দীর্ঘদিন পর পুঁজিবাজারে প্রত্যাশিত লেনদেন

রুবাইয়াত রিক্তা: দীর্ঘদিন পর পুঁজিবাজার প্রত্যাশিত গতি ফিরে পেয়েছে। দীর্ঘ প্রায় আট মাস পর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেন হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে, যা ছিল চলতি বছরের সর্বোচ্চ লেনদেন। লেনদেনের এই গতিতে বিনিয়োগকারীদের বাজারের প্রতি আস্থা বাড়ছে ধীরে ধীরে। বড় ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা সক্রিয় হওয়ায় বাজার প্রত্যাশিত গতি ফিরে পেয়েছে। জানা গেছে, ইনভেস্টমেন্ট করপোরেশন অব বাংলাদেশ (আইসিবি) চলতি অর্থবছরে নতুন করে সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে। বাজারের উন্নয়নে এ টাকা বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত হয়েছে।
গতকালও বিনিয়োগকারীদের আগ্রহের শীর্ষে ছিল প্রকৌশল ও বস্ত্র খাত। জুন ক্লোজিং হওয়ায় এ দুই খাতের কোম্পানিগুলোয় বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বেশি লক্ষ করা গেছে। গতকাল প্রকৌশল খাতে ২৫১ কোটি টাকার বেশি লেনদেন হয়, যা মোট লেনদেনের ২৪ শতাংশ। গতকাল এ খাতে লেনদেন বেড়েছে প্রায় ২৯ কোটি টাকা। বিবিএস কেব্লসের ৩৭ কোটি টাকার, আরএসআরএম স্টিলের ৩২ কোটি টাকার ও ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ডের ২০ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। এছাড়া আনোয়ার গ্যালভানাইজিং, বেঙ্গল উইন্ডসর ও এ্যাপোলো ইস্পাত দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশের মধ্যে উঠে আসে। এসব কোম্পানির দর প্রায় ১০ শতাংশ করে বেড়েছে। বস্ত্র খাতে লেনদেন হয় ২১ শতাংশ। এ খাতে লেনদেন বেড়েছে ১০ কোটি টাকা। ৬৪ শতাংশ শেয়ারদর ইতিবাচক ছিল। এ খাতের এইচআর টেক্সটাইল ও প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে। এছাড়া প্যাসিফিক ডেনিমসের সাড়ে ২৬ কোটি, প্যারামাউন্ট টেক্সের প্রায় ২৬ কোটি ও আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজের ১৬ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। ওষুধ ও রসায়ন খাতে লেনদেন বেড়েছে ৪০ কোটি টাকার বেশি। এ খাতে ৬২ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। কেয়া কসমেটিকস দরবৃদ্ধির শীর্ষ দশে উঠে আসে। জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতে লেনদেন বেড়েছে ৯ কোটি টাকা। এ খাতের ৬৮ শতাংশ শেয়ারদর বেড়েছে। ইউনাইটেড পাওয়ারের ২৩ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতে লেনদেন বেড়েছে সাড়ে ১৩ কোটি টাকা। এ খাতের ফু ওয়াং ফুডের ১৬ কোটি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। ছোট খাতগুলোর মধ্যে সিমেন্ট, তথ্য ও প্রযুক্তি, সেবা ও আবাসন খাতের শতভাগ কোম্পানির দর ইতিবাচক ছিল। কাগজ ও মুদ্রণ খাতের সবকটি কোম্পানির দরপতন হয়। ভ্রমণ ও অবকাশ খাতের দি পেনিনসুলা চিটাগাং ও বিবিধ খাতের সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ দরবৃদ্ধির শীর্ষে উঠে আসে।