টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১১ আহত ৮

শেয়ার বিজ প্রতিনিধি, টাঙ্গাইল: টাঙ্গাইলে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় ১১ জন নিহত ও আটজন আহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে দুই পরিবারের সাতজন রয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের বাসাইল লিংক রোড ও মধুপুর উপজেলার টেলকি এলাকায় এ দুর্ঘটনা দুটি ঘটে।

হাইওয়ে মধুপুর (এলেঙ্গা) ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর জাহাঙ্গীর আলম জানান, গতকাল দুপুর ৩টার দিকে মহাসড়কের বাসাইল লিংক রোড এলাকায় সিরাজগঞ্জের কাজীপুর উপজেলার কাছিহারা গ্রাম থেকে ঢাকামুখী একটি মাইক্রোবাসের (ঢাকা-মেট্রো চ-১৩-৪২৪২) সঙ্গে ঢাকা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতুগামী একটি ট্রাকের (ঢাকা-মেট্রো ট-১৮-০৭১১) মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই চারজন নিহত হন। এ ঘটনায় আহত ১৩ জনকে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে তিনজন মারা যান। পরে আহতদের মধ্যে তিনজনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও দুজনের মৃত্যু হয়। নিহতদের মধ্যে তিন নারী, দুই শিশু ও চার পুরুষ রয়েছেন। প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত (রাত সোয়া ৮টা) ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে সাতজন রয়েছেন চিকিৎসাধীন।

আহত নাজমুল হাসান জানান, তার ফুফাতো ভাই মনিরুজ্জামান পরিবারের সদস্যদের নিয়ে শ্বশুরবাড়ি সিরাজগঞ্জের কাজীপুর থানার কাছিহারা গ্রাম থেকে দাওয়াত খেয়ে দুপুরে দুই পরিবারের সদস্যসহ শ্বশুরের বাসা ঢাকায় বিজি প্রেস কোয়ার্টারে যাচ্ছিলেন। নিহতদের মধ্যে মনিরুজ্জামানের মা মমতাজ বেগম, তার স্ত্রী ফাহমিদা আক্তার সোমা, সোমার বাবা ওয়াসিম উদ্দিন, মা হাজেরা বেগম, ভাই রায়হান শুভ, সোমার ছেলে রিজভী, সোমার বোন স্বপ্না রয়েছেন।

এর আগে গতকাল সকালে বন্ধুদের সঙ্গে মোটরসাইকেল রেস করতে গিয়ে টাঙ্গাইলের মধুপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই বন্ধুর মৃত্যু হয়।

মধুপুর থানার ওসি শফিকুর ইসলাম জানান, গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ময়মনসিংহ থেকে ফেরার পথে মধুপুরের বনাঞ্চলের টেলকি এলাকায় কয়েক যুবক নিজেদের মধ্যে মোটরসাইকেল রেস করছিল। এ সময় মোটরসাইকেলের চাকা পিছলে গেলে সোহাগ (২৫) নামের এক চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। এতে ঘটনাস্থলেই সোহাগের মৃত্যু হয়। তিনি টাঙ্গাইল সদর উপজেলার হাজরাঘাট এলাকার মো. মজনু মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় গুরুতর আহত অপর আরোহী হিমেলকে (২৪) প্রথমে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজে নেওয়া হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা নেওয়ার পথে মির্জাপুর এলাকায় তার মৃত্যু হয়। হিমেল হাজরাঘাট এলাকার লিয়াকত আলীর ছেলে।