তিন বছরে দশ বছরের উন্নয়ন করেছি: সাঈদ খোকন

নিজস্ব প্রতিবেদক: নিজের দায়িত্ব গ্রহণের তিন বছরে এর আগের দশ বছরের চেয়ে বেশি উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন বলে দাবি করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। জনসচেতনতা বাড়লে এবং জনগণের পুরোপুরি সহযোগিতা পেলে সামনে আরও উন্নয়ন হবে বলেও জানান তিনি।
গতকাল নগর ভবনের ব্যাংক ফ্লোর সেমিনার কক্ষে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ও কাউন্সিলরদের দায়িত্বভার গ্রহণের তিন বছর পূর্তি উপলক্ষে সার্বিক উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
এ সময় ডিএসসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, সচিব সাহাবুদ্দিন খান, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. শেখ হেলাল, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ইউসুফ আলি সরদারসহ সিটি করপোরেশনের অন্যান্য বিভাগের কর্মকর্তা ও ওয়ার্ড কাউন্সিলররা উপস্থিত ছিলেন।
লিখিত বক্তব্যে মেয়র বলেন, আমাদের দায়িত্বভার গ্রহণকালে করপোরেশনের সব রাস্তাঘাট ভাঙাচোরা ছিল, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ভেঙে পড়েছিল, মশা মারার ওষুধ একটুও মজুদ ছিল না, সড়কবাতি জ্বলত না এবং বিদ্যুৎ বিল বকেয়ার কারণে নগর ভবনের বিদ্যুৎলাইন পর্যন্ত বিছিন্ন হওয়ার উপক্রম হয়েছিল। এ রকম একটি অবস্থায় আমরা এই সিটি করপোরেশনের দায়িত্ব নিই। আমরা দায়িত্ব নেওয়ার পর এই সিটিকে নতুন করে গড়ে তোলার শপথ নিই।
তিনি বলেন, বাসোপযোগী, পরিচ্ছন্ন ও সুন্দর নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে গত তিন বছরে সরকারি ও নিজস্ব অর্থায়নে নাগরিকদের যাতায়াতের সুবিধার্থে ৪৭৩ দশমিক ২৪ কিলোমিটার রাস্তার উন্নয়ন এবং ১১২ দশমিক ৪৮ কিলোমিটার ফুটপাত নির্মাণ ও উন্নয়ন এবং ৪৬৯ দশমিক ৯৬ কিলোমিটার নর্দমার উন্নয়ন করা হয়েছে। আরও ২৫৯ দশমিক ৬১ কিলোমিটার সড়ক, ২৬১ দশমিক ৮৫ কিলোমিটার ড্রেন এবং ৫১ দশমিক ৫১ কিলোমিটার ফুটপাতের নির্মাণকাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে।
বিভিন্ন সময়ে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সূচকে ঢাকাকে বসবাসের অনুপযোগী হিসেবে তুলে ধরার সমালোচনা করে মেয়র সাঈদ খোকন দাবি করেন, ঢাকা কোনোভাবেই বসবাসের অনুপযোগী নয়। তিনি প্রশ্ন তোলেন, ঢাকা যদি বসবাসের অনুপযোগী হয় তাহলে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ কেন এই শহরে আসে।
ঢাকার জলাবদ্ধতা নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মেয়র বলেন, এ বিষয়ে সংস্থাগুলোর মধ্যে কিছুটা সমন্বয়হীনতা আছে। জলাবদ্ধতা নিরসনে শতভাগ সফল হয়েছি তা বলব না, তবে অনেক এলাকাই এখন জলাবদ্ধতা থেকে মুক্ত।
গত তিন বছরে নিজের প্রতিশ্রুতির কত শতাংশ বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়েছেÑএমন প্রশ্নের জবাবে মেয়র বলেন, এটা জনগণ বিচার করবে। আমি দাবি করতে পারি সব ক্ষেত্রেই ইতিবাচক হয়েছে। পরিবর্তন শুরু করতে পেরেছি। জনগণ সঙ্গে থাকলে সামনে একটি বাসযোগ্য সুন্দর শহর নগরবাসীকে উপহার দেব।
সাঈদ খোকন দাবি করেন, বর্তমানে ডিএসসিসি’র ৮৫ থেকে ৯০ ভাগ রাস্তা পুরোপুরিভাবেই সাধারণ মানুষের চলাচলের উপযোগী। কিছু এলাকায় কাজ চলছে। এসব কাজ শেষ হলে ৯৫ শতাংশ রাস্তা চলাচলের উপযোগী হবে। তিনি বলেন, যখন দায়িত্ব নিয়েছিলাম তখন নগরীর রাস্তার ১০ শতাংশ বাতিও জ্বলত না, এখন ৯০ শতাংশ জ্বলে।
২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ডিএসসিসির মেয়র নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে মেয়র নির্বাচিত হন মোহাম্মদ সাঈদ খোকন। ওই বছরের ৬ মে তিনি মেয়র হিসেবে শপথ নেন এবং ১৭ মে দায়িত্ব গ্রহণ করে প্রথম বোর্ড সভা করেন।