দুই কোম্পানির রেকর্ড ডেট আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ স্টিল রি-রোলিং মিলস লিমিটেড (বিএসআরএম) ও বিএসআরএম স্টিলস লিমিটেডের রেকর্ড ডেট আজ। এ কারণে কোম্পানিগুলোর শেয়ার লেনদেন বন্ধ থাকবে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্রমতে, রেকর্ড ডেটের পরের দিন থেকে পুঁজিবাজারে কোম্পানিগুলোর শেয়ার লেনদেন স্বাভাবিক নিয়মেই চলবে।

বিএসআরএম: ২০১৭ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিএসআরএম বিনিয়োগকারীদের জন্য ১০ শতাংশ চূড়ান্ত বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এর আগে কোম্পানিটি ১০ শতাংশ নগদ অন্তর্বর্তীকালীন লভ্যাংশ ঘোষণা করেছিল। সে হিসাবে সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য মোট ২০ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করল। ওই সময় শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে তিন টাকা ৮৮ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য (এনএভি) হয়েছে ৫৫ টাকা ৭৫ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর দুপুর ১২টায় বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) দি ইনস্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ, চিটাগং সেন্টার, এস এস খালেদ রোড, চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল শেয়ারদর দশমিক ২১ শতাংশ বা ৩০ পয়সা কমে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ১৪৩ টাকা ৫০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ১৪৪ টাকা ৩০ পয়সা। দিনজুড়ে এক লাখ ৯৭ হাজার ১৯০টি শেয়ার মোট ৪২৪ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর দুই কোটি ৮৪ লাখ ২১ হাজার টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনি¤œ ১৪১ টাকা ২০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ১৪৫ টাকায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ১২৪ টাকা ২০ পয়সা থেকে ১৮৫ টাকা ৭০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করে।

কোম্পানিটির মোট ১৯ কোটি ৫০ লাখ ৯৭ হাজার ৭১৭টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে, কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের ৪০ দশমিক ৯৪ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক ১৪ দশমিক ১২ শতাংশ, বিদেশি ২৭ দশমিক ৮২ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ১৭ দশমিক ১২ শতাংশ শেয়ার।

বিএসআরএম স্টিলস : ২০১৭ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে বিএসআরএম স্টিলস ১৫ শতাংশ চূড়ান্ত নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এর আগে ২০ শতাংশ নগদ অন্তর্বর্তীকালীন লভ্যাংশ ঘোষণা করেছিল। সে হিসেবে সদ্য সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য মোট ৩৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করল। ওই সময় ইপিএস হয়েছে আট টাকা ৬৬ পয়সা এবং এনএভি হয়েছে ৩৩ টাকা ৭২ পয়সা। ঘোষিত লভ্যাংশ বিনিয়োগকারীদের সম্মতিক্রমে অনুমোদনের জন্য আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে ৯টায় বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) দি ইনস্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ, চিটাগং সেন্টার, এসএস খালেদ রোড, চট্টগ্রামে অনুষ্ঠিত হবে। গতকাল শেয়ারদর দশমিক ১১ শতাংশ বা ১০ পয়সা বেড়ে প্রতিটি সর্বশেষ ৮৭ টাকা ১০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ৮৭ টাকা ১০ পয়সা। দিনজুড়ে ৯২ হাজার ৯৭৮টি শেয়ার মোট ২২৫ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর ৮১ লাখ টাকা। দিনজুড়ে শেয়ারদর সর্বনিম্ন ৮৬ টাকা ৬০ পয়সা থেকে সর্বোচ্চ ৮৭ টাকা ৯০ পয়সায় হাতবদল হয়। গত এক বছরে শেয়ারদর ৮৫ টাকা ৯০ পয়সা থেকে ১০৭ টাকার মধ্যে ওঠানামা করে।

‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানিটি ২০০৯ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়। ২০১৫ সমাপ্ত হিসাববছরে ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে, যা আগের বছরের দ্বিগুণ। এ সময় ইপিএস হয়েছে ছয় টাকা ১৪ পয়সা এবং এনএভি ৩০ টাকা তিন পয়সা।