চলতি বছর চীনে ই-কমার্স খাতে কর্মসংস্থান পাঁচ কোটি

শেয়ার বিজ ডেস্ক: চলতি বছর চীনে ই-কমার্স খাতের সঙ্গে জড়িত কর্মজীবীদের সংখ্যা চার কোটি ৮০ লাখ ছাড়িয়ে যাবে। গত বছরের তুলনায় এ সংখ্যা ১৩ শতাংশ বেশি হবে। দেশটির শিল্পবাজার গবেষণা ও উদ্যোক্তাদের পরামর্শদানকারী প্রতিষ্ঠান এএসকেসিআই এক প্রাক্কলন করেছে। খবর চায়না ডেইলি।
২০১৭ সালে দেশটিতে ই-কমার্সের খাতে কর্মসংস্থান ছিল চার কোটি ২৫ লাখ। ওই সময় চীনের মোট কর্মসংস্থান ছিল ৭৭ কোটি ৬৪ লাখ। অর্থাৎ চীনের ১৮ কর্মজীবীর মধ্যে একজন ই-কমার্স খাতের সঙ্গে জড়িত। এএসকেসিআই’র হিসাব অনুযায়ী, ই-কমার্স খাতে খুব দ্রুত কর্মসংস্থান বাড়ছে।
২০১৭ সালে ই-কমার্স খাতে মোট লেনদেন হয়েছিল ২৯ দশমিক ১৬ ট্রিলিয়ন ইউয়ান। আগের বছরের তুলনায় এটি ১১ দশমিক সাত শতাংশ বেশি। ওই সময় দেশটিতে অনলাইনে খুচরা বিক্রি ৩২ দশমিক দুই শতাংশ বেড়ে সাত দশমিক ১৮ ট্রিলিয়ন ইউয়ানে পৌঁছায়।
চায়নিজ একাডেমি অব সোশ্যাল সায়েন্সেসের গবেষক মাও রিশেং বলেন, ই-কমার্সের মাধ্যমে সৃষ্টি হওয়া চাকরি প্রচলিত শিল্পব্যবস্থাকে আধুনিক করেছে। প্রচলিত ও ডিজিটাল শিল্পের মাধ্যমে বিশাল ও নতুন মডেলের এ ব্যবসায় বিপুল সংখ্যক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে।
কোনো কিছু উদ্ভাবন ও নতুন ব্যবসা শুরুর ক্ষেত্রে ই-কমার্স একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। একই সঙ্গে গ্রামীণ বেকার শ্রমিকদের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টি, তরুণদের বাড়ি ফিরে নিজস্ব ব্যবসা শুরু করা এবং প্রবীণ ও শারীরিক প্রতিবন্ধীদের জন্যও এটি গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম। চীনের হেনান প্রদেশে ই-কমার্সের মাধ্যমে আয় বেড়ে যাচ্ছে। সেখানকার আয়ের ৬০ শতাংশ ই-কমার্স থেকে আসা। চীনের গ্রামাঞ্চলে ই-কমার্সের উন্নতিবিষয়ক একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গ্রামীণ অনলাইন স্টোরগুলোর মাধ্যমে ২০১৭ সালে সেখানে দুই কোটি ৮০ লাখ কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হয়েছে। ঝিয়াং প্রদেশের ৫০৬টি গ্রামে বিশেষায়িত ই-কমার্সভিত্তিক শিল্প রয়েছে। সারা দেশের এক-তৃতীয়াংশ ই-কমার্স ব্যবসা এখানেই হয়। এখানে দুই লাখ মানুষ ই-কমার্সের সঙ্গে জড়িত।