সম্পাদকীয়

কৃষক থেকে ধান কেনার পরামর্শ বিবেচনায় নিন

গণমাধ্যমের বিভিন্ন প্রতিবেদনের বরাতে জানা যাচ্ছে, চলতি বছর ইরি-বোরো ধানের ভালো ফলন হয়েছে। তবে সারা দেশে মোট কী পরিমাণ ধানের ফলন হয়েছে, সে বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত তথ্য পাওয়া যায়নি। কিন্তু কৃষিশ্রমিক না পাওয়ায় কৃষককে ধান ঘরে তুলতে অনেক বেগ পেতে হয়েছে। আর সুযোগ বুঝে ধান-চালের ব্যবসায়ীরাও ধানের দাম কমিয়ে দিলেন। কিন্তু চালের ভোক্তাদের তাতে কোনো লাভ হলো না। মূলত ধানের দাম নির্ধারণের বিষয়টি পুরোপুরিভাবে বাজার ব্যবস্থার ওপর ছেড়ে দেওয়ায় এমনটি হয়েছে বলে মনে করি। এক্ষেত্রে সরকারের উচিত ছিল রেফারির ভূমিকা নেওয়া। কিন্তু সরকার সে ভূমিকা এখনও নেয়নি। তবে সরকারের ভূমিকা রাখার সুযোগ এখনও রয়েছে। ধান-চালের ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত অসাধু ব্যবসায়ী, ফড়িয়া, আড়তদার, মুৎসুদ্দি শ্রেণির অতিমুনাফার রাশ টানতে সরকারের সংগ্রহ কার্যক্রম জোরদার করা উচিত। এক্ষেত্রে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনার উদ্যোগ নেওয়া উচিত বলে মনে করি। তাতে কৃষক কিছুটা হলেও উপকৃত হবেন। এক্ষেত্রে গত মঙ্গলবার এক জাতীয় সংলাপে যে ৫০ লাখ টন ধান কেনার যে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে, তা বিবেচনায় নেওয়া উচিত বলে মনে করি।
দৈনিক শেয়ার বিজে গতকাল ‘জাতীয় সংলাপ: কৃষক বাঁচাতে ৫০ লাখ টন ধান কেনার পরামর্শ’ শীর্ষক একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। এতে উল্লেখ করা হয়, ‘ধান-চাল সংগ্রহের লক্ষ্য কম থাকায় বিশেষ করে প্রান্তিক কৃষকরা মহাসমস্যায় পড়েছেন। এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্য সরকার ২০ শতাংশ বা ৫০ লাখ টন ধান-চাল সংগ্রহ করলেই কৃষকদের বাঁচানো সম্ভব।’ আমরাও মনে করি, দেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ করার ক্ষেত্রে প্রধান ভূমিকা পালনকারী কৃষকদের বাঁচাতে এ ধরনের উদ্যোগ নেওয়া উচিত।
আমাদের মোট জিডিপিতে একসময় কৃষিই ছিল প্রধান। কিন্তু ধীরে ধীরে সেবা ও শিল্প খাত এগিয়ে যাওয়ায় আর্থিক দিক দিয়ে কৃষির ওপর নির্ভরশীলতা কমেছে। কিন্তু কৃষির ওপর নির্ভরশীল জনগোষ্ঠীর সংখ্যা এখনও সবচেয়ে বেশি। দেশের মোট কর্মসংস্থানের ৪৩ শতাংশ এখনও কৃষিতে। আবার জাতীয় খানা আয়-ব্যয় জরিপেও দেখা গেছে, এখনও দেশি কৃষিভিত্তক খানার সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। কাজেই কৃষি উৎপাদনের ওপর নির্ভরশীল মানুষের সংখ্যা এখনও সবচেয়ে বেশি। যাদের একটি বড় অংশই জমি বর্গা নিয়ে চাষাবাদ করে। কিন্তু ধান আবাদ করে তাদের যে লোকসান হচ্ছে, এতে বর্গাচাষিদের দুর্দশার শেষ থাকবে না। তাই দেশের সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষের জীবন রক্ষায় জাতীয় সংলাপের পরামর্শ বিবেচনায় নেওয়া উচিত বলে মনে করি।

 

 

সর্বশেষ..