খুলনা সিটি নির্বাচনে এগিয়ে নৌকা

নিজস্ব প্রতিবেদক: খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ২৮৯টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ১০১টির ফল পাওয়া গেছে। ওই ফলের হিসাবে আওয়ামী লীগ প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক এগিয়ে রয়েছেন। তিনি নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৫৬ হাজার ৭৩১ ভোট। আর তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপির নজরুল ইসলাম মঞ্জু ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৫ হাজার ৩২৫ ভোট।
খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন গতকাল অনুষ্ঠিত হয়। বিরতিহীনভাবে এ ভোটগ্রহণ চলে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। ভোটগ্রহণ শেষ করার পরপরই গণনা শুরু হয়। বিকালে সোনাডাঙ্গা বিভাগীয় মহিলা ক্রীড়া কমপ্লেক্সে নির্বাচন কমিশনের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে এ ফল ঘোষণা করা হয়।
এদিকে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ করা দুটি কেন্দ্রের ফল পাওয়া যায়। ওই দুটি কেন্দ্রে ৭৭৭ ভোট নিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেক এগিয়ে রয়েছেন। তার নিকটতম প্রার্থী বিএনপির নজরুল ইসলাম মঞ্জু ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭১০ ভোট। কেসিসির পিটিআই কেন্দ্রে পুরুষ ভোটার ও সোনাপোতা কেন্দ্রে নারী ভোটাররা ইভিএমে ভোট দিয়েছেন।
এদিকে দিনের শুরুতে কয়েকটি কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা ও তিনটি ভোটকেন্দ্র বন্ধ করে দেওয়া হলে খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে প্রশ্ন তোলে বিএনপি। দলটির পক্ষ থেকে বিভিন্ন অভিযোগ করা হয়। তবে ‘বিএনপির অভিযোগ সুনির্দিষ্ট নয়’ বলে দাবি করেছেন নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার (অব.) শাহাদাত হোসেন চৌধুরী। দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া সুষ্ঠুভাবে ভোটগ্রহণ চলছে বলেও গতকাল দুপুরে দাবি করেন তিনি।
এদিকে খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাচন নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেন, ‘কেসিসির ২৮৯টি কেন্দ্রের মধ্যে তিনটিতে অনিয়মের কারণে ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। বাকি ২৮৬টি কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবে ও উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আমরা সকাল থেকে নির্বাচন মনিটর করেছি। নির্বাচনের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। সবকটি টিভি চ্যানেল ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে দেখেছি। যে অনিয়ম দেখানো হয়েছে, তা কেবল ওই স্থগিত হওয়া তিনটি কেন্দ্রের।’
উল্লেখ্য, খুলনা সিটি করপোরেশনের ভোটাররা প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীকে ভোট দিয়েছেন। ২৮৯টি ভোটকেন্দ্রের এক হাজার ৫৬১টি ভোটকক্ষে ভোটগ্রহণ হয়েছে। এবারের খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটার চার লাখ ৯৩ হাজার ৯৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ দুই লাখ ৪৮ হাজার ৯৮৬ জন ও নারী দুই লাখ ৪৪ হাজার ১০৭ জন।