চট্টগ্রাম ও সিলেটে ভূমিধসের আশঙ্কা

ভারি থেকে অতি ভারি বর্ষণে সিলেট ও চট্টগ্রামের পাহাড়ি এলাকার কোথাও কোথাও ভূমিধসের আশঙ্কার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আবহাওয়াবিদ রাশেদুজ্জামান বলেন, সক্রিয় মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে সোমবার রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। তাই দেশের সকল নদীবন্দরকে এক নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এছাড়া ভারি থেকে অতি ভারি বর্ষণের আশঙ্কায় সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগের পাহাড়ি এলাকার কোথাও কোথাও ভূমিধসের আশঙ্কা রয়েছে।

সোমবার দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরসমূহের জন্য আবহাওয়া পূর্বাভাসে উল্লেখ করা হয় রংপুর, দিনাজপুর, রাজশাহী, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, ঢাকা, ফরিদপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং সিলেট অঞ্চলসমূহের ওপর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেই  সঙ্গে বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরসমূহকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এদিকে রাজধানীতে সকাল থেকেই অঝরে বৃষ্টি ঝরছে। কখনো একটু থামছে, কিছুক্ষণ পর আবার শুরু হচ্ছে। সোমবার সকাল ৭টা থেকেই মুষলধারে এ বৃষ্টি শুরু হয়। ফলে সকাল থেকেই রাস্ত-ঘাটে পানি জমে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েন নগরবাসী। বিশেষ করে সকালে অফিসগামী যাত্রী ও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা।

আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে রাজধানীতে থেমে থেমে বৃষ্টিপাত আরো দুই-তিনদিন হতে পারে।

এছাড়া সোমবার সকাল ৭টা থেকে পরবর্তী ৬ ঘণ্টার জন্য ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আকাশ মেঘলা থেকে মেঘাচ্ছন্ন থাকতে পারে। হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। বাতাসের গতিবেগ দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ১০-১৫ কিলোমিটার। দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে। গেলো ২৪ ঘণ্টার বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ৬৬ মিলিমিটার।