খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ বাড়ল

নিজস্ব প্রতিবেদক: জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ সাত দিন বাড়িয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে আগামী রোববার পর্যন্ত আপিল শুনানি মুলতবি করা হয়েছে।
বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চে গতকাল বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেওয়া হয়। প্রথম দিন খালেদা জিয়ার আইনজীবী আবদুর রেজাক খান এবং এজে মোহাম্মদ আলী মামলার পেপারবুক থেকে এফআইআর ও অভিযোগপত্র পড়ে শোনান। খালেদার আইনজীবীদের মধ্যে মওদুদ আহমদ, জয়নুল আবেদীন ও মাহবুব উদ্দিন খোকন শুনানিতে উপস্থিত ছিলেন। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন সংশ্লিষ্ট আদালতের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ফরহাদ আহমেদ ও দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।
আগামী সপ্তাহে শুনানির দিন ও সময় আদালত নির্ধারণ করে দিয়েছেন বলে জানিয়ে মওদুদ আহমদ সাংবাদিকদের বলেন, রোববার ও সোমবার শুনানি শুরু হবে বেলা ২টায়। মঙ্গলবার ও বুধবার পুরো দিন আদালত এ মামলা শুনবেন। বৃহস্পতিবার আবার বেলা ২টা থেকে শুনানি হবে। তিনি বলেন, ১৯ জুলাই আবার আমরা জামিনের মেয়াদ বাড়ানোর আবেদন করব। এটার ব্যাপারে কোনো অসুবিধা হবে না বলে মনে করি।
বিদেশ থেকে জিয়া এতিমখানা ট্রাস্টের নামে আসা দুই কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুদকের দায়ের করা এ মামলার রায়ে গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আখতারুজ্জামান। সেইসঙ্গে খালেদা জিয়ার বড় ছেলে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানসহ অপর পাঁচ আসামির প্রত্যেককে ১০ বছরের জেল ও জরিমানা করা হয় রায়ে। বিচারিক আদালতের এ মামলার রায়ের বিরুদ্ধে পরে হাইকোর্টে আপিল এবং জামিন আবেদন করেন খালেদা জিয়া। এছাড়া মামলার অপর দুই আসামি সালিমমুল হক কামাল ও শরফুদ্দিন আহমেদও আপিল করেন। অন্যদিকে খালেদার সাজা বৃদ্ধি চেয়ে আবেদন করে দুদক।
বিচারপতি ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন হাইকোর্ট বেঞ্চ গত ১২ মার্চ খালেদা জিয়াকে চার মাসের জামিন দেন। পরে সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগেও তা বহাল থাকে। সেইসঙ্গে খালেদা জিয়ার করা আপিল ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে হাইকোর্টের এ বেঞ্চকে নির্দেশ দেন আপিল বিভাগ। আপলি নিষ্পত্তির জন্য ওই সময় বাড়াতে আপিল বিভাগে রিভিউ আবেদন করেছিলেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। এ বিষয়ে শুনানি করে আপিল বিভাগ বৃহস্পতিবার বলেছেন, আপিলের শুনানি ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ না হলে ওই রিভিউ আবেদন বিবেচনা করা হবে।