প্রচ্ছদ প্রথম পাতা বাজার বিশ্লেষণ

তুলনামূলক ইতিবাচক ব্যাংক ও তথ্যপ্রযুক্তি খাত

রুবাইয়াত রিক্তা: পুঁজিবাজারে দরপতন অব্যাহত গতিতে চলছেই। তবে আগের দিনের তুলনায় দরপতনের গতি কিছুটা হ্রাস পেয়েছে। আগের দিন ৭৮ শতাংশ কোম্পানি দরপতনে থাকলেও গতকাল তা ৫৮ শতাংশে ছিল। দর বেড়েছে ৩০ শতাংশ কোম্পানির। গতকাল টানা বিক্রির চাপ ছিল না বরং একপর্যায়ে সূচকের উত্থানের চেষ্টাও ছিল। কিন্তু সেটা সফল হয়নি। লেনদেন সামান্য বেড়ে ৩০০ কোটির ঘরে উঠে আসে। গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের লেনদেনের অধিকাংশই ছিল প্রকৌশল, জ্বালানি ও ব্যাংক খাতে। সব খাতে দরপতনের হার বেশি থাকলেও ব্যাংক এবং তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে তুলনামূলক শেয়ার কেনার হার বেশি ছিল।
মোট লেনদেনের ১৮ শতাংশ বা প্রায় ৫৭ কোটি টাকা লেনদেন হয় প্রকৌশল খাতে। এ খাতে ৩৫ শতাংশ কোম্পানির দর ইতিবাচক ছিল। দরপতন হয় ৫৪ শতাংশ কোম্পানির। এ খাতের ন্যাশনাল টিউবসের সাড়ে ২১ কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে প্রায় তিন টাকা। বিবিএস কেব্লসের সোয়া পাঁচ কোটি টাকা লেনদেন হয়। দর বেড়েছে ২০ পয়সা। জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে লেনদেন হয় ১৬ শতাংশ। এ খাতেও ৫৩ শতাংশ কোম্পানি দরপতনে ছিল। সাড়ে ২৩ কোটি টাকা লেনদেন হয়ে ইউনাইটেড পাওয়ার লেনদেনের শীর্ষে উঠে এলেও ২৮ টাকা ২০ পয়সা দরপতনে ছিল। ডরিন পাওয়ারের প্রায় পাঁচ কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে ৪০ পয়সা। ব্যাংক খাতে ১০ শতাংশ লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ৫০ শতাংশ কোম্পানির। এ খাতের ব্র্যাক ব্যাংকের প্রায় আট কোটি টাকা লেনদেনের পাশাপাশি দর বেড়েছে ৬০ পয়সা। প্রিমিয়ার ব্যাংকের পৌনে পাঁচ কোটি টাকা লেনদেন হলেও দর কমেছে আড়াই টাকা। দরপতনের শীর্ষে ছিল কোম্পানিটি। ফার্স্ট সিকিউরিটি ব্যাংক দরপতনে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল। এছাড়া তথ্য ও প্রযুক্তি খাতে ৫৬ শতাংশ কোম্পানির দর বেড়েছে। জেনেক্স ইনফোসিস সাড়ে পাঁচ শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে অবস্থান করে। এছাড়া ওষুধ ও রসায়ন খাতে সমানসংখ্যক কোম্পানির দর বেড়েছে ও কমেছে। এ খাতের এএফসি এগ্রোর দর সাড়ে তিন শতাংশ বেড়ে দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে উঠে আসে। এছাড়া খাদ্য খাতের ফাইন ফুডসের পৌনে ছয় কোটি টাকা লেনদেন হয়, দর বেড়েছে চার টাকা ১০ পয়সা। কোম্পানিটি দর বৃদ্ধির শীর্ষে অবস্থান করে। সিরামিক খাতের স্টান্ডার্ড সিরামিক, বিমা খাতের ন্যাশনাল লাইফ ইন্স্যুরেন্স, ইউনাইটেড ইন্স্যুরেন্স ও এশিয়া প্যাসিফিক ইন্স্যুরেন্স দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে অবস্থান করে। এছাড়া দুটি মিউচুয়াল ফান্ডও দর বৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে অবস্থান করে। শতভাগ পতনে ছিল টেলিযোগাযোগ ও পাট খাত।

সর্বশেষ..



/* ]]> */