সম্পাদকীয়

জনদুর্ভোগ লাঘবে নজর দিক চসিক ও চউক

সর্বক্ষেত্রে অগ্রগতির সঙ্গে সঙ্গে রাজধানী ঢাকা এবং বন্দরনগরী চট্টগ্রামে যানজট, দূষণসহ কিছু সমস্যা প্রকট হচ্ছে। বর্ষায় জলাবদ্ধতাও এখন মাথাব্যথার কারণ। ঢাকার বিভিন্ন স্থানে সামান্য বৃষ্টি হলেও জমছে হাঁটুপানি। তবে এর চেয়েও বড় সমস্যা মোকাবিলা করছে চট্টগ্রামের মানুষ। কয়েক বছর ধরে এ পরিস্থিতিতেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সমস্যার সমাধান করতে পারেনি। বরং চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) ও চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (চউক) টানাপড়েনে পরিস্থিতি আরও নাজুক হয়েছে, জনগণের দুর্ভোগও বেড়েছে। নাগরিক সেবাদানকারী দুই প্রতিষ্ঠান নাগরিকের সমস্যার কারণ হবেÑএটা প্রত্যাশিত নয়। তাদের মধ্যে সমন্বয়ের মাধ্যমে দ্রুত পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে কার্যকর পদক্ষেপ প্রত্যাশিত।
গতকালের দৈনিক শেয়ার বিজে ‘দুই সংস্থার টানাপড়েনে ডুবছে চট্টগ্রাম নগর’ শিরোনামে একটি বিশেষ প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে। এতে বলা হয়, বৃষ্টিতে চট্টগ্রাম শহর বারবার ডুবলেও সেবাদানকারী দুই সংস্থার মধ্যে সমন্বয় নেই। বরং চসিক ও চউক-এর মধ্যে টানাপড়েনে জলাবদ্ধতা নিরসনের অগ্রগতি হচ্ছে না। বৃষ্টি হলেই নগরের অনেক এলাকায় জমছে হাঁটুপানি। সর্বশেষ চারদিনেও নগরজুড়ে মারাত্মক জলাবদ্ধতা দেখা গেছে। অথচ এ দুই সংস্থার কাজ নাগরিকের সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা। কিন্তু এর বিপরীতে গিয়ে জনগণের ভোগান্তির কারণ হওয়া হতাশাজনক। সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানই যদি দুর্ভোগের কারণ হয়, তখন নাগরিকদের আর কোনো উপায় থাকে না।
খবরেই উল্লেখ করা হয়েছে, প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে ‘চট্টগ্রাম শহরের জলাবদ্ধতা নিরসন কল্পে খাল পুনর্খনন, সম্প্রসারণ, সংস্কার ও উন্নয়ন’ শীর্ষক মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে সিডিএ। এ অজুহাতে গত দুই বছরে জলাবদ্ধতা নিরসনে কোনো কাজ করেনি চসিক। অন্যদিকে দুই বছরে মেগা প্রকল্পের কাজ হয়েছে মাত্র ১১ শতাংশ। এটি শেষ না হওয়া পর্যন্ত জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে না বলে জানাচ্ছেন সংশ্লিষ্টরা। উভয় কর্তৃপক্ষই এক্ষেত্রে দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় দিচ্ছে। সিডিএ জনগণের অর্থে পরিচালিত সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান। অন্যদিকে চসিক জনগণের ভোটে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি দ্বারা পরিচালিত। উভয় প্রতিষ্ঠানকেই এ বিষয়টি মাথায় রেখেই তাদের কর্মকাণ্ড পরিচালনা করতে হবে।
রাজধানী ঢাকার জলাবদ্ধতার ক্ষেত্রেও দুই সিটি করপোরেশন এবং ওয়াসার মধ্যে টানাপড়েন দেখা যায়। চট্টগ্রামেও একই অবস্থা। এছাড়া মেগা প্রকল্প নিয়ে চসিক ও চউক-এর মধ্যে মূল সমস্যা বলে মনে করছেন। এক্ষেত্রে যদি কেউ আর্থিক সুবিধার কথা বিবেচনা করে, তবে তাদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন। নিজেদের স্বার্থে নয়, জনগণের স্বার্থে এ ধরনের প্রতিষ্ঠানগুলোর কর্মকাণ্ড এগিয়ে নেওয়া নিশ্চিত করতে হবে।

 

সর্বশেষ..