স্পোর্টস

দুর্ভাগ্য যেন পিছু ছাড়ছে না সাবিনার!

ক্রীড়া ডেস্ক: মেয়েদের ঘরোয়া লিগ বন্ধ প্রায় ছয় বছর। তাই তো দেশের বাইরের লিগ খেলে নিজেকে ফিট রাখেন সালমা খাতুন। সেই ধারাবাহিকতায় গত পরশু ইন্ডিয়ান উইমেন্স লিগের দল কেরালা রাজ্যের ক্লাব গোকুলামের হয়ে খেলতে উড়াল দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কলকাতা পৌঁছানোর পর এ ফরোয়ার্ড পান দুঃসংবাদ। বিদেশি কোটায় খেলোয়াড় নিবন্ধনের আর সুযোগ না থাকায় এবার খেলা হচ্ছে তার।
এর আগে ভিসা না পাওয়ায় চাইনিজ-তাইপের লিগে অংশ নিতে পারেননি সাবিনা খাতুন। এদিকে ভারতের সাবেক ক্লাব সিথু এফসির প্রস্তাবও ছেড়ে দিয়েছিলেন তিনি। সব মিলিয়ে হতাশায় ভুগছিলেন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক। এরই মধ্যে গত রোববার রাতে ভারত থেকে সাবিনার জন্য আসে ভালো খবর বিদেশি কোটায় তাকে দলে পেতে চায় গোকুলাম। এক মাসের চুক্তির কপিও পাঠিয়েছিল ক্লাবটি। সে সুবাদেই দ্বিতীয়বারের মতো ভারতের লিগ মাতানোর উদ্দেশে ঢাকা ছেড়েছিলেন তিনি।
গোকুলা ক্লাব কর্তৃপক্ষের জানা ছিল না ৫ মে লিগ শুরু হওয়ার পর বিদেশি খেলোয়াড় নিবন্ধন করার কোনো সুযোগ নেই। তাই তো সাবিনার সঙ্গে এক মাসের চুক্তি করেছিল তারা। কিন্তু গত পরশু ব্যাপারটি জানার পর বেশ হতাশই হয়েছেন সাবিনা।
বেশ কয়েক বছর ধরেই দেশের বাইরের লিগগুলোতে নিয়মিত হয়ে উঠেছেন সাবিনা। দেশের প্রথম মহিলা ফুটবলার হিসেবে এ ফরোয়ার্ড খেলেছেন মালদ্বীপ ও ভারতের লিগে। গত বছর ভারতের ইন্ডিয়ান উইমেন্স লিগে প্রায় একক কৃতিত্বে সিথুকে সেমিফাইনালে নিয়েছিলেন সাতক্ষীরার এ ফুটবলার। তামিলনাড়ুর দলটির হয়ে সাতটি গোল করে তিনি আলোড়ন তুলেছিলেন। তাই তো এবার দলটি তাকে পেতে চেয়েছিল। কিন্তু চাইনিজ-তাইপের লিগে অংশ নেওয়ার সুযোগ থাকায় পুরোনো ক্লাবটির প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলেন সাবিনা। শেষ পর্যন্ত অবশ্য দুর্ভাগ্যই তাকে কোনো লিগেই এবার খেলতে দিল না।

সর্বশেষ..



/* ]]> */