প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

ছোট খাতগুলোয় কেনার চাপ ছিল বেশি

রুবাইয়াত রিক্তা: পুঁজিবাজারে গত রোববার সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে প্রায় সমান্তরাল গতিতে লেনদেন হয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের উত্থান হলেও তা খুব সামান্য ছিল। লেনদেন কমলেও সেটাও সামান্য। প্রায় সমানসংখ্যক কোম্পানির দর বেড়েছে ও কমেছে। পুঁজিবাজারে ধারাবাহিক পতনের পর গত তিন কার্যদিবস ধরে সূচক ইতিবাচক অবস্থানে রয়েছে। শেয়ার কেনার চাপ কিছুটা বেড়েছে। বৃহৎ খাতগুলোর তুলনায় অল্পসংখ্যক কোম্পানি নিয়ে গঠিত ছোট খাতগুলোতে শেয়ার কেনার চাপ বেশি ছিল। বৃহৎ খাতগুলোতে বিক্রির চাপ বেশি ছিল। ডিএসইতে ৪১ দশমিক চার শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে, অন্যদিকে কমেছে ৪১ দশমিক এক শতাংশ কোম্পানির। ছোট খাতগুলোর মধ্যে শতভাগ ইতিবাচক ছিল টেলিযোগাযোগ, তথ্য ও প্রযুক্তি খাত। এরপরে ভালো অবস্থানে ছিল চামড়া শিল্প, খাদ্য, সিরামিক ও বিবিধ খাত।
রোববার সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়ে শীর্ষে উঠে আসে প্রকৌশল খাত। এ খাতে লেনদেন হয় মোট লেনদেনের ১৫ শতাংশ বা প্রায় ৫২ কোটি টাকা। দরপতন হয় ৫১ শতাংশ কোম্পানির। ন্যাশনাল টিউবসের সোয়া ১১ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে প্রায় দুই টাকা। ইস্টার্ন কেব্লসের প্রায় সাত কোটি টাকা লেনদেন হলেও ছয় টাকা দরপতন হয়। মুন্নু জুট স্টাফলার্সের পৌনে ছয় কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে প্রায় ৮০ টাকা। কোম্পানিটি দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে উঠে আসে। জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে লেনদেন হয় মোট লেনদেনের ১১ শতাংশ। এ খাতে ৫৮ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। ইউনাইটেড পাওয়ারের প্রায় ২২ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ছয় টাকা। এরপর বস্ত্র ও চামড়া শিল্প খাতে ১০ শতাংশ করে লেনদেন হয়। বস্ত্র খাতে ৪৯ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। এসকোয়্যার নিটের পৌনে ছয় কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে দুই টাকা ৩০ পয়সা। দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে ম্যাকসন্স স্পিনিং, মেট্রো স্পিনিং, এসকোয়্যার নিট। অন্যেিদক ফরচুন সুজের সাড়ে ২৮ কোটি টাকা লেনদেন ও দুই টাকা ২০ পয়সা দর বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে লেনদেন বেড়েছে চামড়া শিল্প খাতে। এ খাতে ৮৩ শতাংশ কোম্পানির দর ইতিবাচক ছিল। ব্যাংক খাতে ৪৭ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। প্রিমিয়ার ব্যাংকের সোয়া ছয় কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ১০ পয়সা। তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের ড্যাফোডিল কম্পিউটার্সের প্রায় ৯ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে তিন টাকা ২০ পয়সা। টেলিযোগাযোগ খাতের বিএসসিসিএলের সোয়া ১৮ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে আড়াই টাকা। গ্রামীণফোনের দর পাঁচ টাকা ২০ পয়সা বেড়েছে।

সর্বশেষ..