শোবিজ

চবির সাবেক শিক্ষার্থীদের নিয়ে নির্মিত ছবি শাটল ট্রেন

শোবিজ ডেস্ক: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থী, পরিচালক ও নির্মাতা প্রদীপ ঘোষের নির্মিত শাটল ট্রেন চলচ্চিত্রের প্রদর্শনী উপলক্ষে ৯ এপ্রিল চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এ সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ১১তম ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থী মোহাম্মদ শহিদুর রহমান। আরও উপস্থিত ছিলেন কবি ও সাংবাদিক ওমর কায়সার, সংগঠক ও শিল্পী শাহরিয়ার খালেদ, কবি ও সাংবাদিক নাজিম উদ্দিন শ্যামল এবং চলচ্চিত্রটির প্রধান সহকারী পরিচালক রিফাত মোস্তফা।
প্রদীপ ঘোষ বলেন, ১৯৮১ সাল থেকে পথচলা শুরু করে শিক্ষার্থীদের নিয়ে শাটল ট্রেন। এটি মনে যেন একটি মঞ্চ। আর এ মঞ্চের শিল্পীরা হলেন শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন আসা-যাওয়ার সময় বগির দেওয়ালে ড্রাম চাপড়িয়ে উচ্চ স্বরে গান গেয়ে সারা বগি মাতিয়ে রাখে। আর এ বগিতেই গান গাইতে গাইতে শিল্পী হয়ে উঠেছেন অনেকে। তাদের মধ্যে অন্যতম তারকাশিল্পী নকীব খান, পার্থ বড়–য়া, এসআই টুটুলসহ আরও অনেকে। শুধু গান নয়, এ ট্রেনকে ঘিরে গড়ে উঠেছে হাজারো গল্পকথা ও প্রেমকাহিনি। শাটল ট্রেন আর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় একসূত্রে গাঁথা। এটিকে কেন্দ্র করে রচিত হয় এ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাসি-কান্না, প্রেম-ভালোবাসা ও আনন্দ-বেদনার মহাকাব্য। এ মহাকাব্যের কিছু সময়, কিছু ঘটনা আর অনুভূতি নিয়ে নির্মিত হয়েছে পূর্ণদৈর্ঘ্য ছবি শাটল ট্রেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৬তম ব্যাচের ছাত্রী মোহসেনা ঝর্ণার ‘বহে সমান্তরাল’ গল্প অবলম্বনে নির্মিত ছবিটি। পরিচালনা করেছেন ৩৪তম ব্যাচের চারুকলা বিভাগের সাবেক ছাত্র ও চলচ্চিত্র নির্মাতা প্রদীপ ঘোষ এবং প্রধান সহকারী পরিচালক ৩৪তম ব্যাচের ফাইন্যান্স বিভাগের রিফাত মোস্তফা। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষার্থীদের গণ-অর্থায়নে নির্মিত হয়েছে এ ছবিটি। দেশের প্রথম গণ-অর্থায়নের পূর্ণদৈর্ঘ্য ছবি শাটল ট্রেন। এতে মোট ছয়টি মৌলিক গান রয়েছে। সব গানে কথা, সুর ও কণ্ঠ দিয়েছেন চবির সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। এছাড়া ট্রেনের বগিভিত্তিক গান রয়েছে। এতে অভিনয় করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান ও সাবেক শিক্ষার্থীরা। আগামী ১১, ১২, ১৩ ও ১৫ এপ্রিল চট্টগ্রাম থিয়েটার ইনস্টিটিউটে সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত প্রদর্শন করা হবে ছবিটি।

সর্বশেষ..