মার্কেটওয়াচ

দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগই আর্থিক প্রতিষ্ঠানের বিপদের কারণ

পুঁজিবাজার হচ্ছে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের জায়গা আর ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান হচ্ছে স্বল্পমেয়াদি ও মধ্যমেয়াদি বিনিয়োগের জায়গা। এ দুটি প্রতিষ্ঠান স্বল্প ও মধ্যমেয়াদি বিনিয়োগ ছাড়াও বেশিরভাগ সময় দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগে ঝুঁকে পড়ে। দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের ফলে এ প্রতিষ্ঠানগুলো অনেক বিপদে পড়ে গেছে এবং এ খাতে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। এর প্রভাব পুঁজিবাজারেও পড়ছে। গতকাল এনটিভির মার্কেট ওয়াচ অনুষ্ঠানে বিষয়টি আলোচিত হয়। হাসিব হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুঁজিবাজার বিশ্লেষক অধ্যাপক মুহাম্মদ মহসীন এবং এএফপির ব্যুরো চিফ শফিকুল আলম।
অধ্যাপক মহসীন বলেন, পুঁজিবাজার কোনোভাবেই স্থিতিশীল অবস্থানে আসছে না। কয়েকদিন ভালো হলেও আবার বাজার পতনের দিকে চলে আসে। দেশের অর্থনীতি ইতিবাচক দিকে এগোচ্ছে কিন্তু বাজারের তার প্রতিফলন দেখা যাচ্ছে না। অন্যদিকে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বাজার স্থিতিশীল রাখার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে কিন্তু এ দুটি প্রতিষ্ঠানকে কোনো ভূমিকা পালন করতে দেখা যাচ্ছে না। বাজার ভালো না হওয়ার পেছনে মানি মার্কেটের একটি প্রভাব রয়েছে। আবার এখনও পর্যন্ত বাজারে কাঠামোগত সমস্যা রয়ে গেছে। যতদিন পর্যন্ত এ কাঠামোগত সমস্যার পরিবর্তন করা না হবে, ততদিন বাজার থেকে ভালো কিছু আশা করা যায় না। কারণ পুঁজিবাজার হচ্ছে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের জায়গা আর ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান হচ্ছে স্বল্পমেয়াদি ও মধ্যমেয়াদি বিনিয়োগের জায়গা। এ দুটি প্রতিষ্ঠান স্বল্প ও মধ্যমেয়াদি বিনিয়োগ ছাড়াও বেশিরভাগ সময় দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগে ঝুঁকে পড়ে। দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের ফলে এ প্রতিষ্ঠানগুলো অনেক বিপদে পড়ে গেছে এবং এর ফলে এ খাতে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। এর প্রভাব পুঁজিবাজারে পড়ছে। জিডিপির গ্রোথের সঙ্গে অনেক তথ্যের মিল থাকে না। আবার এখন বিনিয়োগ বাড়ছে না কারণ বিনিয়োগ বাড়লে কর্মসংস্থান বাড়বে। কথা হচ্ছে যদি জিডিপির গ্রোথ ঠিক থাকে তাহলে বিনিয়োগ বাড়ছে না কেন। তাহলে এখানে সমস্যা কোথায়? সরকারকে এ বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে। আরেকটি বড় সমস্যা হচ্ছে দেশের অর্থ বিভিন্ন উপায়ে পাচার হয়ে যাচ্ছে। কেন এ অর্থ পাচার হয়ে যাচ্ছে। ধরে নিতে হবে এখানে কোনো নিরাপত্তা নেই। আসলে বিভিন্ন খাতে এক ধরনের অনিশ্চিয়তা দেখা যাচ্ছে। তাই অতিদ্রুত এসব খাতে আস্থা বাড়াতে হবে।
তিনি আরও বলেন, এখন যদি পুঁজিবাজার, ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রতি অবিশ্বাস সৃষ্টি হতে থাকে তাহলে দেশের অর্থনীতিতে বড় ধরনের সমস্যা তৈরি হবে। এ সমস্যা কিন্তু একদিনে তৈরি হয়নি। ধীরে ধীরে এ খাতে সমস্যা প্রকট হয়েছে। যদি দ্রুত পদক্ষেপ না নেওয়া হয় তাহলে চরম মূল্য দিতে হবে।
শফিকুল আলম বলেন, পুঁজিবাজারের মূল বিষয় হচ্ছে বিনিয়োগাকারীর আস্থা। বাজার স্থিতিশীল রাখার জন্য যে ইস্যুগুলো ঘোষণা করা হচ্ছে। এ ইস্যুগুলোতে বিনিয়োগকারীরা আস্থা পাচ্ছে না। এটাই মূল সমস্যা। তাই যে ইস্যুগুলো প্রকাশ করা হচ্ছে সেগুলো বিশ্বাসযোগ্য হতে হবে এবং বিশ্বাস বাড়াতে হবে। আর এটি সরকারকেই করতে হবে।

শ্রুতিলিখন: শিপন আহমেদ

সর্বশেষ..



/* ]]> */