পারব বলে বিশ্বাস করি।
সংগঠনটি বিভিন্ন কাজে পারদর্শিতা দেখিয়ে জাতিসংঘের নজর কাড়ে। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে জাতিসংঘের ওয়ার্ল্ড আরবান ফোরামের সাত দিনব্যাপী নবম সম্মেলনে যোগ দিতে বিশ্বের ২৫০টি সংগঠনের মধ্যে নির্বাচিত হয়। এজন্য মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত সম্মেলনে এ সংগঠনের সদস্যরা অংশ নেন। সেখানে অংশগ্রহণের পর তরুণদের মাঝে এসডিজি সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি ও ওই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য ১৭টি টিম গঠন করে কাজ করার নির্দেশ দেয় জাতিসংঘ। নির্দেশনা অনুযায়ী ওয়ার্ল্ড লিংকআপ সক্রিয়ভাবে কাজ করছে। দারিদ্র্য বিলোপ লক্ষ্য অর্জনে শারীরিকভাবে অক্ষম ১০ ব্যক্তিকে চিহ্নিত করে তাদের প্রোফাইল বানিয়ে তাদের নিজস্ব অর্থায়নে সহযোগিতা করছে। দিনে তিন বেলা ঠিকমতো খেতে না পারা মানুষদের নিয়ে মাসে একটি করে খাবার বণ্টনমূলক প্রোগ্রাম আয়োজন করছে। এছাড়া বিভিন্ন জায়গা থেকে সংগ্রহ করা খাবার (চাল, ডাল, ময়দা, শুকনা খাবার প্রভৃতি) প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর মাঝে সরবরাহ করছে।
সংগঠনটি দরিদ্র অসুস্থ মানুষের জন্য প্রয়োজনীয় ওষুধ সরবরাহ করে থাকে। সুস্থ জনশক্তি রক্ষায় রিপোর্ট তৈরি করে প্রতিমাসে স্বাস্থ্য সচেতনতামূলক প্রোগ্রামের আয়োজন করে। টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে প্রতিবছর ৮ ও ৯ সেপ্টেম্বর ‘অ্যন্টিবায়োটিকের অপব্যবহার নিয়ে সচেতনতা ও বিনা মূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয়’ শীর্ষক ক্যাম্পেইনের আয়োজন করে।
বেকারত্ব দূরীকরণে শিক্ষার অবকাঠামোগত উন্নয়নের লক্ষ্যে বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে সংগঠনটি। বিশ্বের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করে স্কলারশিপের ব্যবস্থা করছে যেন শিক্ষার্থীরা মানসম্মত শিক্ষাব্যবস্থার আওতায় আসতে পারে।
নারীসমাজ ও অবহেলিতদের সামাজিক ও অর্থনৈতিক অধিকার-সম্পর্কিত সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন করে ওয়ার্ল্ড লিংকআপ। যৌন হয়রানি ও বাল্যবিয়ে রোধে সমাজের সর্বস্তরের মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টির উদ্যোগ নিয়েছে।
পানিদূষণ সমস্যা সমাধানে কাজ করছে সংগঠনটি। স্বাস্থ্যসম্মত শৌচাগার ব্যবস্থা নিশ্চিত করার পাশাপাশি বস্তিতে স্যানিটেশন সচেতনতা বাড়াতে কাজ করছে। বিভিন্ন ধরনের স্যানিটেশন সামগ্রী বিতরণ করছে।
দৈনন্দিন জীবনে মানুষের প্রয়োজনীয় পণ্যের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিতকরণে পরিত্যক্ত জিনিসকে পুনর্ব্যবহারে উপযোগী করে তুলতে কাজ করেন তারা।
বেকারত্বের অভিশাপ থেকে মুক্তি ও দেশের তরুণ সমাজকে দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তর করার স্বপ্ন দেখে সংগঠনটি। এ লক্ষ্যে গত বছর বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজী নজরুল ইসলাম মিলনায়তনে তরুণদের উৎসাহিত করতে ‘তরুণরাই আগামীর বাংলাদেশ’ শীর্ষক একটি সেমিনারের আয়োজন করে। এসডিজি বাস্তবায়নে গবেষণার ভূমিকা অনস্বীকার্য। ওয়ার্ল্ড লিংকআপ টিমের সদস্যরা তাই গবেষণার ওপর জোর দিচ্ছে। চলতি বছরের ডিসেম্বরে চীনের ওয়ার্ল্ড জিওগ্রাফি কনফারেন্সে রিসার্চ টিমের মেম্বাররা তাদের গবেষণালব্ধ ফল উপস্থাপন করবে।

 

সর্বশেষ..