সারা বাংলা

নুসরাত হত্যা মামলা অভিযোগ গঠনের শুনানি ২০ জুন

প্রতিনিধি, ফেনী: ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় ১৬ আসামির বিচার হবে কি না, সেই শুনানি হবে আগামী ২০ জুন। ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদ গতকাল সোমবার অভিযোগপত্র গ্রহণ করে এই আদেশ দেন।
বাদীপক্ষের আইনজীবী এম সাজাহান সাজু জানান, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) যে ১৬ জনকে আসামি করে অভিযোগপত্র দিয়েছে, আদালত তা গ্রহণ করেছেন। একই সঙ্গে আদালত আগামী ২০ জুন অভিযোগ গঠনের শুনানির দিন ঠিক করে দেন। শুনানি শেষে আদালত ঠিক করবেন ওই ১৬ জনের বিচার হবে কি না। এ মামলায় মোট ২১ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। অন্য পাঁচজনকে অব্যাহতি দেওয়ার সুপারিশ করে পিবিআই। আদালত তা অনুমোদন করেছেন।
এছাড়া বেলা পৌনে ১২টায় একই আদালতে এই মামলার আসামি প্রভাষক আফসার উদ্দিন ও কাউন্সিলর মাসুদুর রহমানসহ সাতজনের জামিন চেয়ে আবেদন করেন তাদের আইনজীবীরা। আদালত সে আবেদন মঞ্জুর করেননি।
ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত গত ৬ এপ্রিল ওই মাদ্রাসা কেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে গেলে কৌশলে তাকে ছাদে ডেকে নিয়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে করা শ্লীলতহানির মামলা তুলে না নেওয়ায় তাকে হত্যা করা হয় বলে পরিবারের অভিযোগ।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ফেনীর পিবিআই পরিদর্শক শাহ আলম আদালতে মোট ১৬ জনকে আসামি করে অভিযোগপত্র জমা দেন। অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলাকে এ মামলায় ‘হুকুমদাতা’ হিসেবে ১ নম্বর আসামি করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ নেতা হিসেবে নির্বাচিত পৌর কাউন্সিলর ও মাদ্রাসার প্রভাষকও রয়েছেন আসামির তালিকায়। এছাড়া এ ঘটনায় তিন পুলিশ সদস্যের দায়িত্বে অবহেলার প্রমাণ মিলেছে। যৌন হয়রানির মামলার পর নুসরাতের জবানবন্দি গ্রহণের সময় তার ভিডিও ধারণ করে তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সোনাগাজী থানার তৎকালীন ওসি মোয়াজ্জেমের বিরুদ্ধে।
এই ঘটনায় ডিজিটাল আইনে করা এক মামলায় গত ২৭ মে মোয়াজ্জেমকে গ্রেফতারের জন্য আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করলেও এখনও তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। সোনাগাজী থেকে রংপুরে বদলি হওয়া ওসি মোয়াজ্জেম সাময়িকভাবে বরখাস্ত হওয়ার পর পালিয়ে গেছেন বলে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে।

 

সর্বশেষ..