ঢাকা-ম্যানিলা রুটে সরাসরি  ফ্লাইট চালুর আহবান 

ডিসিসিআই নেতাদের সঙ্গে ফিলিপাইনের রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) সভাপতি আবুল কাসেম খান এবং পরিচালনা পর্ষদের সদস্যদের সঙ্গে বাংলাদেশে নিযুক্ত ফিলিপাইনের রাষ্ট্রদূত ভিসেনটি ভিভেনকো টি. বেনডিলো গতকাল ডিসিসিআইতে সাক্ষাৎ করেন।

স্বাগত বক্তব্যে ডিসিসিআই সভাপতি আবুল কাসেম খান বাংলাদেশকে বিনিয়োগের জন্য উপযুক্ত স্থান হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশের অবকাঠামো খাতের উন্নয়নের জন্য এ খাতে বিদেশি বিনিয়োগের খুবই প্রয়োজন এবং এ লক্ষ্যে তিনি অবকাঠামো খাতে বিনিয়োগে এগিয়ে আসার জন্য ফিলিপাইনের উদ্যোক্তাদের প্রতি আহŸান জানান।

তিনি বলেন, বর্তমানে ঢাকা এবং ম্যানিলার মধ্যে সরাসরি বিমান যোগাযোগ নেই, যেজন্য ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণে কিছুটা হলেও প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হচ্ছে। এ অবস্থা নিরসনে ঢাকা ও ম্যানিলার মধ্যে সরাসরি বিমান যোগাযোগের ওপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন।

ঢাকা চেম্বারের সভাপতি বলেন, ফিলিপাইন খুবই সফলতার সঙ্গে সারা পৃথিবীতে দক্ষ জনবল পাঠিয়ে থাকে। বাংলাদেশের মানবসম্পদের দক্ষতা বৃদ্ধিতে প্রতিষ্ঠান স্থাপনে বাংলাদেশ ও ফিলিপাইনের যৌথ উদ্যোগ গ্রহণের ওপর তিনি জোরারোপ করেন।

ফিলিপাইন প্রতিবছর ইলেকট্রনিকস পণ্য, যোগাযোগ মেশিনারিজ, রড ও স্টিল, টেক্সটাইল ফেব্রিক্স, কেমিক্যাল ও প্লাস্টিক প্রভৃতি পণ্য প্রচুর পরিমাণে আমদানি করে এবং এক্ষেত্রে বাংলাদেশ থেকে এসব পণ্য আমদানির জন্য ফিলিপাইনের ব্যবসায়ীদের প্রতি ঢাকা চেম্বারের সভাপতি আহŸান জানান।

ফিলিপাইনের রাষ্ট্রদূত ভিসেনটি ভিভেনকো টি. বেনডিলো বলেন, ফিলিপাইনের উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে তথ্য-প্রযুক্তি, বিজনেস প্রসেস ম্যানেজমেন্ট, পর্যটন ও ট্রান্সপোর্টেশন, কৃষি, মৎস্য এবং খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ খাতে বিনিয়োগে প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, প্রযুক্তিগত জ্ঞানের আদান-প্রদান ও গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনা এবং পর্যটন খাতের উন্নয়নে ফিলিপাইন ও বাংলাদেশি উদ্যোক্তাদের যৌথভাবে কাজ করার যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে।

রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের এশিয়ান অঞ্চলে পণ্য সরবরাহ ও বাণিজ্য সম্প্রসারণে ফিলিপাইন একটি গুরুত্বপূর্ণ গেটওয়ে হিসেবে ভ‚মিকা রাখতে পারে। তিনি জানান, ফিলিপাইনে বায়োটেকনোলজি, ফটোনিক্স ও ন্যানোটেকনোলজি খাতে বিনিয়োগ করলে বিশেষ প্রণোদনা প্রদান করা হয়।

ডিসিসিআই সহসভাপতি রিয়াদ হোসেন, পরিচালক হোসেন এ সিকদার, হুমায়ুন রশিদ, খন্দকার রাশেদুল আহসান, মো. আলাউদ্দিন মালিক, ইঞ্জিনিয়ার মো. আল আমিন, এসএম জিল্লুর রহমান, ওয়াকার আহমদ চৌধুরী এবং মহাসচিব এএইচএম রেজাউল কবির এ সময় উপস্থিত ছিলেন।