চীনে উৎপাদন কমিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার গাড়ি কোম্পানিগুলো

 

 

শেয়ার বিজ ডেস্ক : দক্ষিণ কোরিয়ার গাড়ি নির্মাণকারী কোম্পানি হুন্দাই মোটর কোম্পানি ও কিয়া মোটরস করপোরেশন চীনে ব্যাপক হারে উৎপাদন কমিয়েছে। কোরিয়াবিরোধী মনোভাব ও স্থানীয় ব্র্যান্ডের জনপ্রিয়তায় প্রতিযোগিতা বেড়ে যাওয়ায় দেশটিতে কোম্পানি দুটির বিক্রিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। আর এতে গাড়ির সবচেয়ে বড় বাজার চীনে আয় নিয়ে শঙ্কায় পড়েছে কোম্পানিগুলো। খবর রয়টার্স।

গত মাসের হিসেবে, হুন্দাই ও কিয়ার গড় বিক্রি আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৫২ শতাংশ কমেছে।

চীন বিশ্বের সবচেয়ে বড় গাড়ির বাজার। ২০১৬ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার গাড়ি কোম্পানিগুলোর বিদেশে বিক্রির এক-চতুর্থাংশই হয়েছে চীনে।

দক্ষিণ কোরিয়ার স্থানীয় পত্রিকা ইয়নহাপের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ পরিস্থিতি শুধু গাড়ি কোম্পানিদের জন্য বিপদ ডেকে আনছে না, বরং দক্ষিণ কোরিয়ার অন্য সরবরাহকারীদের জন্যও এটি বিপজ্জনক।

ফেব্রুয়ারিতে যুক্তরাষ্ট্রের টার্মিনাল হাই আল্টিচ্যুড ডিফেন্স (থাড) ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার জন্য দক্ষিণ কোরিয়ায় দেশটির কংগ্লোমারেট লোটে গ্রুপ জমি দেওয়ায় চীনের তোপের মুখে পড়ে কোম্পানিটি। যদিও দক্ষিণ কোরিয়া বলছে, উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক হুমকির জবাবে এ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

তবে চীনে লোটে গ্রুপসহ দক্ষিণ কোরিয়ার কোম্পানিগুলোর পণ্য বয়কটের হিড়িক পড়েছে। দেশটির গণমাধ্যমে ওইসব কোম্পানির কার্যক্রম বন্ধেরও আহ্বান আসে।

এ পরিস্থিতিতে লোটে গ্রুপ দেশটিতে ৯৯টি হাইপারটেকের মধ্যে ইতোমধ্যে ৭৫টি বন্ধ করে দিয়েছে। অবশ্য বিরূপ পরিস্থিতি সত্ত্বেও প্রতিষ্ঠানটি চীনে বিনিয়োগ অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছে।

বিশ্লেষকরা ও সূত্র বলছে, প্রতিযোগিতাপূর্ণ বাজার এবং কূটনৈতিক সম্পর্কে উত্তেজনায় দক্ষিণ কোরিয়ার গাড়ি কোম্পানিগুলো চীনে তাদের বাজার হারাচ্ছে।

বিষয়টির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কিয়া মোটরস তাদের চীনের কারখানায় উৎপাদন শিফট কমিয়েছে। এছাড়া চীনের রাজধানী বেইজিংয়ের তিন কারখানায় দ্বিতীয় শিফটের উৎপাদন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

সূত্র নির্দিষ্ট করে বিস্তারিত বলতে রাজি হয়নি। এদিকে গাড়ি কোম্পানিগুলোও এ বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

তবে হেবেই প্রদেশে হুন্দাই কারখানার কার্যক্রম ২৪ মার্চ থেকে ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাময়িক বন্ধ থাকার কথা স্বীকার করেছে কোম্পানিটি।

এইচএমসি ইনভেস্টমেন্ট অ্যান্ড সিকিউরিটিজের বিশ্লেষক মিয়াং হুন বলেন, দুই শিফটের পরিবর্তে এক শিফটে উৎপাদন হুন্দাই মোটরের জন্য ‘বিরল পরিবর্তন’। এতে প্রতিদিনের উৎপাদন অর্ধেকে নেমে আসবে।

২০১২ সালে একইভাবে চীনে প্রাদেশিক বিরোধের জেরে জাপানের গাড়ি নির্মাতা কোম্পানিগুলোর উৎপাদনে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়েছিল। এ ঘটনা উল্লেখ করে তিনি বলেন, কোরিয়াবিরোধী মনোভাব খুব দ্রুতই নিষ্পত্তি করা দরকার।

তিনি আরও বলেন, এ পরিস্থিতি বেশিদিন থাকবে বলে আমি মনে করি না। কারণ এতে চীনের অংশীদার ও স্থানীয় কর্মীদেরই ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে।

দক্ষিণ কোরিয়াবিরোধী মনোভাবে মার্চে কোম্পানিগুলোর বিক্রিতে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। সোমবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখা গেছে, চীনে কিয়া মোটরসের বিক্রি কমে প্রায় অর্ধেকে নেমে এসেছে।

এছাড়া মার্চে যুক্তরাষ্ট্রে হুন্দাই মোটরের বিক্রি কমেছে আট শতাংশ এবং কিয়া মোটরসের বিক্রি আগের বছরের তুলনায় কমেছে ১৫ শতাংশ।