স্পোর্টস

দোয়া চেয়ে বিশ্বকাপ মিশনে মাশরাফি

ক্রীড়া প্রতিবেদক: প্রথমবার কোনো বহুজাতিক টুর্নামেন্টের শিরোপা জিতে গেল শনিবার দেশে ফিরেছিলেন। পরিবারকে সময় দিয়ে তিন দিনের ব্যক্তিগত ছুটি কাটিয়ে গতকালই আবার বিশ্বকাপ মিশনে উড়াল দেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। তার আগে বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক বিমানবন্দরে দ্বাদশ বিশ্বকাপে ভালো করতে সবার দোয়া চান।
গতকালই লন্ডনে পৌঁছান মাশরাফি। আজ সেখানেই বিশ্বকাপের সব অধিনায়ককে নিয়ে আইসিসির একটি অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’। এরপরই আবার তিনি উড়বেন কার্ডিফে। সেখানে আগে থেকেই অবস্থান করা সতীর্থদের সঙ্গে যোগ দেবেন। দেশ ছাড়ার আগে দল ও বিশ্বকাপে সফলতার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চান মাশরাফি, ‘সবাই দোয়া করবেন, যাতে আমরা ভালো করতে পারি। ত্রিদেশীয় সিরিজ জিতে সবাই বেশ আত্মবিশ্বাসী, আপনারা দোয়া করবেন বাংলাদেশ দলের জন্য।’
এর আগে গত শুক্রবার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে প্রথমবার ত্রিদেশীয় সিরিজের ট্রফি উল্লাসে মেতেছিল বাংলাদেশ। এর পরপরই মাশরাফি দেশে আর তামিম ব্যক্তিগত ছুটিতে দুবাই যান। অন্যদিকে বিশ্বকাপ স্কোয়াডের বাকি ১৩ জন উড়াল দেন বিশ্বকাপ মিশনে লেস্টারে। সেখানে বিরতি দিয়ে তিন দিন অনুশীলন করেছেন সাকিব-মুশফিকরা। আজ তাদের সঙ্গে যোগ দেবেন মাশরাফি ও তামিম। আগামীকাল তারা যাবেন কার্ডিফে।
বিশ্বকাপ অভিযানে নামার আগে মাশরাফি খুব করেই একটি শিরোপা জিততে চেয়েছিলেন। সেটি এরই মধ্যে ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়ে পূরণ হয়েছে। যে কারণে আরও আত্মবিশ্বাস নিয়ে ইংল্যান্ডে পাড়ি দেয়েছেন মুশফিকুর রহিম-সাকিব আল হাসানরা। ব্যাপারটিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন ম্যাশ। তবে তার কাছে মনে হয়েছে বিশ্বকাপ অন্য যে কোনো টুর্নামেন্টের চেয়ে ভিন্ন। তাই এখানে ভালো করতে হলে শুরুটা ভালো করতে হবে। তার আশা, সবার আত্মবিশ্বাস ভালো আছে। টুর্নামেন্ট (বিশ্বকাপ) তো ভিন্ন। তাই ওখানে শুরুটা ভালো হলে আশা করি ভালো কিছু হবে।
মাশরাফির নেতৃত্বে ২০১৫ বিশ্বকাপে দুর্দান্ত খেলেছিল বাংলাদেশ। ইংল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ডের মতো দলকে হারিয়ে জায়গা করে নিয়েছিল কোয়ার্টার ফাইনালে। কিন্তু এবার দলটির লক্ষ্য আরও বড় সেমিফাইনাল। এ স্বপ্ন আরও বেশি করে টাইগারদের দেখিয়েছে সদ্যই শেষ হওয়া ত্রিদেশীয় সিরিজ। এ ব্যাপারে কিছুদিন আগে মাশরাফি বলেছিলেন, ‘এ টুর্নামেন্টের (ত্রিদেশীয়) ট্রফি জয় বিশ্বকাপের মাঠে আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়াবে। তবে বিশ্বকাপ কঠিন হবে এতে কোনো সন্দেহ নেই। নিজেদের পুরো সম্ভাবনা অনুযায়ী খেলতে পারলে এ টুর্নামেন্টে (বিশ্বকাপ) বাংলাদেশও ভালো ফল করতে পারবে।’
এবারই ক্যারিয়ারের শেষ বিশ্বকাপ খেলবন মাশরাফি। তাই দেশকে ভালো কিছু দিতে চান তিনি। এজন্য এ ডানহাতি পেসার পুরোপুরি তৈরি।
আজ থেকেই আইসিসির অতিথি হিসেবে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ অভিযান। সে পথ ধরে আগামী ২৬ ও ২৮ মে কার্ডিফে ভারত ও পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে টিম টাইগার্স।
এরপরই ২৯ মে কার্ডিফ থেকে লন্ডনে ফিরবে মাশরাফির  দল। ২ জুন বিশ্বকাপের মূল লড়াই শুরু হবে স্টিভ রোডস শিষ্যদের। প্রতিপক্ষ শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকা। তবে এখনই প্রতিপক্ষ নিয়ে ভাবছেন না মাশরাফি। বরং নিজেদের তৈরি করতে ব্যস্ত তিনি ও তার সতীর্থরা।

 

 

সর্বশেষ..