বিশ্ব সংবাদ

ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনার প্রথম চালান যাচ্ছে তুরস্কে

শেয়ার বিজ ডেস্ক: রাশিয়ার কাছ থেকে কেনা ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা ‘এস-৪০০’-এর প্রথম চালান আগামী সপ্তাহে তুরস্কে পৌঁছাবে। আাগামী কাল রাশিয়ার একটি সামরিক বিমানঘাঁটি থেকে এটির প্রথম চালান তুরস্কের উদ্দেশে রওনা দেবে। খবর রয়টার্স।
ওই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা মোতায়েন দেখভাল করতে রুশ কর্মকর্তাদের একটি দলও আগামী সোমবার তুরস্কে পৌঁছাবে। প্রতিবেদনে এসব তথ্যের কোনো সূত্র দেওয়া হয়নি। মস্কো কিংবা আঙ্কারাও এ বিষয়ে মুখ খোলেনি।
এস-৪০০ নিয়ে তুরস্কের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের বিরোধ এখন তুঙ্গে। রুশ এ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনার চালান তুরস্কে পৌঁছানোর সঙ্গে সঙ্গে মিত্র ন্যাটো দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের হুমকিও দিয়ে রেখেছে ওয়াশিংটন। যুক্তরাষ্ট্র বলছে, তুরস্কের কেনা রুশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা ন্যাটোর প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়। এ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনা নিলে আঙ্কারার কাছে এফ-৩৫ জঙ্গিবিমান বিক্রি করা হবে না বলেও সতর্ক করেছিল তারা। ওয়াশিংটন এরই মধ্যে তুরস্কে লকহিড মার্টিনের বানানো এফ-৩৫ সরবরাহ বন্ধে প্রক্রিয়াও শুরু করেছে।
যুক্তরাষ্ট্রের চাপ সত্ত্বেও কয়েক বছর ধরেই তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোয়ান রুশ এস-৪০০ কেনার সিদ্ধান্তে অটল। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে রাশিয়ার এ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাপনার চাহিদা বিশ্বজুড়েই প্রবল। গত বছর ভøাদিমির পুতিনের ভারত সফরের সময় নয়াদিল্লিও এ ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাপনা কেনায় আগ্রহ দেখিয়েছিল।
সম্প্রতি অত্যাধুনিক আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ‘এস-৪০০’ ইরানের কাছে হস্তান্তর করতে প্রস্তুত রয়েছে বলে জানিয়েছে রাশিয়া। তবে ইরানের পক্ষ থেকে এখনও বিষয়টি নিয়ে রাশিয়ার কাছে আনুষ্ঠানিক আবেদন করা হয়নি বলেও জানিয়েছে দেশটি।
রাশিয়ার সমরাস্ত্র নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান ‘রাশান ফেডারেল সার্ভিস অব মিলিটারি-টেকনিক্যাল কো-অপারেশন’-এর গণমাধ্যম বিভাগের এক কর্মকর্তা এ তথ্য জানিয়েছেন।

সর্বশেষ..