সারা বাংলা

ধামাচাপা দেওয়ার অভিযোগে মামলা

ফুলবাড়ীতে শিশু ধর্ষণ

প্রতিনিধি, দিনাজপুর: দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে চতুর্থ শ্রেণির এক প্রতিবন্ধী শিশুকে ধর্ষণের ঘটনা সালিশের মাধ্যমে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করার অভিযোগে মামলা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে ধর্ষিত শিশুর মা বাদী হয়ে ধর্ষক মেহেদুল ইসলামসহ পাঁচ সালিশকারীর বিরুদ্ধে ফুলবাড়ী থানায় এই মামলা করেন।
আসামিরা হলেন সালিসকারী উপজেলার উত্তর চককবীর গ্রামের আবদুস সাত্তারের ছেলে শিবনগর ইউপি সদস্য সাইফুর ইসলাম বাবলু, শিবনগর গ্রামের মৃত খন্দকার আবদুস সোবহানের ছেলে খন্দকার শফিকুর ইসলাম, রামভদ্রপুর গ্রামের শহিদুল মোল্লার ছেলে সুজন মোল্লা, একই গ্রামের মৃত মছির উদ্দিনের ছেলে সাখওয়াত হোসেন, মৃত ফেকু শেখের ছেলে গ্রাম পুলিশ আব্বাস উদ্দিন ও রামভদ্রপুর গ্রামের মৃত আফসার মণ্ডলের ছেলে মাজেদ মণ্ডল। তাদের মধ্যে ধর্ষক মেহেদুল ইসলাম ও সুজন মোল্লাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
জানা গেছে, গত ৩ জুলাই ফুলবাড়ী উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের রামভদ্রপুর আবাসনের বাসিন্দা এক রিকশাচালককের চতুর্থ শ্রেণিপড়–য়া প্রতিবন্ধী মেয়ে দোকানে জুস নিয়ে বাড়ি ফিরছিল। পথে একই আবাসনের বাসিন্দা মেহেদুল ইসলাম শিশুটিকে জঙ্গলে নিয়ে ধর্ষণ করে। ইউপি সদস্যসহ সালিশকারী কয়েকজন মাতব্বর সালিশ বৈঠকের মাধ্যমে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন।
ঘটনাটি স্থানীয় সাংবাদিকরা জানতে পেরে পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুস সালাম চৌধুরী ধর্ষিত শিশুকে হেফাজতে নিয়ে ধর্ষকসহ সালিসকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে মামলা হলে পুলিশ দুজনকে গ্রেফতার করে।
ফুলবাড়ী থানার ওসি ফকরুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি জানার পরই তিনি ধর্ষককে গ্রেফতার করেছেন এবং ধর্ষিত শিশুকে হেফাজতে নিয়েছেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুস সালাম চৌধুরী জানান, তদন্ত সাপেক্ষে ঘটনার সঙ্গে জড়িত প্রত্যেক অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

সর্বশেষ..