সুশিক্ষা

দারিদ্র্য সুমনের লেখাপড়ায় বাধা হতে পারেনি

তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ালেখার সময়ে মা পরলোকগমন করেন। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাট চুকিয়ে মাধ্যমিক স্তরে পা রাখার সময়ে বাবাও মারা যান। এতিম হয়ে পড়ে সুমন শর্মা। তবু লেখাপড়া থেমে যায়নি তার। দারিদ্র্যও তার লেখাপড়ায় বাধা হতে পারেনি। এমনকি আত্মীয়স্বজনের সহায়তার ওপর নির্ভর না করেও পড়ালেখা চালিয়ে যাচ্ছে সুমন।
চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার মোমিনপুর ইউনিয়নের বোয়ালমারী গ্রামের সুবাস শর্মা ও স্বর্তপ্রীতি সরকারের সন্তান সুমন। তার মেজ কাকা ছুতার মিস্ত্রি। বাবার মৃত্যুর পর তার হয়ে কাজ করছে সুমন। তবে প্লাস্টিকের দৌরাত্ম্যে তাদের তৈরি জিনিসের চাহিদা কম। তাই কাকার সঙ্গে কাঠের তৈরি নানা ধরনের পণ্য তৈরি করে সে। এ থেকেই চলে তার পড়ালেখা। শিক্ষকরা তার পড়ালেখায় সন্তুষ্ট।
সুমন দ্বিতীয় শ্রেণি থেকে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত সব পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করে। অষ্টম শ্রেণিতে জিপিএ ৫-সহ ট্যালেন্টপুল বৃত্তি লাভ করেছে। এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ পেয়েছে। বর্তমানে যশোর পলিটেকনিক্যাল ইনস্টিউটের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র সে। এরই মধ্যে প্রথম সেমিস্টারের ফল প্রকাশিত হয়েছে। এখানেও প্রথম হয়েছে।
ডিপ্লোমা সম্পন্ন করে বুয়েট অথবা সমমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে বিএসসি করার ইচ্ছা রয়েছে তার।

মফিজ জোয়ার্দ্দার, চুয়াডাঙ্গা

 

সর্বশেষ..