ডিএসইতে মোবাইল অ্যাপের গ্রাহক ২০ হাজার ছাড়াল

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিশ্বের অন্যান্য স্টক এক্সচেঞ্জের সঙ্গে তাল মিলিয়ে পুঁজিবাজারে লেনদেনে আধুনিক প্রযুক্তি সংযোজন করে চলেছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। এ ধারাবাহিকতায় দেড় বছর আগে মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে লেনদেন চালুর ব্যবস্থা করা হয়। বর্তমানে অ্যাপটির মাধ্যমে লেনদেন করা গ্রাহকের সংখ্যা ২০ হাজার অতিক্রম করেছে। ডিএসই সূত্রে বিষয়টি জানা গেছে।

জানা যায়, মোবাইল অ্যাপ চালুর এক বছরের মধ্যে এর মাধ্যমে লেনদেনকারীর সংখ্যা বাড়ে প্রায় সাতগুণ। বর্তমানে তা ১০ গুণে দাঁড়িয়েছে। বিষয়টি ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন বিনিয়োগকারীসহ সংশ্লিষ্ট সবাই।

বিনিয়োগকারীদের লেনদেন পদ্ধতি সহজ করার উদ্দেশ্যে ২০১৬ সালের ৯ মার্চ দেশের প্রধান স্টক এক্সচেঞ্জ ডিএসইতে সংযোজন হয় মোবাইল অ্যাপ। সেই সময় শূন্য গ্রাহক নিয়ে এর যাত্রা শুরু হয়। ওই বছরের জুনেই তা দুই হাজার অতিক্রম করে। অক্টোবরে তা দ্বিগুণ হয়। ডিসেম্বরে মোবাইলে লেনদেনে গ্রাহকের সংখ্যা দাঁড়ায় ছয় হাজার। চলতি বছরের শুরুর দিকে এটি আরও জনপ্রিয়তা পায়। ফলে ২০১৭-এর প্রথম চার মাসে গ্রাহকসংখ্যা বাড়ে প্রায় সাত হাজার। ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে লেনদেন করে এমন রেজিস্টার্ড গ্রাহকের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৯৭৬ জনে। বর্তমানে লেনদেন করে এমন গ্রাহকের সংখ্যা ২০ হাজার ২৫৫ জন।

জানা যায়, এটি ব্যবহারের ফলে বিনিয়োগকারীরা বেশ উপকৃত হচ্ছেন। এর মাধ্যমে গ্রাহক নিজেই লেনদেন করতে পারে। পাশাপাশি যেকোনো আর্থিক তথ্য দ্রæত তাদের কাছে পৌঁছে যায়। তাছাড়া দ্রুত ম্যানেজমেন্ট নোটিফিকেশন প্রদানের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীরা পোর্টফোলিও সম্পাদন এবং যেকোনো স্থান থেকে লেনদেনে অংশগ্রহণ করে তা সম্পন্ন করতে পারছেন।

মোবাইল অ্যাপে লেনদেন ছাড়াও ডিএসই মোবাইল কর্নারে এ-সম্পর্কিত বিস্তারিত তথ্য রয়েছে। এছাড়া ডিএসই মোবাইল ফেসবুক পেজের মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা এটি সম্পর্কে সব তথ্য জানতে পারেন।

বিষয়টি নিয়ে আলাপ করলে ডিএসইর সাবেক প্রেসিডেন্ট ও বর্তমান পরিচালক রকিবুর রহমান বলেন, ‘বিনিয়োগকারীদের সুবিধার কথা বিবেচনা করেই আমরা মোবাইল অ্যাপ চালু করেছিলাম। ইতোমধ্যে আমরা আশানুরূপ সাড়া পেয়েছি। আশা করছি, লেনদেনকারীর সংখ্যা আরও বাড়বে।’

তিনি বলেন, ‘এখন ডিজিটাল যুগ। বিশ্বের সব দেশের পুঁজিবাজারই এখন ডিজিটাল। তাদের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হলে আমাদের পিছিয়ে থাকার কোনো সুযোগ আছে বলে আমি মনে করি না।’

সাধারণ বিনিয়োগকারীরা জানান, এটি ব্যবহার করে তারা বেশ উপকৃত হচ্ছেন। সবচেয়ে বড় সুবিধা হচ্ছে, যেকোনো জায়গা থেকে নিজেই লেনদেন করা যায়। মোবাইল অ্যাপ চালু হওয়ার আগে অনেক পোর্টফোলিও দেখার জন্য বিনিয়োগকারীদের ব্রোকারেজ হাউজে যেতে হতো। এখন যারা মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করছেন, তারা যেকোনো স্থান থেকেই নিজেদের পোর্টফোলিও দেখতে পারেন।

এ প্রসঙ্গে শহিদুল ইসলাম নামে এক বিনিয়োগকারী শেয়ার বিজকে বলেন, ‘আগে যেকোনো কাজের জন্যই হাউজে যাওয়ার দরকার হতো। লেনদেন করার জন্য ফোন করলেও অনেক সময় কাক্সিক্ষত ব্যক্তিকে পাওয়া সম্ভব হতো না। যে কারণে অনেক সময় কাক্সিক্ষত দরে শেয়ার কেনা বা বিক্রি করা যেতো না। মোবাইল অ্যাপ চালু হওয়ার পর এখন আর সেই সমস্যা নেই।’