গফরগাঁওয়ে প্রবেশপত্র না পাওয়ায় পরীক্ষা দিতে পারেনি ৫৩ শিক্ষার্থী

শেয়ার বিজ প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে প্রবেশপত্র না পাওয়ায় গতকাল বৃহস্পতিবার এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি ৫৩ পরীক্ষার্থী। পরীক্ষা দিতে না পেরে ভেঙে পড়েছে শিক্ষার্থীরা দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ারও দাবি জানিয়েছেন অভিভাবকরা।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন জানান, প্রবেশপত্র না পাওয়ায় রৌহা উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩৭ এবং উথুরী নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৭ শিক্ষার্থী এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি। ২০১৬ সালেও পরীক্ষার আগের দিন রাতে রৌহা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মারুফ আহমেদ তার বিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থীদের হাতে ভুয়া প্রবেশপত্র ধরিয়ে দেন। ২০১৭ সালে পরীক্ষার দুই ঘণ্টা আগে প্রবেশপত্র হাতে পায় একই বিদ্যালয়ের পরীক্ষার্থীরা।

এসএসসি পরীক্ষার্থী উথুরা গ্রামের মিম, জান্নাত, শামছুন্নাহার, স্বর্ণা, ধামাইল গ্রামের হাজেরা ও ঝুমুর বলেন, উথুরী নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইয়াসমিন সুলতানা পপির মাধ্যমে রৌহা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষার ফরম পূরণ করি আমরা ১৭ জন। কিন্তু আমরা পরীক্ষার প্রবেশপত্র না পাওয়ায় পরীক্ষায় অংশ নিতে পারিনি। পরীক্ষার আগ মুহূর্তে কোনো শিক্ষককেও খুঁজে পাইনি। সবার মুঠোফোন বন্ধ রয়েছে।

অভিভাবক আলী হোসেন ও হোসেন মিয়া জানান, রৌহা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মারুফ আহমেদ উথুরী নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৭ জন শিক্ষার্থী এবং তার বিদ্যালয়ের ৩৭ জন শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ফরম পূরণ বাবদ দুই হাজার ৫০০ টাকা করে নেন। নিয়ম অনুযায়ী পরীক্ষার এক সপ্তাহ আগে প্রবেশপত্র ও রেজিস্ট্রেশন কার্ড পাওয়ার কথা থাকলেও পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষার আগ মুহূর্তেও প্রবেশপত্র পায়নি। প্রবেশপত্রের জন্য বুধবার রাতভর তারা থানা ও বিদ্যালয়ে দৌড়ঝাঁপ করে। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি।

এ বিষয়ে উথুরী নি¤œ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইয়াসমিন সুলতানা পপি এবং রৌহা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মারুফ আহমেদের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ডা. শামীম রহমান বলেন, শিক্ষার্থীরা পরীক্ষায় অংশ না নেওয়ার বিষয়টি দুঃখজনক। এ বিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলা হয়েছে।