বিশ্ব বাণিজ্য

ডয়েচে ব্যাংকের শেয়ারে ধস

শেয়ার বিজ ডেস্ক: কর্মী ছাঁটাই শুরু করার পর গতকাল মঙ্গলবার জার্মানিভিত্তিক বহুজাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠান ডয়েচে ব্যাংকের শেয়ারদরে পতন হয়েছে। গত শনিবার থেকে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারদর পড়েছে ১২ শতাংশ। গত সোমবার থেকে ইকুইটি সেলস ও ট্রেডিং খাতে নিয়োজিত ১৮ হাজার কর্মী ছাঁটাইয়ের ঘোষণা কার্যকর করতে শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি। খবর রয়টার্স।
সোমবার টোকিওসহ এশিয়ায় নিয়োজিত শেয়ার ট্রেডার দলগুলোকে জানানো হয়েছে, তাদের চাকরি আর থাকছে না। লন্ডনে ডয়েচে ব্যাংক ভবনে কয়েকজন কর্মীর প্রবেশাধিকার বাতিল করা হয়েছে। সোমবার তারা আর কাজে যোগ দিতে পারেননি।
বেশ কয়েক বছর ধরে ইকুইটি সেলস ও ট্রেডিং নিয়ে হিমশিম খাচ্ছে ডয়েচে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। নিজেদের ব্যবসাকে নতুন করে গড়ে তুলতে বেশ কয়েকবার পদক্ষেপ নিয়েছে তারা। এপ্রিলে প্রতিদ্বন্দ্বী কমার্স ব্যাংকের সঙ্গে একীভূতকরণ-সংক্রান্ত আলোচনা ব্যর্থ হওয়ার পর প্রতিষ্ঠানটিকে পুনর্গঠনের সিদ্ধান্ত নেয় ডয়েচে ব্যাংক। এর অংশ হিসেবে ইকুইটি সেলস ও ট্রেডিং বিজনেস বন্ধ করে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে তারা। গত রোববার ব্যাংক কর্তৃপক্ষ ঘোষণা দিয়েছে, তারা তাদের ১৮ হাজার কর্মীকে ছাঁটাই করবে।
ডয়েচে ব্যাংক জানিয়েছে, ২০২২ সাল নাগাদ বিশ্বজুড়ে তাদের কর্মীসংখ্যা কমিয়ে ৭৪ হাজারে নামিয়ে আনা হবে। আগামী তিন বছরে পুনর্গঠন পরিকল্পনার অংশ হিসেবে কর্মীদের ছাঁটাই করা হবে। ব্যাংকের এক মুখপাত্র বলেন, ‘যে ক্ষেত্রে আমাদের গ্রাহকের বেশি প্রয়োজন, সেসব জায়গাকে প্রাধান্য দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি আমরা। বিশ্বজুড়ে কোম্পানিগুলোকে বাণিজ্য ও বিনিয়োগে সহায়তা দেওয়ার জন্য অর্থায়ন ও ট্রেজারিতে বিশেষায়িত একটি ডেডিকেটেড করপোরেট ব্যাংক স্থাপন করছি আমরা। ডয়েচে ব্যাংক আন্তর্জাতিক ব্যাংক হয়েই থাকবেÑসেটাই আমাদের গ্রাহক চান।’
সহকর্মীদের কাছে পাঠানো ই-মেইলে সহকর্মীদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ক্রিশ্চিয়ান সিউয়িং। বলেছেন, চাকরি ছাঁটাইয়ের কারণে কর্মীদের ওপর যে প্রভাব পড়বে, তা নিয়ে তিনি ‘গভীরভাবে দুঃখিত’। ডয়েচে ব্যাংকের ‘দীর্ঘমেয়াদি স্বার্থে’ এ সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা জানান সিউয়িং। তিনি আরও বলেন, ২০২২ সাল নাগাদ এক-চতুর্থাংশ খরচ কমাতে এবং প্রযুক্তি খাতে এক হাজার ৩০০ কোটি ইউরো বিনিয়োগ করতে চায় তার ব্যাংক।
পুনর্গঠন পরিকল্পনার আওতায় ডয়েচে ব্যাংকের কয়েকজন বোর্ড মেম্বারকেও কোম্পানি ছাড়তে হচ্ছে। প্রধান নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা সিলভি ম্যাথেরাট ও প্রাইভেট অ্যান্ড কমার্শিয়াল ব্যাংকের প্রধান ফ্রাংক স্ট্রস ৩১ জুলাই বিদায় নিচ্ছেন।

সর্বশেষ..