শোবিজ

জাপানে তিন বাংলাদেশি চিত্রশিল্পীর প্রদর্শনী

শোবিজ ডেস্ক: ১০ জুন থেকে জাপানের ওসাকায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে ‘একেএ ডট’ শিরোনামে একটি চিত্র প্রদর্শনী। এ প্রদর্শনীতে বাংলাদেশের চিত্রশিল্পী জামাল আহমেদ, মোহাম্মদ ইকবাল ও মুস্তাফা খালিদ পলাশের সাম্প্রতিক সময়ের আঁকা বেশ কিছু চিত্রকলা প্রদর্শিত হবে। ওসাকাকেন্দ্রিক জাপানি কোম্পানি হলবেইন-এর আমন্ত্রণে হলবেইন গ্যালারিতে এ চিত্রপ্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে। মোহাম্মদ ইকবালের তত্ত্বাবধানে প্রদর্শনীটি উদ্বোধন করবেন হলবেইন কোম্পানির প্রেসিডেন্ট ইউসিও কাওয়ামী। আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত এ প্রদর্শনী চলবে। প্রসঙ্গত, জামাল আহমেদ, মোহাম্মদ ইকবাল ও মুস্তাফা খালিদ পলাশ এ তিনজনই চিত্রশিল্পী। তাদের কাজের ধারায় ভিন্নতা থাকলেও শিল্পভাবনায় একটি অন্তর্নিহিত সুরের মিল রয়েছে। এদের মধ্যে পলাশের আরেকটি পরিচয় তিনি একজন আর্কিটেক্ট। চিত্রশিল্পী জামাল আহমেদ তার চিত্রকলার নিজস্ব ভাষা নির্মাণে কাজ করে গেছেন বছরের পর বছর, যা সত্যিই প্রশংসনীয়। তার ক্যানভাসে একই বিষয় ঘুরেফিরে এলেও একেকটি চিত্রকলায় এক ভিন্ন মাত্রা ও ভাব নিয়ে আসে। এরই মধ্যে তিনি দৃশ্যকল্প সৃষ্টির একজন সুনিপুণ কারিগর হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন। সাধারণ দর্শক থেকে শিল্পবোদ্ধা সবাই তার শিল্পের অনুরাগী। মোহাম্মদ ইকবাল এ সময়ের একজন জনপ্রিয় চিত্রশিল্পী। এ শিল্পীর চিত্রকলার বিষয়বস্তু হলো মানুষের মুখ ও তার বিরাটকার্য চোখ, বিশেষ করে শিশুদের যা প্রকাশ করে সেই মানুষের আত্মার স্বরূপ, যেটি একজন মানুষের পরিণত বয়সে প্রবাহিত হয়ে পরিপূর্ণ হয়। আর ইকবালের চিত্রকলার বিশেষত্ব হলো অনেকগুলো স্তরের সন্নিবেশ, যা পরিশেষে তার গভীর ভাবনার মর্মার্থ উম্মোচনে সাহায্য করে। বাংলাদেশের স্থাপত্য অঙ্গনে পরিচিত নাম মুস্তাফা খালিদ পলাশ। যিনি স্থাপত্য পেশার পাশাপাশি চিত্রশিল্পী, লেখক, সংগীতশিল্পী এবং একজন সচেতন সমাজকর্মী হিসেবেও পরিচিত। পলাশ শৈশব থেকেই শিল্পী পরিবারে বড় হয়েছেন। এরই মধ্যে তিনি চিত্রকলায় একটি নিজস্ব ধারা তৈরি করতে পেরেছেন। তার চিত্রের ক্যানভাসে তুলির প্রশস্ততা এবং শক্তিশালী রঙের স্পন্দন আর আকার বিন্যাসের মিলিত ব্যাঞ্জনায় এক গভীর অনিন্দ্য অনুভূতি তৈরি করেছেন। তাদের কাজ জাপানিজ মিনিমালিস্ট দর্শন ও বাংলাদেশি সারল্য ভাবসম্পদ দ্বারা ভীষণভাবে প্রভাবিত হয়েছে।

সর্বশেষ..



/* ]]> */