কুর্দি হামলায় তুরস্কের ৭ সেনা নিহত

শেয়ার বিজ ডেস্ক : শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) কুর্দি বাহিনীর পাল্টা হামলায় তুরস্কের অন্তত সাত সেনা নিহত হয়েছে। বিবিসি।

অভিযান শুরুর পর এ দিনটিকেই তুরস্কের জন্য সবচেয়ে রক্তক্ষয়ী দিন হিসেবে অভিহিত করা হচ্ছে।

আফরিনের উত্তর-পূর্ব এলাকা শেখ হারুজে কুর্দি ওয়াইপিজি গেরিলারা তুরস্কের ট্যাংক বহরে হামলা চালালে সেখানে পাঁচ তুর্কি সেনা নিহত হয় বলে সেনাবাহিনীর বিবৃতিতে বলা হয়েছে। আফরিন ও সীমান্তের তুরস্কের অংশে চালানো অপর দুটি হামলায় আরও দুই তুর্কি সৈন্য নিহত হয়।

এ নিয়ে তুরস্কের শুরু করা ‘অপারেশন অলিভ ব্রাঞ্চে’ সব মিলিয়ে ১৪ তুর্কি সেনা মারা গেল। আফরিন থেকে ‍কুর্দি ওয়াইপিজি গেরিলাদের নির্মূল করতে গত ২০জানুয়ারি থেকে আঙ্কারা অভিযানটি শুরু করে।

এক দিনে সাত সেনা নিহতের পর এর প্রতিশোধ নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম। এর জন্য গেরিলাদের ‘দ্বিগুণেরও বেশি মূল্য’ দিতে হবে বলেও হুংকার তার।

কুর্দি হামলার প্রতিক্রিয়ায় গতকালই তুরস্কের জঙ্গিবিমানগুলো আফরিনের উত্তর-পূর্ব অংশের কুর্দি স্থাপনাগুলোতে আঘাত হানে বলে বিবিসির প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত ওয়াইপিজিকে তুরস্ক সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবেই দেখে থাকে। সংগঠনটি তিন দশক ধরে দক্ষিণ-পূর্ব তুরস্কে স্বায়ত্তশাসিত কুর্দি অঞ্চলের দাবিতে লড়াই করা নিষিদ্ধঘোষিত কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) বর্ধিত অংশ বলে দাবি আঙ্কারার।

ইলদিরিম বলেছেন, তুরস্কের সীমান্তে ‘সন্ত্রাসী বেল্ট’ নির্মূলে অপারেশন ‘অলিভ ব্রাঞ্চ’ পরিচালিত হচ্ছে। নিপীড়নে গুমরে মরা আরব, কুর্দি ও তুর্কি ভাইদের মুক্ত করার লক্ষ্যেই আমাদের এ অভিযান। তুরস্কে ক্ষমতাসীন জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির (একেপি) সদস্যদের উদ্দেশ্যে বলেন তিনি।

ওয়াইপিজির বিরুদ্ধে এই অভিযানে তুরস্কের মিত্র হিসেবে পরিচিত সিরিয়ার বিদ্রোহী বাহিনী ফ্রি সিরিয়ান আর্মির যোদ্ধারাও অংশ নিচ্ছে।

শনিবার তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়িপ এরদোয়ান অভিযানে বিরাট অগ্রগতির দাবি করে বলেন, তুরস্কের নেতৃত্বাধীন বাহিনী এখন আফরিন শহরের পথে অগ্রসর হবে।

দুই সপ্তাহ ধরে চলমান এ অভিযানে ৯০০ কুর্দি যোদ্ধাকে হত্যার দাবি করেছে তুরস্ক; তবে আঙ্কারার এ দাবির সত্যতা নিশ্চিত করা যায়নি বলে জানিয়েছে বিবিসি।

অভিযানে ওই এলাকার হাজার হাজার অধিবাসী বাস্তুচ্যুত হয়েছে। তুরস্কের হামলায় বেসামরিক নাগরিকরাও মারা পড়ছে বলে ভাষ্য কুর্দি কর্মকর্তাদের।

শনিবার সিরিয়ার এক কুর্দি স্বাস্থ্য কর্মকর্তা দাবি করেন, তুরস্কের সামরিক অভিযানে ১৫০ বেসামরিক নিহত ও ৩০০ জন আহত হয়েছেন।