পর্ষদ সভা

দুই কোম্পানির পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক: সিরামিক খাতের কোম্পানি আরএকে সিরামিকস (বাংলাদেশ) লিমিটেড এবং বিমা খাতের কোম্পানি প্রাইম ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড পরিচালনা পর্ষদ সভার তারিখ ঘোষণা করেছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
আরএকে সিরামিকস (বাংলাদেশ) লিমিটেড: আগামী ১৭ জুলাই সন্ধ্যা ৬টায় পরিচালনা পর্ষদ সভায় কোম্পানিটির ২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত দ্বিতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হবে।
২০১৮ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ও ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড ঘোষণা করে আরএকে সিরামিকস (বাংলাদেশ) লিমিটেড। ওই সময় কোম্পানিটি শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) করে দুই টাকা ২৯ পয়সা এবং ৩১ ডিসেম্বরে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য দাঁড়ায় ১৭ টাকা ৯৭ পয়সা। যা আগের বছর একই সময় ছিল যথাক্রমে দুই টাকা ৬২ পয়সা ও ১৮ টাকা ২৫ পয়সা।
এদিকে গতকাল ডিএসইতে শেয়ারদর শূন্য দশমিক ৬৩ শতাংশ বা ২০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ ৩১ টাকা ৭০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৩১ টাকা ৮০ পয়সা। দিনজুড়ে ৩০ হাজার ১৩৯টি শেয়ার মোট ১২১ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৯ লাখ ৫৬ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনিম্ন ৩১ টাকা ৬০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৩১ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৩১ টাকা থেকে ৪৯ টাকা ৭০ পয়সায় ওঠানামা করে।
৩১ ডিসেম্বর ২০১৭ পর্যন্ত সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য ১০ শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ স্টক ডিভিডেন্ড দিয়েছে, যা আগের বছর ছিল ২০ শতাংশ নগদ ও পাঁচ শতাংশ বোনাস। কোম্পানিটি ২০১০ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। কোম্পানির ৬০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৪২৭ কোটি ৯৬ লাখ ৯০ হাজার টাকা।
কোম্পানিটির ৪২ কোটি ৭৯ লাখ ৬৮ হাজার ৭০১টি শেয়ার রয়েছে। মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে ৭২ দশমিক আট শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের ১৪ দশমিক ৯৯ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারী শূন্য দশমিক শূন্য পাঁচ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে রয়েছে ১২ দশমিক ৮৮ শতাংশ শেয়ার। সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজারদরের ভিত্তিতে শেয়ারের মূল্য আয় (পিই) অনুপাত ১৩ দশমিক ৮৯ এবং হালনাগাদ অনিরীক্ষিত ইপিএসের ভিত্তিতে ১৬ দশমিক ৫৬।
প্রাইম ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড: আগামী ১৬ জুলাই বিকাল ৪টায় পরিচালনা পর্ষদ সভায় কোম্পানিটির ২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত দ্বিতীয় প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করা হবে।
৩১ ডিসেম্বর ২০১৮ সমাপ্ত হিসাববছরে ১২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টায় রাজধানীর গুলশান-১ এ অবস্থিত সেলেব্রিটি কনভেনশন হলে (প্লট-১২, ব্লক-সিডব্লিউএস (সি), গুলশান সাউথ অ্যাভিনিউ, গুলশান-১, ঢাকা-১২১২) বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া কোম্পানিটির পর্ষদের পুনর্গঠনের জন্য একই দিনে বিশেষ সাধারণ সভা (ইজিএম) অনুষ্ঠিত হবে। আর কোম্পানির রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ২১ জুলাই।
এদিকে গতকাল ডিএসইতে শেয়ারদর শূন্য দশমিক ৮৭ শতাংশ বা ৫০ পয়সা কমে প্রতিটি সর্বশেষ ৫৬ টাকা ৮০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৫৭ টাকা ২০ পয়সা। ওইদিন কোম্পানিটির ৩৮ হাজার ৯৮১টি শেয়ার মোট ১৬২ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ২২ লাখ ৩১ হাজার টাকা। দিনভর শেয়ারদর সর্বনিম্ন ৫৬ টাকা ৭০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৫৯ টাকায় ওঠানামা করে। এক বছরের মধ্যে শেয়ারদর ৪৩ টাকা থেকে ৭৬ টাকা ৮০ পয়সায় ওঠানামা করে।
এর আগে ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাববছরে কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের জন্য ১৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে। আর তার আগের বছর অর্থাৎ ২০১৬ সালে ২৫ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছিল। কোম্পানিটি ২০০৭ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়ে বর্তমানে ‘এ’ ক্যাটেগরিতে অবস্থান করছে। ৫০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৩০ কোটি ৫২ লাখ টাকা। কোম্পানিটির মোট তিন কোটি পাঁচ লাখ ২০ হাজার ২৩০টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসই থেকে প্রাপ্ত সর্বশেষ তথ্যমতে, কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৩৩ দশমিক ৬২ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক ৪৬ দশমিক ৮০ শতাংশ, বিদেশি বিনিয়োগকারীর কাছে শূন্য দশমিক শূন্য আট শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীর কাছে রয়েছে ১৯ দশমিক ৫০ শতাংশ শেয়ার।

সর্বশেষ..