তিন কোম্পানির লভ্যাংশ ঘোষণা

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: সামিট পাওয়ার লিমিটেড, সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট লিমিটেড ও নর্দার্ন জুট ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেড সবশেষ হিসাববছরের জন্য লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

নর্দার্ন জুট ম্যানুফ্যাকচারিং: ২০১৭ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে কোম্পানিটি ২০ শতাংশ নগদ ও ২০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ওই সময় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে পাঁচ টাকা ১৩ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) হয়েছে ৯১ টাকা তিন পয়সা। এটি আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে ৭২ পয়সা ও ৮৫ টাকা ৯৪ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আগামী ২২ অক্টোবর সকাল ৯টায় রাওয়া কনভেনশন হল-৩, ভিআইপি রোড, মহাখালী, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর।

গতকাল শেয়ারদর দুই দশমিক ৪৩ শতাংশ বা ১৬ টাকা ৫০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ ৬৬৩ টাকা ৬০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৬৬৬ টাকা ৯০ পয়সা। দিনজুড়ে ৬২ হাজার ৮১০টি শেয়ার মোট এক হাজার ২৫২ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর চার কোটি ২৪ লাখ ৬৮ হাজার টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনি¤œ ৬৬০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৬৯৬ টাকা ৭০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ১৯৪ টাকা ৯০ পয়সা থেকে ৭১৪ টাকা ৫০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।

সামিট পাওয়ার: ২০১৭ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত সমাপ্ত ১৮ মাসের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে কোম্পানিটি ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ওই সময় ইপিএস হয়েছে পাঁচ টাকা ৭৫ পয়সা এবং এনএভি হয়েছে ২৯ টাকা দুই পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য এজিএম আগামী ২৬ অক্টোবর বেলা ১১টায় কৃষিবিদ ইনস্টিটিউট কমপ্লেক্স বিডি, কৃষিখামার সড়ক (খামার বাড়ি), ফার্মগেট, ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর।

গতকাল শেয়ারদর দশমিক ৭২ শতাংশ বা ৩০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ৪২ টাকা ২০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৪২ টাকা ১০ পয়সা। দিনজুড়ে ৭০ লাখ ৪৫ হাজার ৮৩৬টি শেয়ার মোট দুই হাজার ৫০৮ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ২৯ কোটি ৮৩ লাখ ৪২ হাজার টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনিম্ন ৪১ টাকা ৯০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৪৩ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৩৩ টাকা থেকে ৪৬ টাকা ৭০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।

এক হাজার ৫০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন এক হাজার ৬৭ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। কোম্পানির রিজার্ভের পরিমাণ ৮৭৪ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। কোম্পানিটির মোট ১০৬ কোটি ৭৮ লাখ ৭৭ হাজার ২২৭টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসই’র সর্বশেষ তথ্যমতে, কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালক ৫৬ দশমিক ৬০ শতাংশ , প্রাতিষ্ঠানিক ২৫ দশমিক ১৫ শতাংশ, বিদেশি তিন দশমিক ৬৫ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে বাকি ১৪ দশমিক ৬০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।

সামিট অ্যালায়েন্স পোর্ট: ২০১৭ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত সমাপ্ত ১৮ মাসের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে কোম্পানিটি ১৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ওই সময় ইপিএস হয়েছে এক টাকা ১১ পয়সা এবং এনএভি হয়েছে ২৫ টাকা চার পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য এজিএম আগামী ২৫ অক্টোবর বেলা সাড়ে ১১টায় হল ২৪, সিআরবি রোড, ওয়েস্ট সাইড অব এমএ আজিজ স্টেডিয়াম, চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হবে। এজন্য রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর।

গতকাল শেয়ারদর এক দশমিক ৪৯ শতাংশ বা ৬০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ ৩৯ টাকা ৮০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৩৯ টাকা ৯০ পয়সা। দিনজুড়ে ছয় লাখ ৫৬ হাজার ২০৪টি শেয়ার মোট ৯১২ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর দুই কোটি ৬৩ লাখ ছয় হাজার টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনিম্ন ৩৯ টাকা ৮০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৪১ টাকায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৩৭ টাকা ২০ পয়সা থেকে ৫৫ টাকা ২০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। ৩০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ২২৬ কোটি ৭২ লাখ ৬০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ২৯০ কোটি ৯৮ লাখ টাকা।

কোম্পানিটির মোট ২২ কোটি ৬৭ লাখ ২৬ হাজার ২৭৬টি শেয়ার রয়েছে। মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ৫৮ দশমিক ৬৭ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ১১ দশমিক ৯৯ শতাংশ, বিদেশি তিন দশমিক ৮৭ শতাংশ ও ২৫ দশমিক ৪৭ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে।

৩৯ টাকা ৮০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৪১ টাকায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৩৭ টাকা ২০ পয়সা থেকে ৫৫ টাকা ২০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে। ৩০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ২২৬ কোটি ৭২ লাখ ৬০ হাজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ২৯০ কোটি ৯৮ লাখ টাকা।

কোম্পানিটির মোট ২২ কোটি ৬৭ লাখ ২৬ হাজার ২৭৬টি শেয়ার রয়েছে। মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ৫৮ দশমিক ৬৭ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ১১ দশমিক ৯৯ শতাংশ, বিদেশি তিন দশমিক ৮৭ শতাংশ ও ২৫ দশমিক ৪৭ শতাংশ শেয়ার রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে।