গাজায় ইসরাইলি হামলার নিন্দা বিশ্বজুড়ে

শেয়ার বিজ ডেস্ক: গাজা উপত্যকায় ফিলিস্তিনিদের বিক্ষোভে ইসরাইলি বাহিনীর নির্বিচারে গুলি ও টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। গত সোমবার জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস উদ্বোধনের প্রতিবাদে গাজা উপত্যকাসহ গোটা ফিলিস্তিনে কয়েক হাজার মানুষ বিক্ষোভে অংশ নেয়। খবর বিবিসি।
গত সোমবার দূতাবাস উদ্বোধনকে ঘিরে উত্তেজনার মধ্যে বিক্ষোভকারী ও ইসরাইলি বাহিনীর সংঘর্ষে অন্তত ৫৫ ফিলিস্তিনি নিহত এবং দুই হাজার ৪০০ জন আহত হয়েছে। ২০১৪ সালের গাজা যুদ্ধের পর এক দিনে ফিলিস্তিনি নিহতের এ সংখ্যা এটিই সর্বোচ্চ।
জাতিসংঘের মানবাধিকার সংগঠন জেইদ রা’দ আল হুসেইন বলেছেন, যারা এই জঘন্য মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য দায়ী, তাদের অবশ্যই জবাবদিহি করতে হবে। ইসরাইলি বাহিনীর হাতে নিহতদের মধ্যে বহু শিশুও রয়েছে।
ইতোমধ্যেই গাজায় হত্যাযজ্ঞের নিন্দা জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইল থেকে নিজেদের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে তুরস্ক। ইসরাইলি বাহিনীর হাতে ফিলিস্তিনি হত্যার ঘটনাকে গণহত্যা বলে উল্লেখ করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। এদিকে ইসরাইল থেকে দক্ষিণ আফ্রিকাও তাদের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে।
বিক্ষোভকারীদের ওপর ইসরাইলি বাহিনীর হামলার নিন্দা জানিয়েছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ। ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইলি সেনাবাহিনীর হামলার পর ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস ও জর্ডানের রাজা আবদুল্লাহর সঙ্গে টেলিফোনে আলাপ করেছেন ম্যাখোঁ। তিনি জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস সরিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন। এদিকে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে জরুরি বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছে কুয়েত।
গত সোমবার জেরুজালেমে আনুষ্ঠানিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস খোলা হয়েছে। এতে ক্ষুব্ধ হয়েছে ফিলিস্তিনিরা। তারা এ পদক্ষেপকে পুরো নগরীর ওপর ইসরাইলি শাসনের পক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের স্পষ্ট সমর্থন হিসেবেই দেখছে।