বাণিজ্য সংবাদ

তিন দিনের স্মার্টফোন ও ট্যাবমেলা শেষ হচ্ছে আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: গতকাল সাপ্তাহিক ছুটি থাকায় সকাল থেকেই জমে উঠে স্মার্টফোন ও ট্যাবমেলা। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া স্মার্টফোন, ট্যাবলেট ও স্মার্টফোনের গ্যাজেট আইটেম নিয়ে আয়োজক প্রতিষ্ঠান এক্সপো মেকারের ১২তম এ আয়োজন শেষ
হচ্ছে আজ।
এবারের মেলায় আইফোন, নোকিয়া, ম্যাক্সিমাস, রিয়েলমি, ডিএক্সটেল, সুরভি এন্টারপ্রাইজ, তাদের স্মার্টফোন ও অ্যাক্সেসরিজ নিয়ে অংশ নিয়েছে। স্মার্টফোন ও ট্যাবমেলা জুড়েই চলছে ছাড় আর অফার। আয়োজকরা জানান, স্যামসাং স্মার্টফোন ও ট্যাব বিক্রির পাশাপাশি মেলায় একটি গেমিং জোনও রাখা হয়েছে। মেলায় ডিএক্স টেল এনেছে শাওমির সব পণ্য। সেখানে শাওমির স্মার্টফোন, স্মার্ট ব্যান্ড, মোবাইল অ্যাক্সেসরিজ পাওয়া যাচ্ছে।
হুয়াওয়ে স্মার্টফোনের পাশাপাশি ট্যাব, স্মার্ট ব্যান্ড ও মোবাইল অ্যাক্সেসরিজ বিক্রি করছে। অপ্পো হাজির হয়েছে স্মার্টফোন ও মোবাইল অ্যাক্সেসরিজ নিয়ে। এসব ব্র্যান্ড ছাড়াও মেলায় স্মার্টফোন নিয়ে এসেছে ভিভো, আইফোন, নোকিয়া, ম্যাক্সিমাস, রিয়েলমি, ইউমিডিজি।
মেলায় স্যামসাংয়ের কিছু নির্দিষ্ট মডেলে ওপর সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ মূল্যছাড় দিচ্ছে। পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে পাঁচ শতাংশ মূল্যছাড়। এছাড়া নগদে পেমেন্টেও মিলছে বাড়তি ক্যাশব্যাক। হুয়াওয়েতে মূল্যছাড় ছাড়াও রয়েছে উপহার। অপ্পো দিচ্ছে লাখপতি অফার। ভিভো নির্দিষ্ট মডেলে ছয় হাজার টাকা পর্যন্ত ছাড়সহ বেশকিছু মডেলে দিচ্ছে ক্যাশব্যাক অফার। মোটোরোলা পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত এবং ইউমিডিজি ছয় হাজার টাকা পর্যন্ত ছাড় দিয়ে স্মার্টফোন বিক্রি করছে মেলায়।
মেলায় কথা হয় দর্শনার্থী বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তš§য় আহমেদের সঙ্গে। তিনি বলেন, কিছুদিন আগে থেকেই একটি ভালো মোবাইল কিনতে চাচ্ছিলাম। কিন্তু স্মার্টফোন ও ট্যাবমেলা শুরু হবে জেনে মেলা থেকেই কেনার সিদ্ধান্ত নেই। কেননা মেলায় অনেক ছাড় ও লেটেস্ট কালেকশন পাওয়া যায়। তাই বন্ধুরা মিলে মেলায় এসেছি। সকাল থেকেই স্টল ঘুরে নানা অফার দেখছি। মেলার প্রথম দিন আমার দুই বন্ধু এসেছিল তারা ফোন ক্রয় করেছে।
এদিকে বৃহস্পতিবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, শুধু ডিভাইসের দিকে নজর দিলেই হবে না, ডিভাইসের কনটেন্টের দিকেও নজর দিতে হবে। সব ধরনের ডিভাইস ব্যবহারের ক্ষেত্রে দরকার নিরাপদ ইন্টারনেট। আগামী কয়েক বছরের মধ্যে সব ধরনের সেবা স্মার্টফোনে ‘পাওয়া যাবে’ দাবি করে তিনি বলেন, বাংলাদেশে ৯ থেকে ১০ কোটি মোবাইল হ্যান্ডসেট ব্যবহার হয়; তার মাত্র ৩০ ভাগ স্মার্টফোন। কিন্তু আগামী কয়েক বছরের মধ্যে বাকি জায়গা স্মার্টফোনের দখলে চলে আসবে। তখন ডিভাইসটির মাধ্যমেই পাওয়া যাবে সব ধরনের সেবা।
অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন স্যামসাং বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার স্যাংওয়ান ইউন, হুয়াওয়ে টেকনোলজিস বাংলাদেশ লিমিটেডের সেলস ডিরেক্টর সালাহউদ্দীন সানজি, অপো বাংলাদেশের ব্র্যান্ড হেড আইয়োনো, ডিএক্স টেল লিমিটেডের হেড অব রিটেইল অপারেশন জেএম হাসান সাইফ, স্মার্ট টেকনোলজিস (বিডি) লিমিটেডের ডিরেক্টর (টেলিকম বিজনেস) সাকিব আরাফাত এবং এক্সপো মেকারের কৌশলগত পরিকল্পনাকারী মুহম্মদ খান।
এক্সপো মেকারের কৌশলগত পরিকল্পনাকারী মুহম্মদ খান জানান, প্রদর্শনী উপলক্ষে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বিশেষ ছাড় ও উপহার দিচ্ছে। মূল্যছাড়ের পাশাপাশি উপহার, গিফট বক্স, র‌্যাফেল ড্র, সেলফি প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা রেখেছে ব্র্যান্ডগুলো।
মেলায় রয়েছে প্লাটিনাম স্পন্সর প্যাভিলিয়ন তিনটি, গোল্ড স্পন্সর প্যাভিলিয়ন দুটি এবং সিলভার স্পন্সর প্যাভিলিয়ন একটি। এছাড়াও দুটি প্যাভিলিয়ন, চারটি মিনি প্যাভিলিয়ন ও তিনটি স্টল রয়েছে।

সর্বশেষ..